লড়াই শেষে না ফেরার দেশে ঐন্দ্রিলা



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা ২৪.কম
না ফেরার দেশে চলে গেলেন ঐন্দ্রিলা

না ফেরার দেশে চলে গেলেন ঐন্দ্রিলা

  • Font increase
  • Font Decrease

দীর্ঘ লড়াইয়ের পর, সকলের প্রার্থনাকে বিফল করে চলে গেলেন 'জিয়ন কাঠি'-খ্যাত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। ১ নভেম্বর ব্রেন স্ট্রোক হয় অভিনেত্রীর। এরপরই তাঁকে হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করা হয় অপারেশনও। কিন্তু সংক্রমণ বাড়তে থাকায় তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়।

রোববার (২০ নভেম্বর) দুপুরে সবাইকে কাঁদিয়ে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। 

মাঝে কদিন সুস্থতার দিকে এগোলেও শেষ পর্যন্ত লড়াইটা হেরেই গেলেন 'ফাইটার' ঐন্দ্রিলা। গত বুধবার তাঁর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় পর পর দু'বার। মাঝে খবর ছড়িয়ে যায় যে তিনি আর নেই। তখন তাঁর বন্ধু সব্যসাচী জানান, এই খবর মিথ্যে। শুক্রবার তাঁর অবস্থার খানিক উন্নতি হলেও শনিবার ফের অ্যাটাক। ১০ বার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় অভিনেত্রীর। এরপরই আর শেষ রক্ষা করা গেল না। 

কয়েক বছর আগেই বছর কুড়ির গণ্ডি পেরিয়েছিলেন ঐন্দ্রিলা, অথচ এই স্বল্প সময়ে কী ভীষণ লড়াই করে গেলেন। দেখিয়ে গেলেন বেঁচে থাকার লড়াই কাকে বলে। প্রথমে ২০১৫ সালে মারণ রোগ ক্যানসার থাবা বসায় তাঁর শরীরে। তারপর ২০২১ আরও একবার তিনি ক্যানসার আক্রান্ত হন। দুইবার ক্যানসারকে হারিয়ে, কেমোথেরাপি করিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠেন। কাজে ফেরেন। একাধিক ওয়েব সিরিজ, সিনেমায় অভিনয় করেন। কিন্তু তারপরই আচমকা তাঁর ব্রেন স্ট্রোক। সেখানেও লড়েছিলেন জি জান দিয়ে। তবে লড়াইটা তাঁর আর জেতা হল না।

'ঝুমুর' নামক একটি সিরিয়াল দিয়ে অভিনয় জগতে পা রাখেন ঐন্দ্রিলা। এই সিরিয়ালেই তাঁর বিপরীতে দেখা গিয়েছিল সব্যসাচী চৌধুরীকে। এই 'বামাখ্যাপা' সব্যসাচী চৌধুরীই শেষ দিন পর্যন্ত তাঁর পাশে থেকেছেন। ভালোবাসায়, যত্নে ভালো রাখার চেষ্টা করেছেন ঐন্দ্রিলাকে। ঐন্দ্রিলার সঙ্গে তিনিও লড়াই করছিলেন। 


সবটাই বিফল করে অন্য জীবনে পাড়ি দিলেন অভিনেত্রী। সকলের প্রার্থনাকে পিছনে ফেলে চলে গেলেন অমৃতলোকে।

নতুন লুকে অন্য এক রুনা খান



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা ২৪.কম
রুনা খান

রুনা খান

  • Font increase
  • Font Decrease

 

সম্প্রতি মডেল-অভিনেত্রী রুনা খানের নতুন লুক সবাইকে অবাক করেছে। নতুন লুকের ফটোসেশনের পর তাঁর গ্ল্যামার লুক নির্মাতাদের কাছে প্রশংসা পেয়েছে। রুনা খান কি নতুন কোনো সিনেমার জন্য এই লুক নিয়ে হাজির হচ্ছেন। জবাবে গণমাধ্যমকে রুনা খান জানান, গল্পনির্ভর চলচ্চিত্রে অবশ্যই কাজ করতে চাই। সবকিছু চূড়ান্ত হলে নতুন কিছু কাজে আমাকে খুব শিগগিরই দেখা যাবে।


সম্প্রতি অমিতাভ রেজা চৌধুরীর নতুন ওয়েব সিরিজ ‘বোধ’-এ দীপ্তি চরিত্রটি এরইমধ্যে ব্যাপক আলোচনা তৈরি করেছে।


দীর্ঘ ১৪ বছর পর অমিতাভের পরিচালনায় কাজ প্রসঙ্গে রুনা খান বলেন, অমিতাভ ভাইয়ের সেই বিজ্ঞাপনচিত্রটির কাজের পর এত বছর লাগলো তার নতুন কোনো কাজ করতে। অমিতাভ রেজার নির্মাণে একটি টেলিকমের বিজ্ঞাপনে রুনা খান তুমুল আলোচনায় আসেন। রুনা খান নিজেও সেটিকে ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে দেখেন।


সম্প্রতি রেড বিউটি অ্যান্ড সেলুনের মডেল হয়েছেন রুনা খান। নেটিজেনদের দৃষ্টি কেড়েছে রুনার ফটোশুটের ছবিগুলো।

;

লাইগার নিয়ে ১২ ঘণ্টার ম্যারাথন জেরার মুখে বিজয়



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
লাইগার নিয়ে ১২ ঘণ্টার ম্যারাথন জেরার মুখে বিজয়

লাইগার নিয়ে ১২ ঘণ্টার ম্যারাথন জেরার মুখে বিজয়

  • Font increase
  • Font Decrease

টানা ১২ ঘণ্টা হায়দরাবাদে ইডি-র অফিসে ছিলেন বিজয় দেবেরাকোন্ডা। যেখানে লাইগার নিয়ে তাঁকে একাধিক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। অভিযোগ, দক্ষিণের এক রাজনীতিক বিদেশ থেকে আসা হাওয়ালার টাকা বিনিয়োগ করেছে লাইগার ছবিতে। অভিযোগ হাওলার টাকায় তৈরি করা হয়েছে লাইগার। আর এই বিষয়ে সত্যি কথা বের করার জন্যই ইডির অফিসে ডাক পড়ে বিজয়ের। আর সেখানে ম্যারাথন জেরার মুখে পড়েন অভিনেতা, যা চলে টানা ১২ ঘণ্টা।

ইডি অফিসের বাইরে দাঁড়ানো সাংবাদিকদেরকে বিজয় বলেন, ‘অতি জনপ্রিয়তা অনেক ধরনের চ্যালেঞ্জ নিয়ে আসে। আর এই নিয়ে তুমি কিছু করতেও পারবে না। আমি এটাকে একটা অভিজ্ঞতা হিসেবে দেখছি। ওঁরা যখন আমাকে ডেকেছে আমি নিজের কর্তব্য করেছি। আমি তাঁদের সব প্রশ্নের জবাব দিয়েছি।’

অভিযোগ, লাইগার’ নির্মাণে বিদেশি টাকার বিনিয়োগ করে সরাসরি ফরেন এক্সচেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট অ্যাক্ট বা FEMA (১৯৯৯)-এ লঙ্ঘন করেছে নির্মাতারা। ইডির তরফে কিছু সপ্তাহ আগে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল লাইগার-এর পরিচালক পুরি জগন্নাথ আর প্রযোজক চার্মি কৌরকে।

ইডি আধিকারিকদের কাছে বিশ্বস্ত সূত্রে খবর রয়েছে দুবাই থেকে টাকা এসেছে এই ছবির নির্মাণে। নাম উঠে এসেছে বেশ কিছু রাজনীতিবিদেরও। ‘কালো টাকা’ সাদা করতে ‘লাইগার’-এর নির্মাণে ওই সব রাজনীতির কারবারিরা টাকা ঢেলেছে, বলে ইডি সূত্রে খবর।

ছবিতে বিজয় দেবেরাকোন্ডার সঙ্গে দেখা মিলেছে অনন্যা পাণ্ডের। রিপোর্ট অনুসারে এই ছবি বানাতে খরচ হয়েছে ৫০ কোটি। যদিও বক্স অফিসে একেবারেই সাফল্য পায়নি ছবিখানা। মাত্র ২০ কোটিতেই খাতা বন্ধ হয়। চলতি বছরের অগস্ট মাসেই মুক্তি পেয়েছিল ‘লাইগার’।

;

অর্জুন কাপুরের সন্তানের মা হচ্ছেন মালাইকা!



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মালাইকা অরোরা ও অর্জুন কাপুর বেশ কিছু বছর ধরে প্রেম করছেন। সম্পর্ক নিয়ে এখন আর সেরকম কোনও রাখঢাকও নেই তাঁদের। বয়সের ফারাক হলেও যে প্রেম হয়, তা তাঁরা প্রমাণ করে দিয়েছেন। কখনও ডেটে যাচ্ছেন তো কখনও বিদেশে ছুটি কাটাতে, কখনও আবার বন্ধুর বাড়ির পার্টিতে।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) সকালে হঠাৎ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে মালাইকা অরোরা নাকি প্রেগন্যান্ট। অর্জুন কাপুরের প্রথম সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন। কাছের বন্ধুদের সে খবরও দিয়েছেন লন্ডন ভ্যাকেশনের সময়।

অবশেষে মালাইকার প্রেগন্যান্সির খবর নিয়ে মুখ খুললেন তাঁর পরিবারের এক সদস্য। জানালেন, ‘এটা সত্যি নয়। এটা পুরোপুরিই গুজব।’

বিয়ের আগে মা হওয়া বলিউডে নতুন কিছু না। এই তো দিনকয়েক আগে আলিয়া ভাটও বিয়ের ৭ মাসের মাথায় মেয়ের জন্ম দিয়েছেন। বিয়ের সময় ২ মাসের অন্তসত্ত্বা ছিলেন তিনি, যদিও তিনি বা রণবীর কেউ এই নিয়ে মুখ খোলেননি। বিয়ের আগে গর্ভবতী হয়ে পড়েছিলেন নেহা ধুপিয়াও। প্রথমে ব্যাপাটা অস্বীকার করলেও, পরে নিজের মুখেই স্বীকার করেছিলেন।

প্রসঙ্গত, অর্জুনের সঙ্গে সম্পর্কের আগে সলমনের ভাই আরবাজ খানের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ ছিলেন মালাইকা। ১৯৯৮ সালে সাত পাকে বাঁধা পরেছিলেন। ২০১৬ সালের ২৮ মার্চ বিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেন তাঁরা। এবং অফিসিয়ালি ডিভোর্স হয় ২০১৭ সালের ১১ মে। একসঙ্গে তাঁদের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। দিনকয়েক আগেই ছিল আরহানের ২০ বছরের জন্মদিন।

কাজের সূত্রে মালাইকা ব্যস্ত তাঁর ওটিটি ডেবিউ ‘মুভিং ইন উইথ মালাইকা’ নিয়ে। এই রিয়েলিটি ওয়েব সিরিজ মাল্লার ভক্তদের তাঁর ব্যক্তিগত জীবনে প্রবেশের সুযোগ করে দেবে। শো-তে তাঁর কাছের বন্ধুরা, প্রেমিক অর্জুন, ছেলে আরহানেরও দেখা পাওয়া যাবে।

;

বুধবার চলচ্চিত্রকার আজহারুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা ২৪.কম
আগামীকাল চলচ্চিত্রকার আজহারুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী

আগামীকাল চলচ্চিত্রকার আজহারুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাতা ও নাট্যকার আজহারুল ইসলামের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল বুধবার (৩০ নভেম্বর)।

এ উপলক্ষে তার গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জের হরিরামপুর থানার ঝিটকার কালোই গ্রামে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। আজহারুল ইসলামের ‘ষড়যন্ত্র’ ও ‘রিক্সাওয়ালা’ নামে দুটি চলচ্চিত্র এবং অসংখ্য মঞ্চ নাটক পরিচালনা করেছেন। তিনি ১৯৮৮ সালের এই দিনে তিন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

পরিচালনার পাশাপাশি তিনি অভিনয়ও করেছেন। তার লেখা নাটকের মধ্যে রয়েছে, ‘প্রকৃতি জীবন দাও’, ‘ইন্দ্রোজাল’, ‘বিষ’ ইত্যাদি।

উল্লেখ্য, তিনি দৈনিক সারাবাংলার বার্তা সম্পাদক সুমন ইসলামের বাবা।

;