সাবমেরিনের লাইন কাটার অভিযোগে মেয়রের ভাইসহ গ্রেফতার ২

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, পটুয়াখালী
কুয়াকাটা পৌর মেয়রের ভাইসহ গ্রেফতার ২

কুয়াকাটা পৌর মেয়রের ভাইসহ গ্রেফতার ২

  • Font increase
  • Font Decrease

কুয়াকাটায় দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশনের সাথে সংযুক্ত পাওয়ার ক্যাবল কেটে ফেলার ঘটনায় ৫ জনকে আসামি করে মহিপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এজাহার নামীয় দুই জনকে গ্রেফাতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন- কুয়াকাটা পৌর মেয়রের ভাই আব্দুল হোসেন মোল্লা এবং তার সহযোগী আবুল হোসেন।

মহিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামমান জানান, সোমবার (১০ আগস্ট) সকাল ৮টায় সাবমেরিন কেবল ল্যান্ডিং স্টেশনের নিরাপত্তা কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মহিপুর এবং আলীপুর এলাকা থেকে দুই জনকে গ্রেফতার করে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

দ্বিতীয় সাবমেরিন ল্যান্ডিং স্টেশনের এস্টেট ম্যানেজার সুভ্রম বলেন, বর্তমানে দেশে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের পরিমাণ ১ হাজার ৭০০ জিবিপিএস। এর মধ্যে সর্বাধিক পরিমাণ ব্যান্ডউইথ (১০০০-১১০০ জিবিপিএস) সিমিউই-৫ এর মাধ্যমে আসে। গুরুত্বপূর্ণ এই সাবমেরিন ক্যাবলটি কাটা পড়ায় ৬০ শতাংশ ইন্টারনেট সেবা ব্যাহত হয়ে পড়ে। তবে প্রায় ১২ ঘণ্টা চেষ্টার পর সংযোগটি আবারও সংযুক্ত করা সম্ভব হয়।

উল্লেখ্য, গত রোববার (৯ আগস্ট) সকালে কুয়াকাটার স্থানীয় বাসিন্দা হোসেন মোল্লা খননযন্ত্র (স্ক্যাভেটর) দিয়ে মাটি কাটতে গিয়ে সাবমেরিন কেবল লাইন কেটে ফেলে। যার ফলে রোববার সকাল ১১টা থেকে সারা দেশের সাথে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। কুয়াকাটার মাইটভাঙ্গা গ্রামে অবস্থিত সিমিউই-৫ সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার ফলে ইন্টারনেট সেবায় সারা দেশে এর প্রভাব পড়েছে। ল্যান্ডিং স্টেশনের ৩-৪ কিলোমিটার দূরে আলীপুর বাজার সংলগ্ন কোল্ড স্টোরেজ নামক স্থানে ক্যাবল কাটা পড়ে। রাত ১২টা নাগাদ আবারও সংযোগ পুনঃস্থাপন করা হয়।