দোয়ায় মগ্ন থেকে কাটুক অবশিষ্ট দিনগুলো



মাহমুদ আহমদ
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বময় মহামারি করোনার দিনগুলোতেও আল্লাহতায়ালার বিশেষ কৃপায় আমরা পবিত্র রমজানের নাজাতের দশকের রোজা রাখার সৌভাগ্য পাচ্ছি, আলহামদুলিল্লাহ।

নাজাতের এ দশকে আমাদের ইবাদত-বন্দেগিতে আনতে হবে বিশেষ পরিবর্তন। নাজাতের এ দশকে নিজের জন্য, পরিবারের জন্য এবং সমগ্র বিশ্বের শান্তির জন্য আমাদেরকে অনেক বেশি আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারে দোয়া করা উচিত।

নাজাতের এই রাতগুলোকে ইবাদতের মাধ্যমে জাগ্রত রাখা চাই। পৃথিবীর যে দিকেই তাকাই সর্বত্রই যেন ফেতনা-ফ্যাসাদ-নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা আর অশান্তি বিরাজ করছে। অপর দিকে বিশ্বময় করোনাভাইরাসের কারণে সবাই আতঙ্কগ্রস্থ। এই মুহুর্তে আমাদের সকলকে আল্লাহতায়ালার কাছে অনেক বেশি প্রার্থনা করতে হবে।

একমাত্র তিনি যদি দয়া করেন তাহলে এই বিশৃঙ্খল অবস্থা এবং করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে আমরা রক্ষা পেতে পারি। এছাড়া পবিত্র রমজান হল দোয়া কবুলের সর্বোত্তম মাস। তাই নাজাতের এ দিনগুলোতে আমাদেরকে দোয়ার প্রতি বিশেষ দৃষ্টি নিবদ্ধ করতে হবে।

কেননা, যে ব্যক্তি প্রকৃত প্রেরণা নিয়ে মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করে আল্লাহ তাআলা তাকে কখনও ব্যর্থ হতে দেন না। যেভাবে পবিত্র কোরআনে আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেন:

‘তোমরা আমাকে ডাক, আমি তোমাদের ডাকে সাড়া দেব। কিন্তু যারা আমার ইবাদত সম্বন্ধে অহংকার করে, তারা নিশ্চয় লাঞ্ছিত হয়ে জাহান্নামে প্রবেশ করবে।’ (সুরা মোমেন: আয়াত ৬০)।

আল্লাহতায়ালা তার বান্দার দোয়া গ্রহণ করার জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করেন, কখন তার বান্দা তাকে ডাকবে আর তিনি তা গ্রহণ করবেন এবং তার দু:খ কষ্ট দূর করবেন।

এছাড়া রমজানের এই নাজাত বা মুক্তির দশকে দোয়া কবুলিয়তের বিশেষ মুহূর্ত সৃষ্টি হয়। এই শেষ দশকে আল্লাহকে লাভ করার জন্য অনেকে ইতিহাফ করছেন। একাগ্রতার সাথে আল্লাহকে ডাকেন এবং তারা কেবলমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভ করার উদ্দেশ্যে এবং তারই ভালবাসায় আত্মমগ্ন হয়ে ইতিকাফ করছেন আর গভীর ভাবে দোয়াতে রত আছেন।

হজরত ইবনে উমর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণিত হাদিসে মহানবী (সা.) বলেন, ‘সৎকর্মশীলতার দিক দিয়ে আল্লাহর দৃষ্টিতে রমজানের শেষ দশকের চেয়ে মহৎ ও প্রিয় আর কোন দিন নেই।’ (মুসনাদ আহমদ বিন হাম্বল, ২য় খণ্ড)

অর্থাৎ এই দশকে আল্লাহতায়ালা অন্যান্য দিনের চেয়ে অনেক বেশী মাহাত্ম্য দান করেন। নইলে, কোন দিন বা রাত আল্লাহর কাছে কী করে মহান হতে পারে? মহান এ দিক দিয়েই যে, এই দশকে আল্লাহর সন্তুষ্টির চাদরে যারা আবৃত হয় তাদেরকে এটি মহানে পরিণত করে। মহান আল্লাহর সঙ্গে সম্পর্ক যতো নিবিড় হবে, বান্দাও ততো মহানে পরিণত হতে থাকবে।

তাই আসুন, আমরা সবাই নিজেদের ক্ষমা এবং মহামারি করোনার আক্রমণ থেকে রক্ষার জন্য পবিত্র মাহে রমজানের এই নাজাতের দশকের অবশিষ্ট দিনগুলোতে অনেক বেশি দোয়া করি।

হে দয়াময় আল্লাহ! তুমি আমাদেরকে ক্ষমা করে তোমার সন্তুষ্টির চাদরে জড়িয়ে নাও, আমিন। 

লেখক: ইসলামী গবেষক ও কলামিস্ট, ই-মেইল- masumon83@yahoo.com