বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত শুরু



মুফতি এনায়েতুল্লাহ, বিভাগীয় প্রধান, ইসলাম, বার্তা২৪.কম
আখেরি মোনাজাত শুরু হয়েছে/ছবি: বার্তা২৪.কম

আখেরি মোনাজাত শুরু হয়েছে/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্ব ইজতেমার ময়দান থেকে: বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত শুরু হয়েছে। বেলা ১১টা ১০মিনিটে মোনাজাত শুরু করেন আলমি শুরার সদস্য, কাকরাইলের মুরব্বি হাফেজ মাওলানা মো. জোবায়ের।

রোববার (১২ জানুয়ারি) সকালে টঙ্গীর ইজতেমার ময়দানে মোনাজাত শুরু হতেই নেমে আসে পিনপতন নিরবতা। সৃষ্টিকর্তা আল্লাহতায়ালার প্রশংসা, হজরত রাসূলে কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামে ওপর দরুদ পাঠের মাধ্যমে তিনি মোনাজাত শুরু করেন। মোনাজাতে তিনি ইজতেমার কামিয়াবি, অংশগ্রহণকারীসহ সব মুসলমানদের গোনাহ মাফ, দুনিয়া ও আখেরাতের কল্যাণ, বিশ্ব শান্তি, বিশ্ববাসীর সুখ-সমৃদ্ধি কামনা করছেন। এ সময় লাখো মানুষের কান্নার আওয়াজে ইজতেমার ময়দানে এক অভূতপূর্ব পরিবেশ সৃষ্টি হয়। ক্ষণে ক্ষণে ভেসে আসছে আমিন আমিন ধ্বনি।

ধারণা করা হচ্ছে ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে কোটি মানুষ অংশ নিয়েছেন

ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে একাধিক মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, মেয়র ও সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা অংশ নিয়েছেন। মোনাজাতে দেশি মুসল্লিদের পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক বিদেশি মুসল্লি অংশ নিয়েছেন।

মোনাজাতের আগে সকাল সাড়ে সাতটা থেকে হেদায়েতি বয়ান শুরু হয়। হেদায়েতি বয়ান করেন পাকিস্তান রায়বেন্ডের মুরব্বি মাওলানা জিয়াউল হক। হেদায়েতি বয়ানের পর সংক্ষিপ্ত বয়ান করেন আলমি শুরার অন্যতম সদস্য ভারতের মাওলানা ইবরাহীম দেওলা। এরপর আখেরি মোনাজাত শুরু হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে কোটি মানুষ অংশগ্রহণ করেছেন। কারণ, ইজতেমার ইতিহাসে এবার প্রথমবারের মতো, ময়দান থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত মাইক দেওয়া হয়েছে মুসল্লিদের ভিড়ের কারণে। বিভিন্ন বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আখেরি মোনাজাত সরাসরি সম্প্রচার করছে। মানুষের অত্যধিক ভিড়ের কারণে মোবাইল নেটওয়ার্ক কাজ করছে না। সংযোগ পেতে বিলম্ব হচ্ছে। তুরাগ পাড়ের ইজতেমায় লাখ লাখ মানুষের কান্নাজড়িত আমিন আমিন ধ্বনিতে ভিজছে পৌষের শুকনো মাটি। সবার একই প্রত্যাশা, দুনিয়া ও আখেরাতের কল্যাণ। আল্লাহতায়ারার সন্তুষ্টি অর্জন ও গোনাহ মাফ।

ইজতেমার মুরব্বিদের সূত্রে জানা গেছে, ইজতেমায় সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব-আমিরাত, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, চাঁদ, ইথিওপিয়া, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, পাকিস্থান, রাশিয়া, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ আফ্রিকা, স্পেন, সুইজারল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, কাজাখস্তান, খিরগিজস্থান, মালয়েশিয়া, মরক্কো, নেপাল, কেনিয়া, কুয়েত, কাতার, বাহরাইন, জর্দান ও দুবাইসহ বিশ্বের ৬১টি দেশের প্রায় ১ হাজার ৯শ’ বিদেশি মুসল্লি অংশ নিয়েছেন।

আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে আলমি শুরাপন্থিদের বিশ্ব ইজতেমা। পরে ১৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ১৯ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে মাওলানা সাদপন্থিদের ইজতেমা।