ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ইতালি!

ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি থেকে
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে প্রথম দিকে চীনের পর সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল ইউরোপের দেশ ইতালি। চোখের পলকেই সেখানে ছড়িয়ে পড়ছিল মহামারি এই ভাইরাসটি। কয়েক দিনের মধ্যে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয় ইউরোপের অন্যতম সুন্দর ও পর্যটনের কেন্দ্রস্থল ইতালি।

সেই ধংসের মুখ থেকে লড়াই ফিরছে ইতালি। দেশটিতে প্রতিদিন করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করে সুস্থ হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ।

ইতালিতে করোনার প্রকোপ কমতে থাকায় গত ৪ মে থেকে লকডাউন শিথিল করে দেয়া হয়। এর পর থেকে প্রায় দীর্ঘ দুই মাস পর ঘরের বাহিরে আসার সুযোগ পায় ইতালির নাগরিকরা। কাজে যোগদান করেন প্রায় অর্ধ কোটি মানুষ। পুনরায় চালু হয় উৎপাদন শিল্প, নির্মাণ খাত, পাইকারি দোকান, ফুল-ফলের দোকান।

দীর্ঘ দুই মাস লকডাউন শিথিলের পর প্রাণ ফিরে পায় ইতালি। ব্যস্ততম রাস্তাগুলো মুখরিত হতে শুরু করে মানুষের কোলাহল আর উচ্ছ্বাসে। শহরবাসীদের পদচারণয় পরিপূর্ণ হয় দেশটির ব্যস্ততম রাস্তা, পার্ক, সমুদ্র সৈকতসহ খোলামেলা সকল স্থান গুলো।

খুলে দেয়া হয়েছে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান

এদিকে ইতালিতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকায় দ্বিতীয় ধাপে সোমবার থেকে খুলছে দোকানপাট, রেস্তোরাঁ ও হেয়ার সেলুন। সেই সাথে খুলে দেওয়া হচ্ছে উপাসনালয়গুলো। সোমবার (১৮ মে) থেকে মসজিদগুলোতে নামাজ পড়ারও অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, শর্তসাপেক্ষে মসজিদ একসঙ্গে ২ শতাধিক মুসল্লিরা নামাজ আদায় করতে পারবেন। তবে অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব (১ মিটার) বজায় রেখে নামাজ পড়তে হবে।

করোনা পুরোপুরি ভাবে শেষ না হওয়া পর্যন্ত সবাইকে নিয়ম মেনেই সবকিছু পরিচালনা করতে হবে। নিরাপত্তার স্বার্থে সবাইকে মাস্ক ব্যবহার করতে পরামর্শ দিয়েছেন দেশটির সরকার।

এছাড়া আগামী সেপ্টেম্বর মাঝামাঝি সময় থেকে স্কুল খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে স্কুলে মাক্স ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :