দাফনের ৩৬ দিন পর কবর থেকে দুইজনের লাশ উত্তোলন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিরাজগঞ্জ
দাফনের ৩৬ দিন পর কবর থেকে দুইজনের লাশ উত্তোলন

দাফনের ৩৬ দিন পর কবর থেকে দুইজনের লাশ উত্তোলন

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরাজগঞ্জে বিষাক্ত স্পিরিট পান করে অস্বাভাবিক মৃত্যুর পরে পুলিশকে না জানিয়ে দাফন করা দুই ব্যক্তির লাশ ৩৬ দিন পর কবর থেকে উত্তোলন করেছে পুলিশ।

আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস.এম রবিন শীষ ও সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু সাঈদের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ দুটি উত্তোলন করা হয়। এরপর লাশ দুটি সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মামলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আবু সাঈদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, অস্বাভাবিক মৃত্যুর পর লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়া দাফন করায় গত ৯ আগস্ট ময়নাতদন্তের জন্য আবেদন করে পুলিশ। এরপর আদালতের নির্দেশে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য শিয়ালকোল রঘুনাথপুর করস্থানের কবর থেকে তুলে আনা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে আবার সেগুলো যথাযথ স্থানে দাফন করা হবে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৯ আগস্ট সদর উপজেলায় শিয়ালকোল ইউনিয়নের দুটি গ্রামে রেকটিফায়েড স্পিরিট পান করে মোট চারজনের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। মৃতরা হলো, শিয়ালকোল ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে আব্দুল ওয়াহাব (৩২), সিকিম আলীর ছেলে মো. আব্দুল (৪৫), সড়াইচন্ডি নতুনপাড়া গ্রামের কালু সেখের ছেলে তাহের সেখ (৪৮) ও বিলধলি পুকুরচালা এলাকার মৃত ঘুইয়া শেখের ছেলে পিন্টু শেখ (৪০)।

স্থানীয়দের কাছে এমন মৃত্যুর খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। গিয়ে জানতে পারে রঘুনাথপুর গ্রামে মৃত দুজনকে দাফন করা হয়েছে। তাৎক্ষণিক অপর একটি লাশ ও পরে মারা যাওয়া আরেকটি লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। ময়নাতদন্ত ছাড়া দাফনকৃত দুজনের লাশ আদালতের নির্দেশক্রমে আজ উত্তোলন করা হয়েছে।