বৃহস্পতিবার ইউক্রেন যাচ্ছেন জাতিসংঘ মহাসচিবসহ এরদোয়ান



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে দেখা করতে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসসহ ইউক্রেনে যাচ্ছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। আগামী বৃহস্পতিবার লিভিভ শহরে ইউক্রেনের জেলেনস্কির সঙ্গে বৈঠক করবেন তাঁরা।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) জাতিসংঘ মহাসচিবের একজন মুখপাত্র এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর আল–জাজিরার।

গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফানি দুজারিখ বলেছেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের আমন্ত্রণে বৃহস্পতিবার লিভিভে ইউক্রেনের রাষ্ট্রপ্রধান ও প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে ত্রীপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নেবেন জাতিসংঘ মহাসচিব।’

দুজারিখ বলেন, তারা তিনজন শুক্রবার ওডেসার কৃষ্ণ সাগর বন্দর পরিদর্শন করবেন। জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় হওয়া একটি চুক্তির আওতায় সেখান থেকে পুনরায় খাদ্যশস্য রফতানি শুরু হয়েছে।

গত ২২ জুলাই রাশিয়া এবং ইউক্রেন বিশ্বব্যাপী খাদ্য সংকটে যাতে লাখ লাখ ক্ষুধার সম্মুখীন না হয় তা কমানোর প্রয়াসে শস্যের চালান পুনরায় শুরু করার বিষয়ে জাতিসংঘ এবং তুরস্কের সঙ্গে একটি যুগান্তকারী চুক্তি স্বাক্ষর করে।

ইউক্রেন থেকে শস্যদানা রফতানি নিয়ে গত ২২ জুলাই জাতিসংঘ এবং তুরস্কের সঙ্গে একটি যুগান্তকারী চুক্তি স্বাক্ষর করে রাশিয়া ও ইউক্রেন। যুদ্ধের কারণে বিশ্বের অন্যতম প্রধান শস্যদানা রফতানিকারী দেশ ইউক্রেন থেকে শস্য রফতানি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এতে করে বিশ্বে খাদ্যসংকট দেখা দেয়। কোটি কোটি মানুষ অনাহারের ঝুঁকিতে পড়ে। এই সংকট কাটাতেই দেশ দুটির মধ্যে এই চুক্তি হয়েছে।

দুজারিখ আরও বলেন, গুতেরেস পশ্চিম ইউক্রেনের লভিভে জেলেনস্কির সঙ্গে দেখা করবেন। জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করবেন এবং রাজনৈতিক সমাধানের প্রয়োজনীয়তা নিয়েও আলোচনা করবেন।

পদত্যাগের ঘোষণা পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রীর



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল

অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল

  • Font increase
  • Font Decrease

পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল। তবে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগপত্র জমা দেননি।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর)  টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় এই তথ্য নিজেই সামনে এনেছেন ইসমাইল। এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

পাকিস্তান আগে থেকেই অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা করছিল। আর সাম্প্রতিক বিধ্বংসী বন্যার কারণে সেই সংকট আরও চরম আকার ধারণ করেছে। পদত্যাগের ঘোষণা দেওয়ার পর চার বছরেরও কম সময়ের মধ্যে পদত্যাগকারী পঞ্চম পাকিস্তানি অর্থমন্ত্রী হলেন মিফতাহ ইসমাইল। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফের সঙ্গে একটি বৈঠকে পদত্যাগের পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় মিফতাহ ইসমাইল বলেন, আমি মৌখিকভাবে অর্থমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছি। পাকিস্তানে পৌঁছে আমি আনুষ্ঠানিক পদত্যাগ করব।

মিফতাহ ইসমাইল এবং শেহবাজ শরিফ বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন এবং আগামী সপ্তাহের শুরুতে পাকিস্তানে ফিরবেন।

পাকিস্তানের অর্থনীতি ক্রমাগতভাবে অস্থির সময় পার করছে। দেশটিতে চলতি হিসাবের ঘাটতি ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতি পরিবার ও ব্যবসা উভয়ের ওপরই চাপ সৃষ্টি করেছে। এ ছাড়া সাম্প্রতিক বিধ্বংসী বন্যা আগে থেকেই বিদ্যমান অর্থনৈতিক সংকটকে চরম মাত্রায় বাড়িয়ে দিয়েছে। বন্যায় পাকিস্তানের আনুমানিক ৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ক্ষতি হয়েছে এবং দেড় হাজারেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছে।

;

ইতালির নির্বাচনে কট্টর ডানপন্থী জর্জিয়া মেলোনির জয়



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইতালিতে পার্লামেন্ট নির্বাচনে কট্টর ডানপন্থী নেতা জর্জিয়া মেলোনি জয়লাভ করেছেন। বুথ-ফেরত জরিপ অনুসারে দেশটির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন তিনি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

যদি বুথের জরিপে বিষয়টি তারা নিশ্চিত হন, তবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর জর্জিয়া মেলোনিই প্রথম সবচেয়ে কট্টর ডানপন্থী সরকার গঠন করতে যাচ্ছেন।

বুথফেরত জরিপ অনুযায়ী, জর্জিয়া মেলোনি ২২ থেকে ২৬ শতাংশ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হবেন বলে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে। মেলোনি তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এনরিকো লেত্তার চেয়ে এগিয়ে। এখন পর্যন্ত তিনি ৪১ থেকে ৪৫ শতাংশ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন।

বিভিন্ন জরিপে জর্জিয়া মেলোনি নেতৃত্বাধীন কট্টর ডানপন্থী দল ব্রাদার্স অব ইতালি পার্টি এগিয়ে ছিল। বাকি দুটি দল মাত্তেও সালভিনির লিগ ও সিলভিও বেরলুসকোনির ফোরজা ইতালিয়াকে নিয়ে সরকার গঠন করতে পারে জোটটি।

ইতালি ইউরোপীয় ইউনিয়নের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ। দেশটিতে কট্টর ডানপন্থী সরকার গঠনে হলে ইউরোপের বেশিরভাগ অংশকে শঙ্কিত করবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এ নির্বাচনের দিকে নজর রাখছে। ইতালি ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। সুইডেনের নির্বাচনে কট্টর ডানপন্থীদের জয়ের দুই সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে ইতালিও ডানপন্থী সরকার পাচ্ছে কি না, সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে।

;

৪৫০ বছর আগেই রানির মৃত্যুর ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন নস্ত্রাদামুস!



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
৪৫০ বছর আগেই রানি এলিজাবেথের মৃত্যুর ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন নস্ত্রাদামুস!

৪৫০ বছর আগেই রানি এলিজাবেথের মৃত্যুর ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন নস্ত্রাদামুস!

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যু নিয়ে ৪৫০ বছর আগেই ভবিষ্যদ্বাণী করে গেছেন ষোড়শ শতকের পৃথিবী বিখ্যাত ফরাসি ভবিষ্যদ্বক্তা নস্ত্রাদামুস। ডেইলি মেইলের এক খবরে জানা যায়, নস্ত্রাদামুস ভবিষ্যদ্বানী করেছিলেন ২০২২ সালে ৯৬ বছর বয়সে ব্রিটেনের রানি মারা যাবেন।

এর আগে নস্ত্রাদামুসের লন্ডনের গ্রেট ফায়ার, হিটলারের ক্ষমতায় উত্থান এবং ইউরোপ যুদ্ধের ভবিষ্যদ্বাণী সত্য বলে প্রশংসিত হয়।

এদিকে রানি এলিজাবেথ সম্পর্কে এমন ভবিষ্যদ্বানী জানার পর মারিও রিডিং-এর নস্ট্রাডামাস: দ্য কমপ্লিট প্রফেসিস ফর দ্য ফিউচার বইয়ের বিক্রি নাটকীয়ভাবে বেড়ে গেছে। রানির মৃত্যুর আগের সপ্তাহে, বইটি মাত্র পাঁচ কপি বিক্রি হয়। কিন্তু ১৭ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়া সপ্তাহে প্রায় ৮ হাজার কপি বিক্রি হয়ে গেছে। এটি পেপারব্যাক চার্টের শীর্ষে পৌঁছেছে, জানিয়েছে দ্য সানডে টাইমস।

বইটিতে, একটি কোয়াট্রেনকে ব্যাখ্যা করে বলা হয়, কুইন এলিজাবেথ দ্বিতীয় মারা যাবেন, ৯৬ বছর বয়সে ২০২২ সালে। রানির মৃত্যু ছাড়াও নস্ত্রাদামুস ইউক্রেনের যুদ্ধের ভবিষ্যদ্বাণী করে গেছেন। সেই সঙ্গে তিনি অস্পষ্ট পরামর্শ দিয়েছেন ফ্রান্স হুমকির সম্মুখীন হতে পারে।

নস্ত্রাদামুস বিশেষজ্ঞ ববি শাইলার পরামর্শ দিয়েছেন, নস্ত্রাদামুস তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের কথা উল্লেখ করছেন, যা আগামী কয়েক বছরের মধ্যে সংঘটিত হতে পারে।

নস্ত্রাদামুসের বেশিরভাগ ভবিষ্যদ্বাণী তার বিখ্যাত বই Les Prophéties-এ রয়েছে। এতে কোয়াট্রেন আকারে ৯৪২টি ভবিষ্যদ্বাণী রয়েছে।

 সূত্র: ডেইলি মেইল।

;

কাবুলে মসজিদের কাছে বিস্ফোরণে ৪ জন নিহত, আহত ১০



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে একটি মসজিদের কাছে বোমা বিস্ফোরণে অন্তত চারজন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছে।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জুম্মার নামাজ শেষে বের হওয়ার পরপরই এ বিস্ফোরণ ঘটে। খবর রয়টার্সের।

খবরে বলা হয়, রাজধানী ওয়াজির আকবর খান এলাকায় জুমার নামাজের পর মুসল্লিরা যখন ওই মসজিদ থেকে বের হচ্ছিলেন, তখনই বিস্ফোরণটি ঘটে।

স্থানীয় একটি হাসপাতালের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিস্ফোরণে আহত ১৪ জনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এদের মধ্যে চারজনের মৃত্যু হয়।

বর্তমানে তালেবান নিয়ন্ত্রিত ওয়াজির আকবর খান এলাকাটিকে সুরক্ষিতই বলা যায়। যুদ্ধের দিনগুলোতে ন্যাটো ও বিদেশি দূতাবাসগুলো এ এলাকাতেই ছিল।

কাবুল পুলিশের মুখপাত্র খালিদ জাদরান বলেছেন, জুম্মার নামাজের পরপরই বিস্ফোরণটি ঘটে। হতাহতরা সবাই বেসামরিক নাগরিক বলে জানান তিনি।

তাৎক্ষণিকভাবে এঘটনার দায় কেউ স্বীকার করেনি।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল নাফি টাকোর বলেছেন, বিস্ফোরণটি মসজিদের কাছে প্রধান সড়কে ঘটে এবং এঘটনার তদন্ত চলছে।

;