ঘুমন্ত স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা: স্ত্রীর যাবজ্জীবন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুমিল্লা
ছবি প্রতীকী।

ছবি প্রতীকী।

  • Font increase
  • Font Decrease

কুমিল্লায় ঘুমন্ত স্বামীর গলায় দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জোলেখা বেগম নামে এক নারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া ওই নারীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

জেলার মুরাদনগরের আবু তাহের হত্যার ১১ বছর পর তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে এই রায় ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) দুপুরে কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন এই রায় ঘোষণা করেন।
মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আদালত ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, পারিবারিক কলহের জের ধরে ২০০৯ সালের ৪ মার্চ রাতে জেলার মুরাদনগর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামের আবু তাহেরকে ঘুমন্ত অবস্থায় গলায় দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে তার স্ত্রী জোলেখা বেগম। হত্যাকাণ্ড ঘটানোর আগে দিনের বেলায় পারিবারিক নানা বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। পরবর্তীতে রাত প্রায় ১০টার দিকে স্বামী-স্ত্রী একই বিছানায় ঘুমাতে যায়। এরপর আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে স্বামী আবু তাহেরকে ঘুমন্ত অবস্থায় গলায় দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে স্ত্রী জোলেখা। পরবর্তীতে স্বামীর মরদেহ ঘরে রেখে বাড়ির পাশে ঝোপের ভেতর লুকিয়ে থাকে। এ ঘটনার পরদিন পুলিশ আবু তাহেরের মরদেহ উদ্ধার করে এবং স্ত্রী জোলেখাকে ঝোপের ভেতর থেকে আটক করে।

পরে তাহেরের ভাই ওয়াহেদ আলী বাদী হয়ে এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আজ এ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।