মার্চের শেষে উৎপাদনে যাবে রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মোংলা (বাগেরহাট)
রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে

রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে

  • Font increase
  • Font Decrease

খুব শিগগিরই রামপাল পাওয়ার প্লান্ট বিদ্যুৎ উৎপাদানে যাবে। আমরা আশা করছি, ২০২২ সালের মার্চের শেষেই এটি সম্ভব হবে।

শনিবার (০৪ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে প্লান্টটির কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে এমনই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশ বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মো. হাবিবুর রহমান।

এ সময় বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ পাওয়ার কোম্পানি (প্রা.) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী কাজী আবসার উদ্দিন আহমেদ, বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ মোহসিন চৌধুরী, অতিরিক্ত সচিব এ.টি.এম মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোডের্র চেয়ারম্যান মো. বেলায়েত হোসেন, সদস্য মো. মাহবুবুর রহমান, পিজিসিবি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম কিবরিয়া ও বাগেরহাটের রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কবীর হোসেনসহ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রকল্প মূল্যায়ন সভায় অংশ নেন সচিব মো. হাবিবুর রহমান। এ সময় প্লান্ট চত্বরে একটি বকুল গাছের চারা রোপণ করেন বিদ্যুৎ সচিব।

এছাড়া বিকেলে বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ পাওয়ার কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেডের পক্ষ থেকে স্থানীয় শারীরিক প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করেন তিনি।

মূল্যায়ন সভা শেষে বিদ্যুৎ সচিব মো. হাবিবুর রহমান বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও রামপাল পাওয়ার প্লান্টের নির্মাণ কাজ থেমে থাকেনি। দুই দেশের বন্ধুত্বের নিদর্শন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্প হিসেবে রামপাল পাওয়ার প্লান্টের সার্বিক কর্মকাণ্ড এগিয়ে চলছে। আশা করি খুব শিগগিরই বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিতের মাধ্যমে জাতির পিতার স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তুলতে বিদ্যুৎ বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়ার জন্য কাজ চলছে বলে জানান তিনি।

রামপাল উপজেলার রাজনগর ও গৌরম্ভা ইউনিয়নের সাপমারী-কৈগর্দ্দাশকাঠি মৌজায় বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ পাওয়ার কোম্পানির যৌথ উদ্যোগে ১৩২০ মেগাওয়াট মৈত্রী সুপার বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের কাজ করছে। ১৮৩৪ একর জমির ওপর এই প্রকল্পটি নির্মাণ হচ্ছে।

রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপ প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম বলেন, ডিসেম্বরেই আমাদের উৎপাদনে যাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু করোনা প্রাদুর্ভাবে ভারত থেকে নির্মাণ শ্রমিক আনা-নেওয়ায় জটিলতাসহ সমসাময়িক নানা প্রতিকূলতার কারণেই উৎপাদনে যাওয়া টার্গেট বিলম্ব হচ্ছে। তবে এখন আশা করছি আগামী মার্চ মাসের শেষের দিকে উৎপাদনে যেতে পারবো।

কৃষিতে সম্ভাবনাময় গাইবান্ধার চরাঞ্চল



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, গাইবান্ধা
মতবিনিময় সভা

মতবিনিময় সভা

  • Font increase
  • Font Decrease

গাইবান্ধার সাতটি উপজেলার ১৬৪টি চর হবে কৃষিতে অপার সম্ভাবনাময় এলাকা। চরাঞ্চলে যা চাষাবাদ করা হচ্ছে তাই ফলছে বলে মন্তব্য করেছে গাইবান্ধার নবাগত জেলা প্রশাসক মো. অলিউর রহমান।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা ও গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তিনি।

জেলা প্রশাসক বলেন, আমরা যারা প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বে রয়েছি, তারা জনগণের সেবক মাত্র। শিক্ষার ক্ষেত্রে যথেষ্ট অবকাঠামো রয়েছে। এখন প্রয়োজন অট্টালিকার ভেতরে জনবলকে প্রশিক্ষিত করে মানসম্মত শিক্ষাব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা। উপযুক্ত স্থান এবং কর্মপরিকল্পনাকে সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করাই সকলের দায়িত্ব ও কর্তব্য।

উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আল মারুফের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ রেজা সরকার ডাবলু, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আবুল ফাত্তাহ, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুজ্জামান, গণমাধ্যমকর্মী আব্দুল মান্নান আকন্দ, ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম, ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ, নাফিউল ইসলাম জিমি, রেজাউল আলম সরকার, আব্দুল জব্বার, এবিএম মিজানুর রহমান, সাংবাদিক মোশাররফ হোসেন বুলু প্রমুখ।

এর আগে, জেলা প্রশাসক তারাপুর ইউনিয়ন পরিষদ, পুটিমারি উচ্চ বিদ্যালয়, পুটিমারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তারাপুর তহশীল অফিস, তারাপুর ইউনিয়নের খোদ্দা ও লাঠশালা চরের গুচ্ছগ্রাম এবং আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শন করেন।

;

‘সেবা প্রার্থীরা যেন কোনভাবেই হয়রানির শিকার না হয়’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

  • Font increase
  • Font Decrease

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ পুলিশের উদ্দেশে বলেছেন, সেবা প্রার্থীরা যেন হয়রানির শিকার না হয়, সেদিকে পুলিশ কর্মীদের খেয়াল রাখতে হবে।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ‘পুলিশ সপ্তাহ ২০২২’ উপলক্ষে বঙ্গভবন থেকে ভার্চুয়ালি দেওয়া এক ভাষণে তিনি এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, সাধারণ মানুষ বিপদে পড়লে আইনি সেবা নিতে পুলিশের কাছে যায়। আপনারা তাদের সমস্যা এবং অভিযোগগুলি খুব মনোযোগ সহকারে শুনবেন এবং তাদের আন্তরিকভাবে আইনি সহায়তা দিতে দ্বিধা করবেন না।

তিনি বলেন, আপনি (পুলিশ) 'বন্ধু' হিসেবে জনগণের পাশে থাকবেন। মানবিক পুলিশ হোন এবং জনগণকে সেবা প্রদান করে এবং সত্যিকারের শক্তিতে পরিণত হওয়ার জন্য তাদের আস্থা অর্জন করে আপনার দায়িত্ব পালন করুন।

রাষ্ট্রপ্রধান মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশপ্রেম, সততা ও পরম নিষ্ঠার সাথে দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করার জন্য পুলিশ বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ পুলিশকে একটি আধুনিক ও উন্নত দেশের উপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার কাজ করছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, তথ্য প্রযুক্তির (আইটি) প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে পুলিশের সেবায় প্রবেশও সহজতর হয়েছে।

তিনি আশা প্রকাশ করেন, সময়োপযোগী পুলিশি সেবা প্রদানের জন্য ইতিমধ্যে নতুন ইউনিট গঠন করা হয়েছে। এর ফলে পুলিশের কার্যক্রম আরও গতিশীল হবে এবং জনগণ সহজেই ভালো পুলিশি সেবা পাবে। কমিউনিটি পুলিশিং এবং বিট পুলিশিংয়ে জনগণের আরও সম্পৃক্ততার ওপর জোর দিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, পুলিশের একার পক্ষে সমাজ থেকে অপরাধ দমন করা সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ পুলিশকে একটি 'জনবান্ধব পুলিশ ও মানবিক পুলিশ' হিসেবে গড়ে তুলতে আপনাদের আন্তরিক প্রচেষ্টা চালাতে হবে। বর্তমান সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে কাজ করছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি হামিদ বলেন, দেশ ইতিমধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে ব্যাপক অগ্রগতি লাভ করেছে।

তিনি আরও বলেন, গবেষণা, উদ্ভাবন এবং সর্বাধুনিক প্রযুক্তি গ্রহণের মাধ্যমে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় পুলিশকে এগিয়ে যেতে হবে।

রাষ্ট্রপ্রধান বলেন, বাংলাদেশ পুলিশকে নতুন গবেষণা ও উদ্ভাবনে সমৃদ্ধ হতে হবে। বাংলাদেশ পুলিশের জন্য একটি থিঙ্ক ট্যাঙ্ক থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

প্রযুক্তি বিকাশের ধারায় বর্তমান বিশ্বে অন্যান্য অপরাধের মধ্যে দেশীয়, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক এবং বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করে সাইবার ক্রাইম বৃদ্ধি পাচ্ছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, সাইবার অপরাধ মোকাবিলায় আমাদের পুলিশের সক্ষমতা বাড়াতে হবে এবং আধুনিক তথ্য প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ, প্রশিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে হবে।

ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশ সদস্যদের সর্বাধুনিক প্রযুক্তিতে সজ্জিত করতে হবে বলে জানান আবদুল হামিদ।

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অভিযান বাংলাদেশ পুলিশের অন্যতম বড় সাফল্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে, এর বিরুদ্ধে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে।

মাদকের অপব্যবহারকে একটি বড় সামাজিক ব্যাধি হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশের যুব সমাজের একটি অংশ পুলিশসহ বিভিন্ন সরকারি দফতরের কিছু অসাধু কর্মচারীর সহায়তায় মাদক সংক্রান্ত অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, এ ব্যাপারে পুলিশকে আরও সক্রিয় হতে হবে। এ ব্যাপারে 'জিরো টলারেন্স' নীতির বিবেচনা করতে হবে।

;

আমি যেন ন্যায় কাজের সঙ্গে থাকতে পারি: আইভী



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নারায়ণগঞ্জ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, আমি এখানে আসছি দোয়া চাওয়ার জন্য। আপনাদের সকলের কাছে দোয়া চাই। কিছু দিন আগেই নির্বাচন গিয়েছে। আপনারা সবাই দোয়া করেছেন বলেই আমি নির্বাচিত হয়েছি। আপনারা আমাকে ৫ বছরের জন্য সুযোগ দিয়েছেন। আমি যেন ঈমানের সহিত আমার দায়িত্ব পালন করতে পারি। আমি যেন জনগণের আমানত রক্ষা করতে পারি। ওলি-আউলিয়াদের দোয়ায় আমি যেন ন্যায় কাজের সঙ্গে থাকতে পারি, ন্যায় কাজ করতে পারি।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের জালকুড়ি এলাকার শফিউদ্দিন (পাখা) শাহ্ মাজারে ওরশে শরীক হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় মাজারে ফাতিহা পাঠ ও দোয়া মোনাজাতে অংশ নেন আইভী।

তিনি বলেন, মাজারে দাঁড়িয়ে বেশি কথা বলার দুঃসাহস আমার নেই। আমি ওলিদের ভক্তি করি, শ্রদ্ধা করি তাই এখনে এসেছি। আজকে ওরশ, তাই আমি ওরশে শরীক হওয়ার জন্য এখানে এসেছি। নির্বাচনের আগেও আমি এখানে এসেছি। এখানে একটা গেট করে দেয়ার কথা ছিল। নানান কারণে করা হয় নাই। দোয়া করবেন এবার যেন করে দিতে পারি। আপনাদের এখানে তেমন কোন কাজ নেই যা আছে আপনাদের নির্বাচিত কাউন্সিলর আছে। বাকি যে কাজ আছে সে করবে।

;

ম্যাগনিটো ডিজিটাল-এর পার্টনার হলো বিকাশ



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিকাশ-এর অফিসিয়াল ডিজিটাল এজেন্সি হিসেবে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ম্যাগনিটো ডিজিটাল লিমিটেড ঢাকা, দেশের শীর্ষস্থানীয় ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি ম্যাগনিটো ডিজিটাল লিমিটেড সম্প্রতি বিকাশ-এর সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

এখন থেকে বিকাশ-এর যাবতীয় ডিজিটাল ও সোশ্যাল মিডিয়া কমিউনিকেশনের দেখাশোনা করবে এই ডিজিটাল এজেন্সি। বিগত কয়েক বছর ধরে দেশের স্বনামধন্য ব্র্যান্ডগুলোর জন্য দ্রুততম এবং ভার্সাটাইল ক্রিয়েটিভ কনটেন্ট তৈরি করার মাধ্যমে ম্যাগনিটো ডিজিটাল সুনাম অর্জন করেছে। ব্র্যান্ডের সুনাম গড়ে তোলা এবং ধরে রাখার জন্য সকলেরই ভরসার প্রতীকে পরিণত হয়েছে তারা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের লাইসেন্স এবং অনুমোদনপ্রাপ্ত আর্থিক সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হলো বিকাশ। বাংলাদেশের ব্যাংক একাউন্ট না থাকা মানুষদেরকে সবচেয়ে দ্রুত ও নিরাপদে মোবাইলের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করার ব্যবস্থা করে দিয়েছে এই প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে তারা বিশ্বের অন্যতম প্রধান আর্থিক সেবা প্রদানকারী হিসেবে কাজ করছে। এই যৌথ পথচলা আগামী দিনে অসংখ্য অভিনব কাজ উপহার দিবে, এটাই প্রত্যাশা।

এসবের পাশাপাশি, বিগত কয়েক বছর ধরে ম্যাগনিটো ডিজিটাল লিমিটেড গ্রামীণফোন, হিরো বাংলাদশ ও ফ্রেশ-এর মতো শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ডের সাথেও কাজ করছে।

;