‘বিএনপির প্রার্থীর অভ্যাস হয়ে গেছে ঘুম থেকে ওঠে অভিযোগ করা’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
নির্বাচনী প্রচারণায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম

নির্বাচনী প্রচারণায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম

  • Font increase
  • Font Decrease

জবাবদিহিতার মাধ্যমে দুর্নীতিমুক্ত সিটি করপোরেশন গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমি যদি কামিয়াব হই আর যদি আমাদের কাউন্সিলরা ভোটে নির্বাচিত হয়। আমি এবং আমার কাউন্সিলরদের প্রতি বছর তাদের সম্পদের হিসাব দিতে হবে, প্রতি বছরের হিসাব দেব। প্রত্যেক বছরের সম্পদের হিসাব দিতে হবে। নির্বাচিত হলে যেন জনবিচ্ছিন্ন না হই সেজন্য প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে সিটি হল মিটিং করার চেষ্টা করব। আমরা ওয়ার্ড ভিত্তিক সমস্যার সমাধান করব।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁও তালতলা এলাকার শতদল কমপ্লেক্স মাঠে ৫ম দিনের নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগে এসব কথা বলেন আতিক। নির্বাচনী প্রচার সভা বেলা ১১ টায় শুরু করার কথা থাকলেও তিনি আসেন দুপুর ১ টায়। মেয়র প্রার্থী আসার পূর্বে সেখানে সংসদ সদস্য সাদেক খান এসে নেতাকর্মীদের বুঝিয়ে দিয়ে যান। তার নির্বাচনী সভায় বক্তব্য রাখেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মঈনুল হোসেন খান নিখিল।

আতিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের চেষ্টা থাকবে ওয়ার্ড ভিত্তিক সমস্যার সমাধান করার। কেননা এক এক ওয়ার্ডের সমস্যা এক এক ধরনের। আমরা প্রতিটি ওয়ার্ডে সিটি হল মিটিং করব। সেখানে আমি এবং কাউন্সিললরা জনতার মুখোমুখি হবো।

নির্বাচনী গণসংযোগে বক্তব্য রাখছেন আতিকুল ইসলাম

নেতাকর্মী সমর্থকদের ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাইতে আহ্বান জানিয়ে আতিক বলেন, আমি বিগত ৯ মাসে চেষ্টা করেছি একটি সুস্থ, সচল ঢাকা গড়ার পরিকল্পনা করতে। আপনারা প্রত্যেকে দ্বারে দ্বারে যান, দ্বারে গিয়ে বলুন উন্নয়নের কথা।

যুব সমাজকে মাদকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়ে মেয়র প্রার্থী বলেন, আমাদের উন্নয়নের প্রথম শর্ত বেশি বেশি খেলার মাঠ করা। যত বেশি খেলার মাঠ থাকবে, যত বেশি তরুণরা খেলাধুলা করতে পারবে, তত বেশি মাদকমুক্ত করতে পারব। আসনু যুব সমাজকে মাদক থেকে রক্ষা করি। মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলি। মাদকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, গত ৯ মাসে আমি কঠিন অনুশীলন করেছি। চেষ্টা করেছি একটি পরিকল্পনা করার জন্য। সিটিকে কিভাবে আধুনিক সুস্থ, সচল সিটি করা যায়। জলাবদ্ধতার জন্য এরইমধ্যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। আগারগাঁও এলাকা ১০ কিলোমিটার সাইকেল লেন করার পরিকল্পনা করেছি।

বিএনপি প্রার্থীর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে তাদের প্রচারে বাঁধা দেওয়ার বিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রতিদিন সকালে যেমন নাস্তা করি ব্যায়াম করি। বিএনপি’র অভ্যাস হয়েছে প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে অভিযোগ করা। তারা বলবে লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই। এটা তাদের প্রতিদিনের সকালের কাজ। আমি তাদের বলব এ ধরনের মিথ্যা, অসত্য প্রচার থেকে বিরত থাকুন। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে বিশ্বাস করে, গণতন্ত্রের মাধ্যমে স্বাধীনতা পেয়েছি। আমরা চাই অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন, আপনারাও চান। তাই এসব মিথ্যাচার বন্ধ করুন।

বিএনপি’র প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, গতকাল তারা ফার্মগেট এলাকায় ক্যাম্পেইন করেছে, নির্বিঘ্নে তার ক্যাম্পেইন করেছে। একটি জায়গা বলুক কোথায় তাদের ওপর হামলা হয়েছে? একটি জায়গাতেও হামলা হয়নি।

তার নির্বাচনী প্রচারণায় সংসদ সদস্য সাদেক খানের অংশগ্রহণ আচারণবিধি লঙ্ঘন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে গণমাধ্যমসহ সকলের উদ্দেশে বলেন, আমার আশাপাশে কী সংসদ সদস্য দেখেছেন। এসময় গণমাধ্যমকর্মীরা বলেন আসার আগে ছিলেন।

জবাবে আতিক বলেন, “ওনার এলাকা ঘোরাফেরা করতে পারেন। ওনার এলাকায় ঘুরতেই পারেন। কিন্তু আমার সাথে ক্যাম্পেইনে বা সংবাদ সম্মেলনে আমিও চাই না, উনিও থাকতে পারবেন না। আমরা চাই আচারণবিধি মেনে চলতে।

আপনার মতামত লিখুন :