হরতাল সমর্থকদের দখলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন, টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন, টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ

  • Font increase
  • Font Decrease

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে পালিত হচ্ছে হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতাল। হরতালে হেফাজত কর্মীরা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করছে।

রোববার (২৮ মার্চ) সকাল থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিভিন্ন এলাকায় জেলা হেফাজতের নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন। এ সময় রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা সাজিদুর রহমানের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। সকাল থেকেই হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা হরতালের সমর্থনে জেলার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করে।

সকালে জেলা শহরের জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে স্থানীয প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে একটি প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন, হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা সাজিদুর রহমানের হেফাজত ইসলামের জেলার সাধারণ সম্পাদক ও জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মোবারক উল্লাহ, শিক্ষা সচিব মাওলানা শামসুল হক, কওমিছাত্র পরিষদের আহ্বায়ক মাওলানা এরশাদ প্রমুখ। 

কাল থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিভিন্ন এলাকায় জেলা হেফাজতের নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন

এদিকে হরতালকে কেন্দ্র করে বন্ধ রয়েছে দোকান পাটসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এছাড়াও আঞ্চলিক ও মহাসড়কে ছোট-বড় এবং দূর পাল্লার যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঢাকা-সিলেট, কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়া অংশের কমপক্ষে ৪০ টি স্পটে টায়ার জ্বালিয়ে সড়কে ব্যারিকেড দেয়া হয়। এছাড়াও শহরের বিভিন্ন স্থানে বৈদ্যুতিক খুঁটি ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে ব্যারিকেড সৃষ্টি করা হয়েছে। এদিকে শহরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বিজিবি, পুলিশ,  এবিপিএনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী টহল দিচ্ছে।

এদিকে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা সাজিদুর রহমানের দাবি এ পর্যন্ত তাদের ৮ জন ছাত্র নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন, নিহতরা হলেন জুরু আলম (৩৫), সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার বাদল মিয়া (২৪) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া বারিউড়া মৈন্দ গ্রামের সুজন মিয়া (২২) বুধলের প্লাম্বার শ্রমিক কাউসার (২৫), জোবায়ের মিয়া (১৪), আখাউড়া মনিয়ন্দের মাওলানা হোসাইন(২২), কলাইমুড়ি এলাকার সুলতান ও বুধলের কাওসার মিয়া। কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী পরবর্তিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাদের কর্মসূচি পালন হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ডিআইও) বলেন, নিহতের সংখ্যা গতকাল রাত পর্যন্ত ৬ জনের খবর পাওয়া গেছে। তবে পরে আর বেড়েছে কিনা তা আমার জানা নাই।