জানাজায় মানুষ থাকলেও কফিনে জিয়ার মরদেহ ছিল না: কাদের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

  • Font increase
  • Font Decrease

হাজার লোকের জানাজা পড়া আর কফিনে জিয়াউর রহমানের লাশ থাকা এক কথা নয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ওই কফিনে জিয়াউর রহমানের মরদেহ ছিল না। বিএনপি সত্যকে গোপন করতে চায়। কিন্তু সত্য থেকে পালিয়ে যেতে পারবে না।

শনিবার (২৮ আগস্ট) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত ‘বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড শীর্ষ ‘ সেমিনারে অনলাইনে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জিয়াউল হকের জানাজায়ও হাজার হাজার মানুষের সমাগম হয়েছিল। কিন্তু কফিনে তো তার লাশ ছিল না।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। জনসমর্থন না পেয়ে ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়ে অগণতান্ত্রিক পথে ক্ষমতায় যেতে চায় ঘোলা পানিতে মাছ শিকারকারী একটি চক্র। দেশের অগ্রযাত্রা টিকিয়ে রাখতে সকলকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে সকলের সহযোগিতা চান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

কাদের বলেন, ইতিহাসের সত্যকে পাশ কাটিয়ে যাওয়া যায় কিন্তু ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করে না।বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে যে বুলেটে, সেই বুলেটে জেনারেল জিয়াকেও চলে যেতে হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু তৃতীয় বিশ্বের নেতা হিসেবে উত্থান, তা অনেকেরই পছন্দ হয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, জেলের জাল পরিয়ে বাসন্তীকে দিয়ে নাটক সাজানো হয়েছিল, কারণ বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধু সরকারের সুনাম নষ্ট করাই ছিল তাদের মূল লক্ষ্য, যা আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় প্রচারিত হয়।

সেমিনারে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ. কে আজাদ। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড নিয়ে জিয়াউর রহমান সম্পর্কে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে নানা নতুন তথ্য উঠে আসছে যা সকলের অগোচরে ছিল। ফলে সময় হয়েছে একটি নতুন কমিশন গঠন করার। জাতির পিতা যেভাবে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যাও সেভাবেই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার কর্মকাণ্ডে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামানাই অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে যুক্ত সকলের সহযোগিতা চান এ.কে আজাদ।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন।