মতিঝিল থেকে ডিএসই এখন নিকুঞ্জে

সিনিয়র করসপেন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
মতিঝিল থেকে ডিএসই এখন নিকুঞ্জে

মতিঝিল থেকে ডিএসই এখন নিকুঞ্জে

  • Font increase
  • Font Decrease

বহু জল্পনা কল্পনা শেষে বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিল থেকে নিকুঞ্জে নিজস্ব ভবনে কার্যক্রম শুরু করেছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

মতিঝিল থেকে ৫৫ বছর পর ১ নভেম্বর (শুক্রবার) নিকুঞ্জে-২ এর ২১ নম্বর সড়কের ৪৬ নম্বর হাউসে ১৩ তলা ভবনটিতে ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র স্থানান্তর করা হয়েছে। রোববার (৩ নভেম্বর) থেকে লেনদেনও শুরু করবে ডিএসই।

বিষয়টি বার্তাটোয়েন্টিফোর. কমকে নিশ্চিত করেছেন ডিএসইর একজন পরিচালক। তিনি বলেন, পুঁজিবাজারে এখন খারাপ সময় যাচ্ছে। তারপরও শত চেষ্টা করে নিজস্ব ভবনে কার্যক্রম শুরু করতে পেরেছি। এই মুহূর্তে এটা আমাদের জন্য বড় পাওয়া। প্রত্যাশা করি পুঁজিবাজার ভালো হবে।

ডিএসইর তথ্য মতে, ১৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকার বাজার মুলধন নিয়ে ১৯৬৪ সালের ১৪ মে যাত্রা শুরু করে ডিএসইর। সেই সময় ডিএসইর মোট সদস্য সংখ্যা ছিল ১৯৫টি। তালিকাভুক্ত কোম্পানি ছিলো ৯টি। বর্তমানে বাজারে ৩৫৭ কোটি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড রয়েছে। যার বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৫৫ হাজার ৯৩৮ কোটি ৭ লাখ ৯৭ হাজার টাকা।

তবে স্টক এক্সচেঞ্জ চালু হয়েছে ১৯৫৪ সালের ১৮ এপ্রিল। আর ট্রেড ১৯৬৫ সালে। তখন স্টক এক্সচেঞ্জটির নাম ছিলো ইস্ট পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জ।

১৯৯৬ সালে চার কোটি টাকায় রাজধানীর খিলক্ষেত-নিকুঞ্জ-২ এলাকায় (বিমানবন্দর সড়কের পাশে) চার বিঘা জমি বরাদ্দ পায় ডিএসই। ডিএসই ২০১১-২০১২ সালের বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, বহুতল ভবনটির সম্ভাব্য নির্মাণব্যয় ধরা ছিল ১৩২ কোটি টাকার বেশি।

নকশা অনুযায়ী, ভবনের আয়তন সাত লাখ ৪১ হাজার ১০৯ বর্গফুট। ভূগর্ভস্থ তিনতলা কার পার্কিংয়ের স্থান বাদে মূল ভবন হবে ১৩ তলা। এর প্রথম দুই তলায় থাকবে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, সাব-স্টেশন, লবি, মিডিয়া সেন্টারসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। চতুর্থ তলা ডিএসইর অফিসের জন্য বরাদ্দ রাখা হবে। পঞ্চম তলা থেকে ১১ তলায় ব্রোকারেজ হাউস ও পুঁজিবাজার-সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থাকবে। অডিটোরিয়ামের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১২ তলার কিছু অংশ ও ১৩ তলা। ভবনে ওঠা-নামায় যাত্রীবাহী লিফটের সঙ্গে থাকবে একটি কার্গো লিফট।

২০০৭ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরুদ্দীন আহমেদ। ওই বছর ২৮ মার্চ ডিএসইর তৎকালীন প্রেসিডেন্ট শাকিল রিজভী আনুষ্ঠানিকভাবে নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন।

আপনার মতামত লিখুন :