লকডাউনে ছেলের বাগদান করাতে গিয়ে জরিমানা গুনলেন বাবা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা ২৪.কম নোয়াখালী
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কঠোর লকডাউন অমান্য করে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে মাইক্রোবাসে সেনবাগে ছেলের বাগদান (বিয়ের পর্দ) করতে যাচ্ছিলেন মো. নুরুল আফসার। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন। আর বরপক্ষককে পরিবহন করায় মাইক্রোবাস চালক মনিকে দুই হাজার টাকা অর্থদন্ড করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বিকেলে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের বীরনারায়ণপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ১৩ রসুলপুর ইউনিয়নের লাউতলী গ্রাম থেকে থেকে বিধিনিষেধ অমান্য করে মাইক্রোবাসে করে মো. নুরুল আফসার সোহেল পরিবারের শিশুসহ ৫/৭ জনের সদস্যকে নিয়ে ছেলের বাগদান করতে ৮নং বীজবাগ ইউনিয়নের বীর নারায়নপুর গ্রামের যাচ্ছিলেন। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম চালাচ্ছিলেন সেনবাগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম মজুমদার।

এ সময় তিনি সড়কে চলমান গাড়ি থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তারা স্বীকার করেন- ছেলের বিয়ের বাগদানের বিষয়টি। তখন ভ্রাম্যমাণ আদালত লকডাউন অমাণ্য ও স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে বর পক্ষকে পাঁচ হাজার টাকা ও ড্রাইভারকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এদিকে, চলমান লকডাউনের ৭ম দিনেও বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে লকডাউন অমান্য ও স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে ১৩টি মামলায় ১৮ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম মজুমদার এবং ১১ মামলায় ১৯ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন উপজেলা সহকারি কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ক্ষেমালিকা চাকমা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম মজুমদার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ক্ষেমালিকা চাকমা জানান, জনগণের সচেতনতা ছাড়া এ অবস্থা থেকে উত্তরণ সম্ভব নয়। তাই তারা জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।