বেশি দামে আলু বিক্রি, ২ ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে।

  • Font increase
  • Font Decrease

রংপুরে আলুর বাজার নিয়ন্ত্রণে আনতে তৎপর হয়ে উঠেছে প্রশাসন। প্রতিদিনই জেলার বিভিন্ন স্থানে বাজার মনিটরিংয়ের পাশাপাশি কোল্ড স্টোরগুলো পরিদর্শন করে সরকারের বেঁধে দেয়া মূল্যে আলু বিক্রি ও সরবরাহ ঠিক রাখতে নির্দেশনা দিচ্ছেন। এরপরও ব্যবসায়ীরা বেশি দামে আলু বিক্রি করছেন। এমন দু’জন ব্যবসায়ীকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) বিকেলে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান র‌্যাব-১৩, রংপুরের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাফিজুর রহমান।

তিনি জানান, সোমবার রংপুরের গঙ্গাচড়ায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সাইদের সহায়তায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় সরকার নির্ধারিত মূল্যের বেশি দামে আলু বিক্রি করার অপরাধে ইউনুস আলী ও আব্দুল হালিম নামে দুইজন ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। পরে তাদের দুজনকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে অধিক দামে আলু বিক্রি করার অপরাধে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে প্রত্যেককে ৭ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

হাফিজুর আরও বলেন, আলুর মূল্য বৃদ্ধির কারণে সবজির বাজারে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পর্যাপ্ত আলু মজুদ থাকার পরও একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী অবৈধভাবে মজুদ করে দাম বৃদ্ধি করছে। প্রশাসন এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

বর্তমানে দেশে চাহিদার তুলনায় বেশি থাকার পরও একটি সিন্ডিকেট আলুর দাম বাড়িয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, প্রতি কেজি আলুর উৎপাদন, পরিবহন এবং সংরক্ষণ বাবদ খরচ পড়ে মাত্র ১৬ টাকা। অথচ অবৈধ মজুদদারদের লোভের শিকার হয়ে প্রতি কেজি আলু বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকার মধ্যে।

এদিকে র‌্যাব ছাড়াও রংপুর জেলা প্রশাসন ও ভোক্তা অধিকার জেলার বিভিন্ন বাজারে অভিযান চালাচ্ছে। কোথাও কোথাও ব্যবসায়ীদের সতর্ক করার পাশাপাশি জরিমানাও করা হচ্ছে।