জন্ডিসে তো গাছ-গাছরার ওষুধই খায় সবাই



আনিসুর বুলবুল
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

মাথার ওপরে গাছ নেয়, আখের শরবত খায়। মুরগির কলিজাও খায় অনেকে। এছাড়া কাচপাই গ্রামে কবিরাজ আছে; তিনি ওষুধ বানিয়ে দেন। সেটা খাওয়াইলে জন্ডিস সেরে যায়। ডাক্তারের কাছে মানুষ খুব কমই যায়।

বলছিলেন হুমায়ূন কবির। তিনি মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার চরকাটারি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জানান, তার স্ত্রী-সন্তানেরও জন্ডিস হয়েছিল।

একই এলাকার গৃহবধূ মুক্তা বলেন, আমার ও আমার মেয়ের জন্ডিস হয়েছিল। আমরা ডাক্তারের পরামর্শে ঘর থেকে বের হইনি; বেড রেস্টে ছিলাম। তবে গ্রামের অধিকাংশ মানুষই কবিরাজের কাছে যায়। কবিরাজের বানানো গাছ-গাছরার ওষুধই খায় সবাই।

হুমায়ূন কবির ও মুক্তার মতো দেশের গ্রামাঞ্চলে জন্ডিস বা হেপাটাইটিসে আক্রান্তদের একটা বড় অংশ ঝাড়ফুঁক, পানি পড়াসহ—এ ধরনের কবিরাজি চিকিৎসার আশ্রয় নিয়ে থাকেন। হেপাটাইটিস সংক্রমণ বাংলাদেশে জনসাধারণের মধ্যে জন্ডিস রোগ হিসেবে পরিচিত। প্রকৃত অর্থে হেপাটাইটিস হলো ভাইরাসজনিত লিভারের রোগ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হেপাটাইটিস একটা নীরব ঘাতক, এ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি।

আজ (২৮ জুলাই) বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস-২০২১। করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে অন্যান্যবারের মতো এ বছর দিবসটি পালনে ব্যাপক আয়োজন না থাকলেও বিভিন্ন সংস্থার ভার্চুয়াল সভা-সেমিনারের কর্মসূচি রয়েছে। এই দিবস পালনের উদ্দেশ্য হলো বিশ্বজুড়ে হেপাটাইটিস রোগ নির্ণয়, তার প্রতিরোধ ও চিকিৎসায় সচেতনতা গড়ে তোলা।

হেপাটাইটিস এক নীরব ঘাতক। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাবে বাংলাদেশে হেপাটাইটিস 'বি' ও 'সি' ভাইরাসে প্রায় ১ কোটি মানুষ আক্রান্ত। বেসরকারি হিসাবে হেপাটাইটিসে প্রতি বছর ২০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয় দেশে। হেপাটাইটিস নিয়ে উদ্বেগের সবচেয়ে বড় কারণ হচ্ছে সারা বিশ্বে হেপাটাইটিস 'বি' ও 'সি' ভাইরাসে সংক্রমিত ১০ জনের মধ্যে ৯ জনই জানেন না যে তার শরীরে এই ভাইরাস আছে।

এটি বিশ্রাম নিলে একপর্যায়ে সেরে ওঠে। তবে প্রাণঘাতী হচ্ছে হেপাটাইটিস 'বি' ও 'সি' ভাইরাসের সংক্রমণ। এ বিষয়ে সচেতনতা জরুরি। দেশের প্রায় ৫ কোটি লিভার রোগীর চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক রয়েছেন মাত্র ১০০ জন, যাদের বেশির ভাগই ঢাকার। ফলে সারা দেশে লিভার রোগে আক্রান্তদের চিকিৎসা অনেকটাই দুরূহ বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সঠিক সময়ে প্রতিরোধ এবং চিকিৎসা না করালে হেপাটাইটিস থেকে যকৃত অকার্যকর হয়ে পড়া বা লিভার ফেইলিউর, লিভার সিরোসিস বা ক্যানসার পর্যন্ত হতে পারে। কাজেই রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে জেনে নিতে হবে আপনি হেপাটাইটিসে আক্রান্ত কি না।

লিভার ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী গণমাধ্যমকে বলেছেন, হেপাটাইটিস বাংলাদেশে একটা নীরব ঘাতক, যা প্রতি বছরই অসংখ্য মানুষের জীবনকে হুমকির মুখে ফেলে দিচ্ছে। জনগণের মধ্যে অসচেতনতা এবং রোগ সম্পর্কে জ্ঞানের কমতিই মূলত এই রোগ বিস্তারের কারণ।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. মাসুদুর রহমান খান গণমাধ্যমকে বলেছেন, জন্ডিস নিরাময়ে প্রয়োজনীয় বিশ্রাম এবং পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করতে হবে। এখানে বিশ্রামটা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ, কারণ তার লিভার আক্রান্ত। আর বাড়িতে তৈরি স্বাভাবিক পুষ্টিকর তরল খাবার খাবে। এর সাথে চিকিৎসকের পরামর্শে কিছু ঔষধ নেয়া যেতে পারে।