সম্রাটকে পাসপোর্ট নিজ হেফাজতে রাখার অনুমতি



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সম্রাটকে পাসপোর্ট নিজ হেফাজতে রাখার অনুমতি

সম্রাটকে পাসপোর্ট নিজ হেফাজতে রাখার অনুমতি

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরীকে তার পাসপোর্ট নিজ জিম্মায় রাখার অনুতি দিয়েছেন আদালত।

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদের মামলায় মঙ্গলবার (০৫ মার্চ) ঢাকার ৬ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল আলম এ আদেশ দেন।

সম্রাটের আইনজীবী আফরোজা শাহনাজ পারভীন হিরা পাসপোর্ট আদালতের জিম্মা থেকে আসামির জিম্মায় প্রদানের আবেদন করেছিলেন।

চার্জ শুনানির জন্য সম্রাটের আইনজীবী সময়ের আবেদন করলে আদালত আগামী ২১ এপ্রিল চার্জ শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন।

২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর দুদকের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন।

২০২০ সালের ২৬ নভেম্বর মামলাটি তদন্ত করে সম্রাটের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন দুদকের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম।

   

আপিল বিভাগে তিনজন বিচারপতি নিয়োগ



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

হাইকোর্ট বিভাগের তিনজন বিচারপতিকে বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৯৫ (১)-এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নিয়োগ প্রদান করেন।

নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত বিচারপতিরা হলেন, বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ, বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি কাশেফা হোসেন।

বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ২৫ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টায় বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে নিয়োগপ্রাপ্ত বিচারপতিদের শপথবাক্য পাঠ করাবেন।

;

আপিল বিভাগে তিন বিচারপতি নিয়োগ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে তিনজন বিচারপতি নিয়োগ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে এবিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে আইন মন্ত্রণালয়।

নিয়োগপ্রাপ্তরা হলেন– বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ, বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলাম, বিচারপতি কাশেফা হোসেন।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, আপিল বিভাগে সদ্য নিয়োগ পাওয়া তিন বিচারপতির শপথ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায়। প্রধান বিচারপতি তাদের শপথ পড়াবেন।

আরও বলা হয়েছে, শপথ গ্রহণের পর থেকে এই নিয়োগ কার্যকর হবে।

সংবিধানে ৯৫ এর ১ অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে এই তিন বিচারকের নিয়োগে স্বাক্ষর করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। তারা তিনজনই হাইকোর্টের বিচারপতি। বিচারপতি শাহিনুর ইসলাম আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন দীর্ঘদিন।

বর্তমানে প্রধান বিচারপতিসহ আপিল বিভাগে পাঁচজন বিচারপতি রয়েছেন। তিনজনের নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে আপিল বিভাগের বিচারপতির সংখ্যা দাঁড়াবে আটজন।

;

আপিল বিভাগে নিয়োগ পাচ্ছেন তিন বিচারপতি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে তিনজন বিচারপতি নিয়োগ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগ থেকে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে জানা গেছে।

নিয়োগপ্রাপ্তরা হলেন– বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ, বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলাম, বিচারপতি কাশেফা হোসেন।

বাংলাদেশের সংবিধানে ৯৫ এর ১ অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে এই তিন বিচারকের নিয়োগে স্বাক্ষর করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। তারা তিনজনই হাইকোর্টের বিচারপতি। বিচারপতি শাহিনুর ইসলাম আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন দীর্ঘদিন।

বর্তমানে প্রধান বিচারপতিসহ আপিল বিভাগে পাঁচজন বিচারপতি রয়েছেন। তিনজনের নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে আপিল বিভাগের বিচারপতির সংখ্যা দাঁড়াবে আটজনে।

;

এসকে সিনহার অবৈধ সম্পদের মামলায় প্রতিবেদন ২৬ জুন



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম ঢাকা
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার (এসকে সিনহা) ক্ষমতার অপব্যবহার করে রাজউকের প্লট বরাদ্দ নেওয়া এবং অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামি ২৬ জুন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কোনো প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি। এজন্য ঢাকার মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালত প্রতিবেদন দাখিলের নতুন এ তারিখ ধার্য করেন।

২০২১ সালের ১০ অক্টোবর দুদকের উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

অবৈধ উপায়ে সম্পদ অর্জন ও তা বিভিন্ন ব্যক্তির হিসাবের মাধ্যমে স্থানান্তর, রূপান্তর ও হস্তান্তর করার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৭ (১) ধারা ও ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪ (২), (৩) ধারায় মামলা করা হয়। মামলায় ৭ কোটি ১৪ লাখ ৫ হাজার ৮৬৫ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং অর্থ পাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

;