১০ রাকাত তারাবির সিদ্ধান্তে সৌদি বাদশাহর সম্মতি



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সৌদি বাদশাহ বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ, ছবি: সংগৃহীত

সৌদি বাদশাহ বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আসন্ন রমজানে সৌদি আরবের প্রধান দুই মসজিদে তারাবির জামাত সংক্ষিপ্ত করে হারামাইন কর্তৃপক্ষের নেওয়া দশ রাকাতের সিদ্ধান্তে সম্মতি দিয়েছেন বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ।

বুধবার (২২ এপ্রিল) ১০ রাকাত তারাবির সিদ্ধান্তে বাদশাহর সম্মতির খবর জানিয়েছে সৌদি গণমাধ্যম আল আরাবিয়া।

সোমবার রাতে হারামাইন ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ড. আবদুর রহমান আস সুদাইস বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারণে মক্বা-মদিনার প্রধান দুই মসজিদে সংক্ষিপ্ত পরিসরে ১০ রাকাত তারাবির সিদ্ধান্তসহ রমজানে হারামাইনে ইতিকাফ ও চিরাচরিত ইফতার বিতরণ বন্ধ থাকার কথা ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে হারামাইনের ইফতার মক্কা ও মদিনায় প্যাকেট করে বিতরণ ও পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত উমরা থাকার কথা জানান।

হারামাইন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মতে ইমাম-মোয়াজ্জিনসহ মসজিদে কর্মরতদের নিয়ে তারাবির জামাত হবে। এর আগে মুসল্লিদের তারাবি, ইফতার ও ঈদের নামাজ ঘরে আদায়ের পরামর্শ দেন দেশটির গ্র্যান্ড মুফতি ও সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা মুফতি শায়খ আবদুল আজিজ বিন আলে শায়খ।

সৌদি আরবের প্রধান দুই মসজিদে তারাবি হলেও ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ আল শেখ জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অব্যাহত থাকায় আসন্ন রমজানে দেশের অন্য মসজিদগুলো তারাবি নামাজের জামাত হবে না। যথারীতি বন্ধ থাকবে জামাত ও জুমা। তবে মসজিদে আজান চলবে।

তারাবি ও ঈদের নামাজ বাড়িতে পড়ার আহ্বান জানানোর পাশাপাশি কারও মৃত্যু হলে জানাজার নামাজেও বেশি মানুষের সমাগম না করার আহ্বান জানিয়েছে সৌদি ধর্ম মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রী আব্দুল লতিফ আল শেখ বলেছেন, জামাত নিষিদ্ধের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এই সতর্কতা নেওয়া হয়েছে। সে কারণে জানাজা নামাজ কবরস্থানের পাশে অনুষ্ঠিত হবে। মৃতের পরিবারের ছয় জনের বেশি এতে অংশ নিতে পারবেন না।

তবে তারাবির রাকাত সংখ্যা কমানো, ইতেকাফ ও উমরা বন্ধের কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। অনেকেই বলছেন, এভাবে নামাজের রাকাত কমানো সিদ্ধান্তটি পূর্ববর্তীদের সময়ে কখনও দেখা যায়নি। ইসলামি শরিয়তের দৃষ্টিকোণ থেকে বিষয়টি বিবেচনার দাবি রাখে।