মসজিদে হারামের নিরাপত্তায় ১৩শ’ কর্মী



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মসজিদে হারামের এক নিরাপত্তা কর্মী

মসজিদে হারামের এক নিরাপত্তা কর্মী

  • Font increase
  • Font Decrease

মক্কার পবিত্র কাবা ও মসজিদে হারামের নিরাপত্তা, জরুরী পরিস্থিতি এবং ঝুঁকির মুখোমুখি হওয়া হতে ১ হাজার ৩০০ জনের বেশি নিরাপত্তা কর্মচারী মসজিদের ব্যবস্থাপনায় সাধারণ বিভাগ, মসজিদের অভ্যন্তরে পরিষেবা ব্যবস্থা এবং বাইরের সুবিধাসমূহ নিশ্চিতের জন্য কাজ করছে।

আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হজ এবং ওমরা মৌসুমে মসজিদে হারামের নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা এবং নিরাপত্তা পরিষেবা নিশ্চিত করার জন্য পুরুষ ও নারী কর্মচারীরা একটি সুস্পষ্ট পরিকল্পনা অনুযায়ী একসঙ্গে কাজ করে।

গ্র্যান্ড মসজিদের গেট দিয়ে লোকেদের প্রবেশের ব্যবস্থা, করোনাভাইরাস রোগের বিরুদ্ধে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ, পরিষেবা তারা নিশ্চিত করে।

সেই সঙ্গে তারা ওমরা পালনকারী ও নামাজ আদায়কারীদের সার্বিক সহায়তা দিয়ে থাকে। এসব নিরাপত্তকর্মী নিরবচ্ছিন্নভাবে সেবা দেয় বিভিন্ন শিফটে। তারা নামাজের সময় গ্র্যান্ড মসজিদের ইমামদের যাতায়াত, নিরাপত্তা প্রদান এবং নামাজের জায়গা, মসজিদের করিডোর এবং বৈদ্যুতিক লিফটগুলোকে প্রতিবন্ধকতামুক্ত রাখাসহ সারা বছর হজযাত্রীদের জন্য অন্যান্য পরিষেবা পরিচালনা করে। সেবার মান বৃদ্ধিতে কর্মীদের উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

চলতি বছরের মে মাসে এই নিরাপত্তি রক্ষীদের একজন মসজিদে হারামে খুতবা দেওয়ার সময় কাবার ইমাম শায়খ বালিলার ওপর হামলা চেষ্টা রুখে দিয়ে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেন। ওই সিকিউরিটি অফিসারের নাম মুহাম্মাদ আল জাহরানী।

ওই হামলাকারী ইহরাম বাঁধা অবস্থায় ইমামের ওপর হামলার চেষ্টা করেন। তাৎক্ষণিকভাবে সিকিউরিটি অফিসার মুহাম্মাদ আল জাহরানী তাকে জাপটে ধরে মাটিতে শুইয়ে দেন।

নিরাপত্তা রক্ষী ছাড়াও কাবা প্রাঙ্গণ পরিচ্ছন্ন রাখতে, জিয়ারতকারীদের জমজমের পানি পান করাতে, বিভিন্ন ধর্মীয় পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করতে প্রচুর লোক নিয়োগ করেছে হারামাইন কর্তৃপক্ষ।

হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মূল হজ পাঁচ বা ছয় দিন হয়ে থাকে। হজের মূল কার্যক্রম শুরু হয় ৭ জিলহজ রাত অথবা ৮ জিলহজ সকালে হাজীদের মিনায় রওয়ানা হওয়ার মধ্য দিয়ে। বুধবার (০৬ জুলাই) থেকেই মসজিদুল হারাম থেকে মিনা অভিমুখে যাত্রা করেন হজ পালন করতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা মুসল্লিরা।

হজের নিয়তে ইহরাম পরে মিনার উদ্দেশে যাত্রা করেছেন প্রায় ১০ লাখ মুসল্লি। বৃহস্পতিবারই 'লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক' ধ্বনিতে প্রকম্পিত হবে পবিত্র মিনা।

নিয়ম অনুযায়ী, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের পর মিনায় রাত্রি যাপনের পর শুক্রবার (৯ জিলহজ) ফজরের নামাজ আদায় করে, ভোরে আরাফাতের উদ্দেশে যাত্রা করবেন তারা। হজ নির্বিঘ্ন করতে এ বছর এক লাখ নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

;

আরও দুই বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পবিত্র হজ পালনে গিয়ে আরও দুই বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এ বছর ১৩ জনের মৃত্যু হলো। মৃতদের মধ্যে চারজন নারী রয়েছেন। ধর্ম মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় জানায়, ৪ জুলাই মারা যাওয়া মো. আবদুল মোতালিব (৫৮) নওগাঁর সাপাহার উপজেলার তিলনা গ্রামের বাসিন্দা। এর আগের দিন খায়বার হোসেন (৫৫) নামের আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। তিনি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার বাসিন্দা।

আগামী ৮ জুলাই পবিত্র হজ পালিত হবে। এবার ১৬৫টি ফ্লাইটের মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ৮৭টি ফ্লাইটের মাধ্যমে ৩০ হাজার ৩৬৩ জন হজযাত্রী পরিবহন করেছে। এ ছাড়া সৌদি এয়ারলাইনস ৬৪টি ফ্লাইটের মাধ্যমে ২৩ হাজার ৯১৯ জন এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইনস ১৪টি ফ্লাইটের মাধ্যমে ৫ হাজার ৮৬৪ জন হজযাত্রী পরিবহন করা হয়েছে।

হজ শেষে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে আগামী ১৪ জুলাই। শেষ হবে ৪ আগস্ট।

;

ঈদের ৫ জামাত বায়তুল মোকাররমে



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদের নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের দিন সকাল ৭টা থেকে বেলা পৌনে এগারোটার মধ্যে অনুষ্ঠেয় এসব জামাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মুসল্লিরা অংশ নিতে পারবেন।

বুধবার (৬ জুলাই) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানায়, ঈদের দিন সকাল ৭টা, ৮টা, ৯টা, ১০টা ও ১০টা ৪৫ মিনিটে বায়তুল মোকাররমে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

আগামী ১০ জুলাই (রোববার) দেশে মুসলমানদের দ্বিতীয় বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। এদিন জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে।

;

সৌদি আরবে আরও এক বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সৌদি আরবে হজ করতে যাওয়া আরও এক বাংলাদেশি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। এ নিয়ে এবারের হজ মৌসুমে সৌদি আরবে ১২ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হলো।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ ব্যবস্থাপনা–সংক্রান্ত পোর্টাল সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সবশেষ মৃত্যু হওয়া বাংলাদেশি হজযাত্রী হলেন— খয়বর হোসেন (৫৫)। রংপুরের বাসিন্দা খয়বর হোসেন মক্কার আল-মুকাররমায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার পাসপোর্ট নম্বর- EF0156162।

এদিকে চলতি বছর এখন পর্যন্ত ৫৬ হাজার ৯৫২ জন হজযাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৮৯০ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৬২ জন।

মোট ১৫৭টি ফ্লাইটে সৌদি গেছেন হজযাত্রীরা। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিচালিত ৮৬টি, সৌদি এয়ারলাইন্স পরিচালিত ৬০টি এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইন্স পরিচালিত ফ্লাইট সংখ্যা ১১টি। গত ৫ জুন হজ ফ্লাইট শুরু হয়েছিল।

;