পাটুরিয়ায় ফেরি ডুবি: উভয় পাড়ে অপেক্ষায় সহস্রাধিক ট্রাক



সোহেল মিয়া, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পাটুরিয়া ঘাটের ৫ নং পন্টুনে ফেরি আমানত শাহ ডুবে যাওয়ায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের উভয় প্রান্তে এখন নদী পারের জন্য অপেক্ষা করছে সহস্রাধিক ট্রাক।

৮-৯ ঘণ্টা ধরে মহাসড়কে অপেক্ষা করেও এ সকল ট্রাকের চালকরা ফেরির দেখা পাচ্ছেন না। তবে উভয় প্রান্তের ঘাট কর্তৃপক্ষ বলছেন- ফেরি ডুবে যাওয়ার ঘটনায় কোন প্রভাব পড়েনি ফেরি চলাচলে। স্বাভাবিক রয়েছে ফেরি চলাচল।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) সকালে সরেজমিন দেখা যায়, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে কার্ভাড ভ্যান ও পণ্যবোঝাই ট্রাকের দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়েছে। সকাল থেকেই দৌলতদিয়া ঘাটে ঢাকামুখী ট্রাক ও কার্ভাড ভ্যানসহ অন্যান্য জেলামুখী গাড়ির দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। এছাড়াও বুধবার (২৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টায় ফেরি ডুবির ঘটনার পর থেকে ঘাট এলাকায় যানবাহনের সারি বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে দৌলতদিয়া প্রান্তে সাড়ে তিনশ ট্রাক নদী পারের জন্য অপেক্ষা করছে।

বরিশাল থেকে আসা কার্ভাড ভ্যান চালক আলাউদ্দিন বলেন, গতকাল দুপুরে গোয়ালন্দ মোড়ে ট্রাকের সিরিয়ালে থাকি। এরপর আজ ভোরে ঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা হলেও আমি যেখানে আছি এখান থেকে ঘাট অনেক দূর (গোয়ালন্দ ইউনিয়ন পরিষদের)।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ-পথের বহরে ছোট-বড় মিলে মোট ১৮টি ফেরি রয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কার্যালয় (বিআইডাব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. শিহাব উদ্দিন বলেন, বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৮টি ফেরি চলাচল করছে, এই দীর্ঘ যানবাহনের সারি ঘাট এলাকায় যেন না থাকে সে জন্য আমরা চেষ্টা করছি গাড়িগুলো দ্রুত পারাপার করানোর।

অপরদিকে পাটুরিয়া প্রান্তেও নদী পারের জন্য এই মুহূর্তে অপেক্ষা করছে প্রায় সাত শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক। তবে উভয় প্রান্তে যাত্রীবাহী বাসের কোন চাপ নেই। ঘাটে এসে সরাসরি ফেরিতে উঠছে বাস ও ব্যক্তিগত গাড়িগুলো।