সৌদি গ্র্যান্ড মুফতির ফতোয়া: তারাবি ও ঈদের নামাজ বাড়িতেই



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ আবদুল আজিজ বিন আলে শায়খ, ছবি: সংগৃহীত

গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ আবদুল আজিজ বিন আলে শায়খ, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা যদি না কমে তাহলে তারাবি ও ঈদুল ফিতরের নামাজ বাড়িতেই পড়ার আহবান জানিয়েছেন সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা ও গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ আবদুল আজিজ বিন আলে শায়খ।

শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) সৌদি প্রেস এজেন্সি এ তথ্য জানায়।

দেশটির ইসলাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাছে বর্তমান পরিস্থিতিতে তারাবি ও ঈদের নামাজ কিভাবে আদায় করবে তা জানতে চেয়ে অনেকে প্রশ্ন করেন। মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে গ্র্যান্ড মুফতির নির্দেশনা জানতে চাইলে তিনি এ কথা বলেন।

গ্র্যান্ড মুফতি বলেন, যেহেতু করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণের কারণে এ বছর মসজিদে তাদের যাওয়া সম্ভব নয় তাই নিজ বাড়িতেই এই পবিত্র মাসের ইবাদত-বন্দেগি করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এটা প্রমাণিত যে, হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজ বাড়িতে কিয়ামুল লাইল বা তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করেছেন। আর তারাবির নামাজ ফরজ নয় এটা সুন্নত।

ঈদের নামাজের বিষয়ে মতামত দিতে গিয়ে সৌদি গ্র্যান্ড মুফতি বলেন, যদি বিরাজমান পরিস্থিতি অব্যাহত থাকে এবং ঈদের মাঠ বা মসজিদে নামাজ সম্ভব না হয় তবে নিজ বাড়িতেই খুতবা ছাড়া নামাজ আদায় করা যাবে। আর সদকাতুল ফিতর নামাজের আগে আদায় করে দেবে।

সৌদি আরব সরকার করোনা বিস্তার রোধে ২৬ ফেব্রুয়ারি বিদেশিদের জন্য উমরার ভিসা বন্ধ করে দেয়, ১৭ মার্চ মক্কার মসজিদে হারাম ও মদিনার মসজিদে নববী ছাড়া দেশে অন্যসব মসজিদে নামাজের জামাত ও জুমা সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সীমিত সংখ্যক মুসল্লিদের নিয়ে এ দুই মসজিদে জামাত ও জুমা জামাত চালু রয়েছে। ১৫ মসজিদে নববী কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে মসজিদে নববীতে ইফতারের যাবতীয় আয়োজনকে স্থগিত ঘোষণা করেছে।

সম্প্রতি সৌদি আরবের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় আসন্ন পবিত্র রমজান মাসে বাড়িতে তারাবির নামাজ আদায়ের নির্দেশনাসংবলিত ঘোষণা দিয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শেষ না হওয়া পর্যন্ত দেশটির মসজিদগুলোতে জামাতে নামাজ আদায়ের ওপর থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়া হবে না বলেও জানিয়েছে সরকার।

মসজিদের হারামে তারাবির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সোমবার (২০ এপ্রিল) হারামাইন প্রেসিডেন্সির প্রধান প্রফেসর ড. শায়েখ আবদুর রহমান বিন আব্দুল আজিজ আস সুদাইসের নেতৃত্বে মক্কা-মদিনা অধিদপ্তরের বোর্ড সভা বসতে যাচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে, মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববীতে তারাবির জামাতে রাকাত সংখ্যা কমানোর ঘোষণা আসতে পারে।