বন্ধে অনলাইনে ক্লাস নেওয়াসহ মাউশির ১১ নির্দেশনা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ফের ঊর্ধ্বমুখী হওয়ায় দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুই সপ্তাহের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে অনলাইনে ক্লাস নেওয়াসহ ১১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) শিক্ষক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্যে ১১ দফা নির্দেশনা জারি করা হয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের আওতাধীন স্কুল ও কলেজের সামগ্রিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এমন আদেশ দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশের সূত্র উল্লেখ করে বলা হয়, উপযুক্ত বিষয় ও সূত্রের পরিপ্রেক্ষিতে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের আওতাধীন স্কুল ও কলেজ কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অবহিত করা যাচ্ছে যে, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধকল্পে নিম্নরূপ নির্দেশনাসমূহ যথাযথভাবে মেনে সামগ্রিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।

নির্দেশনাগুলো হল-

>> আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সশরীরে শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।
>> এ সময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ বাস্তবতার ভিত্তিতে অনলাইন/ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে শিখন-শেখানা কার্যক্রম অব্যাহত রাখবে।
>> যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনা টিকাদান কার্যক্রম চলমান থাকবে।
>> শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধকালীন শ্রেণিকক্ষ, গ্রন্থাগার, গবেষণাগারসহ প্রতিষ্ঠানের সব বিদ্যুৎ, টেলিফোন, ইন্টারনেট পানি এবং গ্যাস-সংযোগ নিরবচ্ছিন্ন ও নিরাপদ রাখতে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।
>> শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সব সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণ ও সামগ্রিক নিরাপত্তার বিষয়টির প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে,
>> শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান প্রতিষ্ঠানের জরুরি প্রয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষক ও কর্মচারীদের দায়িত্বে নিয়োজিত রাখতে পারবেন।
>> যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রবাস/ছাত্রীনিবাসে বৈধ আবাসিক শিক্ষার্থীরা অবস্থান করছে তাদের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ছাত্রাবাস/ছাত্রীনিবাসগুলো খোলা থাকবে। তবে, সবাইকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।
>> অধিদপ্তরের অধীন সব দপ্তর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত সব কর্মকর্তা, শিক্ষক ও কর্মচারীর অবশ্যই টিকা সনদ নিতে হবে।
>> শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কার্যালয় যথারীতি চালু থাকবে, সেখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালিত হবে।
>> স্কুল, মাদরাসা ও কারিগরি ক্রীড়া সমিতির আয়োজনে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে চলমান ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পরবর্তী নির্দেশনা দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে।
>> শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে হবে।

বাংলাদেশ তার শক্তিশালী অবস্থান প্রমাণ করেছে: রাশিয়া



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার মান্টিটস্কি বলেছেন, ইউক্রেন ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপ থাকা সত্ত্বেও শক্তিশালী জাতীয় এজেন্ডাসহ একটি স্বাধীন চিন্তাশীল রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ তার অবস্থান প্রমাণ করেছে।

মস্কো স্টেট ইনস্টিটিউট অফ ইন্টারন্যাশনাল রিলেশনের সম্মেলনে ‘রাশিয়া-বাংলাদেশ: কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর’ উপলক্ষে এসব কথা বলেন তিনি।

সোমবার (২৩ মে) ঢাকায় রাশিয়ার দূতাবাস এক বার্তায় এ তথ্য জানায়।

ইউক্রেন ইস্যুতে নিরপেক্ষ ও স্বাধীন বাংলাদেশের ভূমিকায় বাংলাদেশের প্রতি রাশিয়া কৃতজ্ঞতার বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার মান্টিটস্কি। ‘সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়।’ বাংলাদেশের পররাষ্ট্র নীতিকেও উল্লেখ করেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ঢাকার ধারাবাহিকতা এবং মস্কোর সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের প্রতিশ্রুতির প্রশংসা করি।

এর আগে জাতিসংঘে রাশিয়ার বিরুদ্ধে প্রস্তাবে চাপ থাকার পরও বাংলাদেশ নিরপেক্ষতা বজায় রাখায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার মান্টিটস্কি।

সে সময় তিনি বলেছেন, জাতিসংঘের জরুরি অধিবেশনে ভোটাভুটির আগে বাইরের প্রবল চাপ সত্ত্বেও বাংলাদেশ নিরপেক্ষতা বজায় রাখায় আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। ২ মার্চ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের জরুরি অধিবেশনে রাশিয়ার বিরুদ্ধে একটি প্রস্তাব উত্থাপিত হয়। সেখানে ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের এ অবস্থানের বিষয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশ দায়িত্বশীল ও ভারসাম্যপূর্ণ আচরণ করেছে। রাশিয়া এটির প্রশংসা করে।

ওয়াশিংটনের নিষেধাজ্ঞা শুধু রাশিয়া একার জন্য নয় উল্লেখ করে মান্টিটস্কি বলেন, বাংলাদেশসহ দেশটির মিত্রদের জন্যও হুমকি তৈরি করেছে। এ পরিস্থিতি সামাল দিয়ে নির্বিঘ্নে মহামাত্রিক সহযোগিতা এগিয়ে নিতে ঢাকা ও মস্কোর মধ্যে আলোচনা হচ্ছে।

;

টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় কলেজছাত্রের মৃত্যু



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ইয়াছির হোসেন কানন নামের এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। এঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একজন।

সোমবার (২৩ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর বাইপাসের আন্ডারপাসের উপরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ইয়াছির হোসেন কানন টাঙ্গাইল সদরের হাজী আবুল হোসেন ইনস্টিটিউশন অব টেকনোলজির ছাত্র।

সে সদরের বাওয়ার কুমারজানী গ্রামের আমির হোসেন ছেলে। আহত শহীদুল একই এলাকার আবু বক্কর সিদ্দিকীর ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, কানন ও শহীদুল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে বাসা থেকে মাত্র দেড়শ গজ দূরে মির্জাপুর বাইপাসের আন্ডারপাসে পৌছায়। এ সময় টাঙ্গাইলগামী দ্রুতগতির একটি ট্রাক তাদের মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই চালক ইয়াছির হোসেন কানন মারা যান। এ ঘটনায় শহীদুল গুরুতর আহত হয়। পরে পুলিশ আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মির্জাপুর গোড়াই হাইওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিল্লাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ট্রাকটি আটক করা হয়েছে। নিহতদের মরদেহ আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

;

রেলে যুক্ত হচ্ছে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অসুস্থ রোগীদের সেবা নিশ্চিত করার জন্য সড়ক ও আকাশ পথের পর এবার রেলপথে নতুন সংযোজন হচ্ছে রেল অ্যাম্বুলেন্স। বাংলাদেশ রেলওয়ে এবং স্কায়ার হাসপাতাল যৌথভাবে প্রাথমিকভাবে রেলের একটি মিটারগেজ কোচে এ অ্যাম্বুলেন্স চালু করবে বলে জানাগেছে।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, বর্তমানে কোচ মডিফিকেশনের কাজ চলছে। রেল অ্যাম্বুলেন্সে থাকবেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, অত্যাধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার পাশাপাশি আইসিইউ সুবিধা। চট্টগ্রামের পাহাড়তলিতে রেলওয়ের কারখানায় কোচ মডিফিকেশন কার্যক্রম চলছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, স্কয়ার হাসপাতাল যে নকশা প্রস্তাব করেছে সেখানে তিনটি আইসিইউ, ইমার্জেন্সি ট্রিটমেন্ট ইউনিট, সংশ্লিষ্ট ইক্যুইপমেন্ট ইউনিট, চিকিৎসকদের চেম্বারসহ স্বয়ং সম্পূর্ণ ব্যবস্থা রাখা হবে এ অ্যাম্বুলেন্সে। বাংলাদেশ রেলওয়ে বহরে প্রথমবারের মতো যুক্ত হওয়া এই অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবায় একজন মুমূর্ষু রোগী আইসিইউ এর সকল সুবিধা পাবেন।

বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (আরএস) মঞ্জুর-উল-আলম চৌধুরী জানান, বিশ্বের অনেক দেশেই এই ব্যবস্থা রয়েছে। পাশের দেশ ভারতে মেডিকেল ট্রেন আছে, যেখানে অপারেশন থিয়েটারও রয়েছে। এবার বাংলাদেশ রেলওয়ে এমন একটি উদ্যোগ নিয়েছে।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা মিটারগেজ একটি কোচে হাসপাতাল কাম অ্যাম্বুলেন্স করার উদ্যোগ নিয়েছি। এটি যদি সাকসেসফুল হয় তাহলে মেডিকেল কোচ করব আমরা।

তিনি আরও বলেন, এটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্সের মতো, অসুস্থ হওয়ার পর দ্রুত চিকিৎসার জন্য যেভাবে রোগীকে পরিবহন করা হয়, ঠিক সেভাবেই রেল অ্যাম্বুলেন্স এ সেবা দেবে। এয়ার অ্যাম্বুলেন্সের মতো আমরাও ননস্টপ ট্রেনে করে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে পারব। কোচটিতে বেড থাকবে, আইসিউ থাকবে, চিকিৎসক থাকবে। যে কেউ রেল অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া নিতে পারবেন।

;

মানবপাচারের ঘটনায় মাদারীপুরে নিখোঁজ দুই যুবক, গ্রেফতার ১



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মাদারীপুর
মানবপাচারের ঘটনায় মাদারীপুরে নিখোঁজ দুই যুবক

মানবপাচারের ঘটনায় মাদারীপুরে নিখোঁজ দুই যুবক

  • Font increase
  • Font Decrease

মাদারীপুরে পাচারের ঘটনায় নিখোঁজ দুই যুবকের সন্ধান মেলেনি দুই মাসেও। এই ঘটনায় মামলা হলে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মামলার নথি ও স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর শহরের পাকদী এলাকার মশিউর রহমান মিলন ও মোহাম্মদ হোসেনকে গ্রিস পাঠানোর কথা বলে তার পরিবারের কাছ থেকে কয়েক দফায় ৩৬ লাখ টাকা নেয় লিয়াকত সরদার ও বোরহান মোল্লা নামে মানবপাচারকারী একটি সিন্ডিকেট। পরে তাদের গত ২৭ ফেব্রুয়ারি গ্রিসের উদ্দেশ্যে তুরস্কে পাঠায়। এরপর থেকেই পরিবারের সঙ্গে সবধরণের যোগাযোগ বন্ধ মশিউর রহমান মিলন ও মোহাম্মদ হোসেনের। পরে দালাল লিয়াকত সরদার ও বোরহান মোল্লার সাথে যোগাযোগ করলে তারা ভয়ভীতি দেখিয়ে কয়েক দফায় ৩৬ লাখ টাকা নেয়। কিন্তু মশিউর রহমান মিলন ও মোহাম্মদ হোসেনের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এতে বাধ্য হয়ে গত ১৭ মে মাদারীপুর মানবপাচার অপরাধ দমন ট্রাইবুনালে ৫ জনকে আসামি করে একটি মামলা করে নিখোঁজ মশিউর রহমান মিলনের ভাই অনিক মিয়া। সেই মামলায় রোববার রাতে দালাল বোরহান মোল্লাকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত বোরহান মাদারীপুর সদর উপজেলার সাবেক গোবিন্দপুর গ্রামের চান মিয়া মোল্লার ছেলে। তাকে সোমবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিখোঁজ মশিউর রহমান মিলনের ভাই অনিক বলেন, আমার আপন ভাই ও খালাতো ভাইকে গ্রিস পাঠানোর কথা বলে প্রথমে টাকা নেয়। পরে তুরস্ক পাঠিয়ে তাদের নির্যাতন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে কয়েক দফায় ৩৬ লাখক্ষ টাকা নিয়েছে। আমাদের এখন ভিটাবাড়ি ছাড়া কিছুই নেই। এখনও আমার ভাই ও খালাতো ভাইয়ের কোন সন্ধান নাই। কোথায় আছে, জানি না। আমরা ভাইদের সন্ধান চাই ।

এ ব্যাপারে মাদারীপুর সদর থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. মামুন মিয়া বলেন, মানবপাচারের ঘটনায় কোর্টে একটি মামলা হয়েছে। সেই মামলার প্রাথমিক তদন্তে মানবপাচারের সত্যতা পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় অভিযান চালিয়ে বোরহান নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

;