ফুটবলে গিনেস বুকে নাম লেখালেন ঝালকাঠীর জুবায়ের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বরিশাল
নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস ক্যাটাগরিতে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে  আশিকুর রহমান জুবায়ের/ছবি: সংগৃহীত

নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস ক্যাটাগরিতে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে আশিকুর রহমান জুবায়ের/ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ফুটবল খেলা নৈপুণ্যে ‘নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস’ ক্যাটাগরিতে বিশ্ব রেকর্ড গড়ায় গিনেস বুকে নাম লেখালেন ঝালকাঠীর কৃতি সন্তান আশিকুর রহমান জুবায়ের।

নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস ক্যাটাগরিতে মিনিটে ৬৫ বার ফুটবল নিক্ষেপ ও ধরে ফেলায় এই বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের শিক্ষার্থী জুবায়ের।

রেকর্ডধারী জুবায়ের ঝালকাঠি জেলা শহরের মসজিদ বাড়ি রাডের বাসিন্দা ঠিকাদার জালাল আহম্মেদের ছেলে ও বিএম কলেজের ম্যানেজমেন্ট বিভাগে অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র।

এই রেকর্ড গড়ায় জুবায়েরকে বরিশাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা স্বরূপ নগদ ১০ হাজার টাকা প্রদান ও সংবর্ধনা দেয়া হয়।

বরিশাল জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০ জুলাই দুপুরে জুবায়েরের বাড়িতে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস থেকে চিঠি আসে। চিঠিতে লেখা হয়েছে, নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস ক্যাটাগরিতে মিনিটে ৬৫ বার বল নিক্ষেপ ও ধরে ফেলে বিশ্ব রেকর্ড ভেঙেছেন বাংলাদেশের জুবায়ের।

এর আগে সর্বশেষ ২০১৬ সালের ৫ নভেম্বর জার্মানির মার্কেল গুর্ক নামে এক যুবক যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানকালে নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস ক্যাটাগরিতে মিনিটে ৬২ বার বল নিক্ষেপ ও ধরে ফেলে বিশ্ব রেকর্ড গড়েন। তার রেকর্ড ভেঙে জুবায়ের মিনিটে ৬৫ বার নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেসে সফল হন।

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে চিঠির বিষয়টি বার্তা২৪.কম কে নিশ্চিত করেছেন গিনেস বুকে নাম লেখানো রেকর্ডধারী আশিকুর রহমান জুবায়ের।

এসময় তিনি জানান, ছোটবেলা থেকে ফুটবলের নেশা। ঘরের সামনের মাঠে ফুটবল খেলে কাটতো অবসর সময়। পরে ফুটবল ওয়ার্ল্ডের সুপারস্টার রোনালদিনহো'র খেলা দেখে তার মতো করে নিজেকে গড়ার চেষ্টা করি এবং বিশ্ব রেকর্ড গড়ার স্বপ্ন দেখি। ধীরে ধীরে ফুটবল নিয়ে নেক থ্রো অ্যান্ড ক্যাচেস করি। তা দিনে দিনে বেড়ে মিনিটে ৬৫ বার নিক্ষেপ ও ধরে ফেলতে সক্ষম হই। আমি চাই আমার রেকর্ডটি নতুন কেউ ভাঙুক। তাতে করে দেশের ফুটবল সর্ম্পকে মানুষের আরো আগ্রহ বাড়বে বলেও আশাবাদী এই বিশ্ব রেকর্ডকারী।

জুবায়ের বিশ্ব রেকর্ড গড়ায় বৃহঃস্পতিবার বিকেলে বরিশালের জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের তাকে নগদ ১০ হাজার টাকা ও ক্রেস্ট প্রদান এবং ফুলের শুভেচ্ছাসহ সংর্বধনা দেন বরিশালের জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান।