টেকনাফে এনজিওকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় আল্টিমেটাম



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কক্সবাজার
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

টেকনাফে এনজিও সংস্থা কোস্ট ফাউন্ডেশনের দুই নারী কর্মীসহ ছয় জনের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে কক্সবাজারে কর্মরত প্রায় ৬০টি স্থানীয় ও জাতীয় এনজিওর নেটওয়ার্ক কক্সবাজার সিএসও এনজিও ফোরাম (সিসিএনএফ)। ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করার পাশাপাশি আগামী সাতদিনের মধ্যে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নে সিসিএনএফভুক্ত কোন এনজিও তাদের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে না বলে আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

পাশাপাশি অন্যান্য সকল স্থানীয়, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক এনজিওসমূহকে এই সিদ্ধান্তের প্রতি সংহতি জানানোর আহ্বান করে সিসিএনএফ।

শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব সিদ্ধান্তের কথা জানান সিসিএনএফ।

সিসিএনএফ’র কো-চেয়ারম্যান ও পালস’র নির্বাহী পরিচালক আবু মুর্শেদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে মূল ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরেন সদস্য সচিব জাহাঙ্গীর আলম। এতে আরও বক্তৃতা করেন ইপসার নির্বাহী পরিচালক মো. আরিফুর রহমান, হামলার শিকার দুই নারী কোস্ট ফাউন্ডেশনের যুগ্ম পরিচালক ফেরদৌস আরা রুমী ও একই সংস্থার প্রকল্প ব্যবস্থাপক তাহরিমা আফরোজ টুম্পা। এতে সমাপনী বক্তৃতা করেন কোস্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম চৌধুরী।

কোস্ট ফাউন্ডেশনের যুগ্ম পরিচালক ফেরদৌস আরা রুমী বলেন, আমাদের কাছে মনে হয়েছে একজন জনপ্রতিনিধি হয়েও দরিদ্র নারীদের জন্য নারী কর্মীদের কাজ করাকে সেই ইউপি সদস্য মানতে পারেন নি। এই ঘটনা কক্সবাজারে কর্মরত শত শত নারী কর্মীর জন্য ভীষণ একটি হুমকি। তাহরিমা আফরোজ টুম্পা বলেন, নারীদের উপর এই আক্রমণের এই ধরণ কল্পনাতীত ভাবে ন্যাক্কারজনক, আমি এর বিচার চাই।

ইপসার নির্বাহী পরিচালক মো. আরিফুর রহমান, আমরা এই ঘটনার দ্রুত আইনী প্রতিকার চাই। আমার মনে হয়, রোহিঙ্গা কর্মসূচির অংশ হিসেবে টেকনাফ-উখিয়ার সাধারণ মানুষের জন্য সরকারের উন্নয়নমূলক কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করতে এটি পরিকল্পিত হামলা। কারণ এনজিওরা সরকারের সহযোগী হিসেবেই দরিদ্র মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

আবু মুর্শেদ চৌধুরী বলেন, কক্সবাজারে শত শত এনজিও কর্মী দিন রাত পরিশ্রম করে মানুষকে নানা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। তাদের উপর এই ধরনের ন্যাক্কারজনক হামলা অনভিপ্রেত। এটি কোনও একটি মাত্র এনজিওর কর্মীদের উপর হামলা নয়, পুরো এনজিও সেক্টরের উপর হামলা। আমরা প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ঠ বিচার দাবি করি। আগামী সাতদিনের মধ্যে এ বিষয়ে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া না হলে সিসিএনএফ’র সকল সদস্য সংস্থা হ্নীলা ইউনিয়ন থেকে তাদের কার্যক্রম প্রত্যাহার করে নেবে।

রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, এনজিও ও সুশীল সমাজের কর্মীরা মানুষের দারিদ্র বিমোচন, আয় বৃদ্ধি, পিছিয়ে পড়া এলাকায় শিক্ষা সম্প্রসারণ, নারীর উন্নয়নে কাজ করে। তাদের উপর হামলা করেছে তারাই যারা মানুষের উন্নয়ন চায় না, যারা নারীর উন্নয়ন চায় না, যারা শিক্ষার বিস্তার চায় না। তারা চায় না মানুষ সচেতন হোক। কারণ, মানুষ শিক্ষিত হলে, মানুষ সচেতন হলে সেই গোষ্ঠীটির অন্যায়-অবৈধ কার্যক্রমের জন্য সেটা হুমকি হয়ে যায়। কোস্ট কর্মীদের উপর হামলার দৃষ্টান্তমূলক বিচার নিশ্চিত করা না গেলে, শত শত নারী কর্মী মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগবে আর এতে রোহিঙ্গা কর্মসূচিসহ সকল উন্নয়ন কর্মসূচি হুমকির মুখে পড়তে পারে।

উল্লেখ্য, ২ ফেব্রুয়ারি টেকনাফের হৃীলার জেলে পাড়ায় এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা মারধর ও লাঞ্চিত করেছেন কোস্ট নামের এনজিওর ছয়জন কর্মীকে। কোস্ট দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকার সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জন্য বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে আসছে। একটি প্রকল্পের উপকারভোগীদের সঙ্গে মতামত সংগ্রহের লক্ষ্যে একটি উঠান বৈঠক করার সময় হ্নীলা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের সদস্য রেজাউল করিমের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালায় হয়। উঠান বৈঠক চলাকালে এনজিও কর্মীদেরকে আকষ্মিক অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও এলাকা থেকে চলে যেতে বলেন। তাকে কাজের ব্যাপারে বোঝানোর চেষ্টা করলেও তিনি তাতে কর্ণপাত না করে এনজিও কর্মীদের উপর হামলা করেন। এক পর্যায়ে সবাইকে এলোপাথারি কিল ঘুষি ও লাথি মারে সন্ত্রাসীরা। তাদের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী লোকজন এসে উদ্ধার করে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে আশ্রয় দেয়। এনজিও সংস্থার আহত কর্মীরা টেকনাফ থানায় মামলা করেন।

‘টিভি চ্যানেলে একসঙ্গে একাধিক বিদেশি সিরিয়াল দেখানো যাবে না’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের কোনো টিভি চ্যানেল একসঙ্গে একাধিক বিদেশি সিরিয়াল সম্প্রচার করতে পারবে না। দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও কৃষ্টি রক্ষায় এ সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয় থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার (২ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর বাংলা একাডেমিতে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার-বিজেসির তৃতীয় সম্প্রচার সম্মেলনে অনলাইনে একথা জানান তিনি।

ঢাকা প্রান্তে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তথ্য ও সম্প্রচার সচিব মো. মকবুল হোসেন বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন।

সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, গণমাধ্যম দেশের অন্যতম পথপ্রদর্শক, যা কোনোভাবেই মালিকপক্ষের স্বার্থরক্ষায় ব্যবহৃত হওয়া উচিত নয়। একইসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যমকর্মী আইনের পরিবর্তন-পরিবর্ধনে সাংবাদিকদের সঙ্গে সরকার একমত এবং সাংবাদিকদের শীর্ষ সংগঠনের লিখিত প্রস্তাবনার অপেক্ষায় রয়েছে। সুতরাং এ নিয়ে বিতর্কের কোনো অবকাশ নেই।

হাছান মাহমুদ এ সময় দেশের গণমাধ্যমকে সমৃদ্ধতর করতে বিজেসির ভূমিকা জোরদারে গুরুত্ব দেন।

বিজেসির অন্যতম ট্রাস্টি সৈয়দ ইশতিয়াক রেজার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে আলোচনা করেন বিজেসি সভাপতি রেজওয়ানুল হক রাজা, সদস্য সচিব শাকিল আহমেদ, পরিচালকদের মধ্যে রাশেদ আহমেদ, নূর উস-সাফা জুলহাজ, বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক, সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, ডিইউজে সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী, ডিআরইউ সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু প্রমুখ।

 

;

অসহায় বন্যার্তদের পাশে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
অসহায় বন্যার্তদের পাশে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন

অসহায় বন্যার্তদের পাশে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন

  • Font increase
  • Font Decrease

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেটের গোইয়াইনঘাট ফতেপুর ইউনিয়নের দারিদ্র পীড়িত বাগবাড়ি এলাকার রামনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশেপাশের গ্রাম থেকে আগত শত শত  অসহায় মানুষের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছে এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন ।

শনিবার বেলা ৩টায় স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় ৪ শতাধিক বন্যার্ত প্রতিটি পরিবার এর হাতে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি মুসুরি ডাল, ১ কেজি চিড়া, ১ কেজি গুড়, ১ কেজি লবন, ১ লিটার সয়াবিন, ৩১২ গ্রাম বক্স ডানো গুড়া দুধ, ২০ টা ওরাল স্যালাইন, ৫০টা পানি পরিষ্কারক ট্যাবলেট, ১ টা সেভলন সাবান তুলে দেওয়া হয় এবং আগামীকাল গোয়াইনঘাটের রুস্তমপুরে ৬ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে ।

এ সময় বক্তারা বলেন,  বন্যাদূর্যোগে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সাধারন নিম্ন আয়ের মানুষগুলোর জীবন । ঘরে পানি, বাহিরে পানি, আয় রোজগার বন্ধ, ঘরে খাবার নাই, শিশু সন্তান, ছেলেমেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে খুব কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করছে এবং সাহায্যের আশায় বিত্তশালীদের দিকে অসহায় তাকিয়ে অপেক্ষার প্রহর গুনছেন তারা।  পাশাপাশি বন্যার পানি এখনও  না নামায় তাদের জীবনে নাভিশ্বাস অবস্থা বিরাজ করছে। বিপর্যস্ত এই স্বল্প আয়ের দৈন্যপ্রবণ মানুষগুলোর জন্য কিছুটা স্বস্তি দিতে খাদ্য সামগ্রী প্রদান   করায় এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন কে  ধন্যবাদ জানিয়েছে বক্তারা। 

আয়োজকরা এই ধরনের জনহিতকর কাজ চালিয়ে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন এবং সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান । 

খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এক্স নটরডেমিয়ান্স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের সহ সভাপতি ডা. দলিলুর রহমান, মহাসচিব ডা. মতিয়ার হোসেন, ট্রেজারার আসিফুর রহমান, নির্বাহী সদস্য আখলাক আহমেদ রিয়াদ, সিলেট জালালাবাদ পঙ্গু হাসপাতালের কনসালটেন্ট ডা. সাইদুর রহমান, ফতেপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম মাস্টার, বিট অফিসার সাব ইন্সপেক্টর অজয় শংকর, ইউ পি সদস্য ফখর উদ্দিন প্রমুখ।

;

দ.আফ্রিকায় ম্যালেরিয়ায় প্রবাসীর মৃত্যু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
দ.আফ্রিকায় ম্যালেরিয়ায় প্রবাসীর মৃত্যু

দ.আফ্রিকায় ম্যালেরিয়ায় প্রবাসীর মৃত্যু

  • Font increase
  • Font Decrease

দক্ষিণ আফ্রিকায় ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে এক নোয়াখালী প্রবাসী যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

মৃত হাবিবুর রহমান তপু সোনাইমুড়ীর নাটেশ্বর ইউনিয়নের ঘোষকামতা গ্রামের ফতেহপুর ভুঁইয়া বাড়ির মো. আনার উল্লাহর ছেলে।

শুক্রবার (১ জুলাই) সেখানের স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তপুর বড় ভাই মো. আলাউদ্দিন মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গত ৩ জুন বাংলাদেশ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে রওনা হয় তপু। দক্ষিণ আফ্রিকা পৌঁছে দেওয়ার জন্য সেখানে অবস্থানরত তপুর ভগ্নিপতি মো. সোহেল এক দালালের সঙ্গে চুক্তি করেন। চুক্তি অনুযায়ী দালাল তপুকে আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিক ও লেসেথুর বিভিন্ন বন-জঙ্গলের ভেতর দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় পৌঁছায়। যাওয়ার পথে মশার কামড়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে সে। আফ্রিকা পৌঁছানোর দুদিনের মাথায় জ্বর আসে তার। সেখানে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলে তার ম্যালেরিয়া হয়েছে বলে চিকিৎসক তাকে নিশ্চিত করে। সবশেষ ৩০ জুন ম্যালেরিয়া জ্বর ও বমি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে ১ জুলাই সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। তার লাশ দেশে আনার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

;

মোংলায় চিংড়ি ঘেরে গ্যাসের উদগীরণ, সংযোগ লাগিয়ে রান্নাবান্না



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বাগেরহাট
মোংলায় চিংড়ি ঘেরে গ্যাসের উদগীরণ, সংযোগ লাগিয়ে রান্নাবান্না

মোংলায় চিংড়ি ঘেরে গ্যাসের উদগীরণ, সংযোগ লাগিয়ে রান্নাবান্না

  • Font increase
  • Font Decrease

 

মোংলায় একটি চিংড়ি ঘের থেকে সপ্তাহখানেক ধরে এক ধরণের গ্যাসের প্রচন্ড উদগীরণ হচ্ছে। ঘেরটির বিভিন্ন জায়গা থেকে পানির ঊর্ধ্বমুখী গ্যাসের এ উদগীরণ দেখতে প্রতিদিন বহু লোকজন সেখানে ভিড় জমাচ্ছেন। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে আনন্দ ও কৌতুল থাকলেও রয়েছে দুর্ঘটনার ভীতিও। এদিকে ঘের মালিক সেই গ্যাস দিয়ে কয়েকদিন ধরে রান্নাবান্নার কাজও করছেন।

উপজেলার মিঠাখালী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মিঠাখালীর পূর্বপাড়া এলাকার বাসিন্দা দেলোয়ার শেখের (৩৫) পৌনে তিন বিঘার চিংড়ি ঘেরের মাটির নিচ থেকে এ প্রাকৃতিক গ্যাসের উদগীরণ ঘটছে। গত সপ্তাহখানেক ধরে গ্যাসের উদগীরণ ক্রমেই বাড়ছে। ঘেরটিট ৪টি জায়গা থেকে প্রতিনিয়ত উঠছে এ গ্যাস। যদিও এ গ্যাস উদগীরণ হয়ে আসছে প্রায় ৬ বছর ধরে। তখন মুলত ঝই-ঝামেলা এড়িয়ে থাকার জন্যই বাড়ীর প্রকৃত মালিক হাজী আলতাফ শেখ বিষয়টি গোপন রাখেন। কিন্ত বছর দুই আগে মারা যান তিনি। এরপর পূর্বের ধারাবাহিকতায় গত এক সপ্তাহ ধরে সেই গ্যাসের উদগীরণ বেড়ে গেলে তার সেজো ছেলে দেলোয়ার শেখ (৩৫) তা কাজে লাগানোর উদ্যোগ নেন। উদগীরণস্থল থেকে পাইপলাইনের মাধ্যমে সেই গ্যাস দিয়ে গত তিনদিন ধরে রান্নাবান্নার কাজ করছেন দেলোয়ারের পরিবার।

দেলোয়ার বলেন, ঘেরের জমিতে ৬ বছর আগে মাটি উত্তোলনের জন্য মিনি ড্রেজারের পাইপ বসাতে গিয়েছিলাম। তখনই সেখান থেকে হঠাৎ প্রচুর গ্যাস বের হতে শুরু করে। সেই সময়ে সেই গ্যাসের প্রচন্ড চাপ ছিলো। পাইপের মাটি, পানি ও বালি প্রচন্ত বেগে ও বিকট শব্দে গুলির মত বের হতে থাকে। ভয়ে আমরা তখন মাটির ৬০ ফুট গভীরে ঢুকানো পাইপ তুলে ফেলি। তারপর থেকে এভাবে গ্যাস উঠতে থাকে। কিন্তু সপ্তাহখানেক ধরে বেশি বের হতে থাকে। এরপর এ গ্যাস কাজে লাগানোর জন্য বাজারের মোবাইল দোকানদার বাদশা মোড়লকে দিয়ে ড্রাম ও পাইপ দিয়ে গ্যাসের লাইন টেনে চুলায় রান্নার কাজ করছি।


দেলোয়ারের স্ত্রী সুফিয়া খাতুন মিম বলেন, তিনদিন ধরে এই গ্যাস দিয়ে চুলায় রান্নাবান্না করছি। সিলিন্ডার গ্যাসের যেমন প্রেসার এ গ্যাসেও চুলায় প্রায় একই রকম প্রেসার। এ গ্যাস দিয়ে গত বৃহস্পতিবার থেকে ভাত, মাছ, ডাল ও সবজি রান্না করছি। বহু লোকজন প্রতিদিন দেখতে আসছে এ গ্যাস দিয়ে তাদেরকে চা খাওয়াচ্ছি।

মিঠাখালী বাজারের মোবাইল সার্ভিসিংয়ের দোকান তান্ত্রিক টেলিকমের মালিক মোঃ বাদশা মোড়ল (৩৩) বলেন, দেলোয়ার এসে আমাকে তার ঘের থেকে গ্যাস উঠার কথা জানিয়ে কিভাবে এর ব্যবহার করা যায় তার ব্যবস্থার জন্য বলেন। পরে আমি গত সোমবার তার ঘেরের মধ্যে প্লাস্টিকের ৫০ লিটারের একটি ড্রাম বসিয়ে ও ১ ইঞ্চির পাইপ লাগিয়ে চুলায় সংযোগের ব্যবস্থা করে দিই। এর আগে পাইপের মুখে দিয়াশলাই দিয়ে দেখি আগুন জ্বলে কিনা। দিয়াশলাই দিতেই তাতে আগুন জ্বলে। সেই সংযোগ দিয়ে বৃহস্পতিবার থেকে তার ঘরে পুরো রান্নার কাজ চলছে।

তেল, গ্যাস, খনিজসম্পদ, বিদ্যৎ ও বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির মোংলার আহবায়ক মোঃ নুর আলম শেখ বলেন, মাটির নীচের প্রাকৃতিক সম্পদের মালিক জনগণ। জনগণের গ্যাস সম্পদ উত্তোলন-সংরক্ষণ ও বিতরণ করে দেশের সমৃদ্ধি এবং উন্নয়নের কাজে লাগাতে হবে। বাগেরহাট জেলার মোংলা উপজেলার মিঠাখালী গ্রামের দেলোয়ারের চিংড়ি ঘের থেকে তীব্র বেগে গ্যাসের উদগীরণ হচ্ছে। স্থানীয় মানুষ লোকায়ত জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে পাইপ দিয়ে গ্যাসের চুলার সাথে সংযোগ ঘটিয়ে রান্নাবান্না করছে। সরকারেরর কাছে গ্যাস অনুসন্ধানের দেশীয় প্রতিষ্ঠান বাপেক্স'র মাধ্যমে প্রয়োজনীয়পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর করণীয় প্রদান করে এলাকার মানুষের উদ্বেগ-উৎকন্ঠার অবসান ঘটানোর দাবী জানাচ্ছি।

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণ করে বিষয়টি বাপেক্স'কে জানানো হবে। তারা কিংবা তাদের প্রতিনিধিরা এসে গবেষণা করেই পরবর্তী ব্যবস্থা নিবেন।

;