লক্ষাধিক মুসল্লি জুমা পড়লেন মসজিদে নববীতে



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মসজিদে নববীতে জুমার নামাজ আদায় করছেন মুসল্লিরা, ছবি: সংগৃহীত

মসজিদে নববীতে জুমার নামাজ আদায় করছেন মুসল্লিরা, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আড়াই মাস পর মদিনার মসজিদে নববীতে পবিত্র জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। জুমায় অংশ নিয়েছেন লক্ষাধিক মুসল্লি। নামাজে ইমামতি করেন শায়খ ড. আবদুল মুহসিন আল কাসিম।

শুক্রবার (৫ জুন) করোনা মহামারির দরুণ ঘোষিত কারফিউ শিখিলের প্রথম উন্মুক্তভাবে জুমার নামাজ আদায় করলেন মুসল্লিরা।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) জুমার নামাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে মসজিদে নববীতে বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মসজিদে নববীর ইমাম, খতিব, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, স্বাস্থ্য প্রতিনিধি ও অন্যান্য দায়িত্বশীলরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক থেকে মসজিদে নববীতে নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে ৫টি নির্দেশনা দেওয়া হয়। সেগুলো হলো- শিশুরা নামাজে অংশ নিতে পারবে না, মুসল্লিদের মাস্ক পরিধান করতে হবে, নামাজের সময় শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, মসজিদের ধারণ ক্ষমতার ৪০ ভাগ মুসল্লি প্রবেশের পর সর্বসাধারণের প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হবে এবং নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হওয়ার সময় পরস্পর থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

জুমার নামাজে নামাজে ইমামতি করেন শায়খ ড. আবদুল মুহসিন আল কাসিম, ছবি: সংগৃহীত

করোনা বিস্তার রোধে সৌদি সরকার ১৫ মার্চ দেশটিতে শপিংমলসহ সব অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক কার্যক্রমের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। সেই সঙ্গে দেশটির সব মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়ের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। শুধু মক্কার মসজিদে হারাম ও মদিনার মসজিদে নববিতে সীমিত পরিসরে জুমার নামাজসহ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ চালু ছিল। তবে সর্বসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল।

৩১ মে থেকে ধাপে ধাপে লকডাউন এবং কারফিউ শিথিলের পাশাপাশি মসজিদসমূহ খুলে দেওয়ার অনুমতি দেয় দেশটির সরকার। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ কয়েকটি নীতিমালা অনুসরণ করার ওপর গুরুত্বারোপ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

মসজিদে নববীতে জুমার নামাজ আদায় করতে মুসল্লিদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে যোগদানের অভূতপূর্ব দৃশ্য দেখা যায়। আগত মুসল্লিরা যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নিজ নিজ জায়নামাজে জুমার নামাজ আদায় করেন। নামাজের জামাত মসজিদের আঙিনা ছাড়িয়ে আশপাশের রাস্তার চলে আসে।

 নামাজের জামাত মসজিদের আঙিনা ছাড়িয়ে আশপাশের রাস্তার চলে আসে, ছবি: সংগৃহীত

মক্কা অঞ্চল বাদে সৌদি আরবের অন্য সব মসজিদেও জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে মসজিদে হারামে সীমিত মুসল্লিদের অংশগ্রহণে জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মসজিদে হারামে জুমার ইমামতি করেন শায়খ ড. ফয়সাল বিন জামিল গাজ্জাবি।

নামাজ আদায়ের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক মুসল্লি তাদের খুশির কথা প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, দীর্ঘ আড়াই মাস পর জুমার নামাজ আদায় করতে পেরে খুব খুশি লাগছে, এ আনন্দ প্রকাশ করার ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। আমরা আল্লাহতায়ালার দরবারে শোকরিয়া জ্ঞাপন করছি।