‘ঐক্য ও অগ্রগতির ২৭ বছর’ ডিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
‘ঐক্য ও অগ্রগতির ২৭ বছর’ ডিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

‘ঐক্য ও অগ্রগতির ২৭ বছর’ ডিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

  • Font increase
  • Font Decrease

 ‘ঐক্য ও অগ্রগতির ২৭ বছর’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে পালিত হয়েছে রাজধানীতে কর্মরত পেশাদার রিপোর্টারদের সবচেয়ে বড় সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) ডিআরইউ প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধন করেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, এমপি। সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিবের সঞ্চালনায় এ সময় সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করেন ডিআরইউ সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু।

ডিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এ বছর ব্যতিক্রমী আয়োজন ছিল বীর মুক্তিযোদ্ধা সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়া। সরকারের সমন্বিত তালিকা অনুযায়ী ১৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডিআরইউ সদস্যের হাতে সম্মাননা স্মারক ও উত্তরীয় তুলে দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক, এমপি।


সংবর্ধনা প্রাপ্তরা হলেন- বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃণাল কৃষ্ণ রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহম্মদ শফিকুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবীব, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাক আহমেদ মোবারকী, বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল বাশার চপল, বীর মুক্তিযোদ্ধা কার্তিক চ্যাটার্জী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আকরাম হোসেন খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন দাশ গুপ্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান সরদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা তালুকদার হারুন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শংকর কুমার দে ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হালিম আজাদ।

নসরুল হামিদ মিলনায়তনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সাংবাদিকরা দেশে-বিদেশে বিশ্ব জনমত গড়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। জাতি এ বীরদের আজীবন স্মরণ করবে। যারা কলম সৈনিক, তারাও মুক্তিযোদ্ধা। যারা চরমপত্র লিখেছেন, তারাও মুক্তিযোদ্ধা। কারণ মুক্তিযোদ্ধা শুধু একদিক থেকে নয়, সার্বিক দিক থেকে সবকিছু মিলিয়েই মুক্তিযোদ্ধা।

সংবর্ধনা পাওয়ার অনুভূতি জানিয়ে এবং স্মৃতিচারণ করে বীর মুক্তিযোদ্ধারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশে-বিদেশে যে সাংবাদিকতা হয়েছিল সে সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে, দালিলিকভাবে ইতিহাস সংরক্ষণ করতে হবে। গণমাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধাদের যারা জীবিত আছেন তাদের মূল্যায়ন করতে হবে। প্রজন্মের পর প্রজন্মে মুক্তিযোদ্ধাদের গৌরব প্রবাহিত হবে বলেও এ সময় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বীর মুক্তিযোদ্ধারা।


ডিআরইউ সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিবের সঞ্চালনায় সভাপতির বক্তব্যে নজরুল ইসলাম মিঠু বলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা ছিল উল্লেখযোগ্য। তাদের মধ্যে অনেকেই সামনের সারিতে থেকে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে জীবন বাজি রেখে ছিলেন। তাদের সম্মান করতে পেরে আমরা গর্বিত।

২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও ডিআরইউ’র সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কাফি এবং প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও ডিআরইউ’র প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কামাল উদ্দিন সুমন মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন।

দিনব্যাপী আয়োজনে ডিআরইউ কার্যনির্বাহী কমিটির যুগ্ম সম্পাদক শাহনাজ শারমীন, অর্থ সম্পাদক এস এম এ কালাম, দপ্তর সম্পাদক রফিক রাফি, নারী বিষয়ক সম্পাদক তাপসী রাবেয়া আঁখি, তথ্য প্রযুক্তি ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক কামাল মোশারেফ, ক্রীড়া সম্পাদক মাকসুদা লিসা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক নাদিয়া শারমিন, আপ্যায়ন সম্পাদক মুহাম্মাদ আখতারুজ্জামান ও কল্যাণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবলু, কার্যনির্বাহী সদস্য হাসান জাবেদ, মাহমুদুল হাসান, সোলাইমান সালমান, সুশান্ত কুমার সাহা, মো: আল-আমিন, এসকে রেজা পারভেজ এবং মো: তানভীর আহমেদসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া সাবেক সভাপতি শাহজাহান সরদার, এম শফিকুল করিম, সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, সাইফুল ইসলাম, ইলিয়াস হোসেন, রফিকুল ইসলাম আজাদ ও মুরসালিন নোমানী এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু, রাজু আহমেদ, সৈয়দ শুকুর আলী শুভ ও কবির আহমেদ খান উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ঘোড়ার গাড়ি ও বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালিটি ডিআরইউ চত্বর থেকে বের হয়ে বারডেম হাসপাতাল (মহিলা ও শিশু) ও শিল্পকলা একডেমি মোড় ঘুরে ডিআরইউ চত্বরে এসে শেষ হয়।

র‌্যালি শেষে ডিআরইউ নসরুল হামিদ মিলনায়তনে কেক কাটা হয়। এছাড়া ডিআরইউ সদস্য ও পরিবারের জন্য দিনব্যাপী বিশেষ মেডিকেল ক্যাম্প ও সন্ধ্যায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক ও টিএমএল রেমিট্যান্সের মধ্যে চুক্তি



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক ও টিএমএল রেমিট্যান্সের মধ্যে চুক্তি

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক ও টিএমএল রেমিট্যান্সের মধ্যে চুক্তি

  • Font increase
  • Font Decrease

মালয়েশিয়ায় টিএমএল রেমিট্যান্স কোম্পানির কার্যালয়ে সম্প্রতি সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড ও টিএমএল রেমিট্যান্স এর মধ্যে ইনওয়ার্ড রেমিট্যান্স সেবা সংক্রান্ত বিষয়ে একটি কর্পোরেট চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী জাফর আলম- এর উপস্থিতিতে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন ব্যাংকের আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান মোঃ আকমল হোসেন ও টিএমএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলবার্ট লিম পো বোন।

 এছাড়াও মালয়েশিয়া সফরকালে ব্যাংকের  ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী জাফর আলম প্লাসিড এক্সপ্রেস, মার্চেন্ট ট্রেড এশিয়া এবং আরএইচবি ব্যাংক- এর সাথে বিজনেস মিটিং করেন।

;

পোশাক শ্রমিকদের জন্য চালু হবে বিশেষ ট্রেন



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
পোশাক শ্রমিকদের জন্য চালু হবে বিশেষ ট্রেন

পোশাক শ্রমিকদের জন্য চালু হবে বিশেষ ট্রেন

  • Font increase
  • Font Decrease

কয়েকদিন পর ঈদুল আজহা, যাত্রীদের প্রধান চাহিদা এখন ট্রেন। এবার পোশাক কারখানার শ্রমিকদের জন্য বিশেষ ট্রেন থাকছে। জয়দেবপুর থেকে ওই ট্রেনের টিকিট নেওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

শনিবার (২ জুলাই) কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে যাত্রীদের জন্য উন্নতমানের ট্রলি সরবরাহ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

চীন থেকে আমদানি করা উন্নতমানের ৫০টি ট্রলি হস্তান্তর করে বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড।

মন্ত্রী বলেন, ঈদুল ফিতরের সময় অনলাইনে টিকিট কাটতে বিভিন্ন অভিযোগ ছিল। তবে এবার এখন পর্যন্ত সে ধরনের অভিযোগ পাইনি। গণমাধ্যমে দেখলাম অনেকেই অনলাইন মাধ্যমে টিকিট কাটতে পেরেছেন। এরপরও এবার অনলাইন টিকিটে ফাঁকফোকর পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রেলমন্ত্রী বলেন, এক সময়ে স্টেশনগুলোতে যাত্রীদের মালামাল আনা-নেওয়া করতেন কুলিরা। এখন সেটা নেই। স্টেশনে লাগেজ-ব্যাগ আনা-নেওয়ায় অত্যন্ত উন্নতমানের ট্রলি উপহার দিয়েছে ইসলামী ব্যাংক। প্রধানমন্ত্রী রেল মন্ত্রণালয়কে ঢেলে সাজাতে চান। রেল মন্ত্রণালয়ে এবার ১৯ হাজার কোটি টাকার বাজেট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আগামী বছরের মধ্যে কক্সবাজার যাবো (রেললাইন সম্পন্ন হবে), ঢাকা থেকে ভাঙ্গা যেতে পারবো।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের ডুয়েলগেজ ৬০টি কোচ আসছে। আরও ১০০টি পাইপলাইনে আছে। ডাবল লাইন এবং পদ্মা সেতু হয়ে গেলে আমাদের সক্ষমতা আরও বেড়ে যাবে। তখন নিরাপদে সব যাত্রী ট্রেনের মাধ্যমে নিজ নিজ গন্তব্যে যেতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মনিরুল মওলা বলেন, ৪০ বছরের ব্যবধানে ব্যাংকিং সেক্টরে আমরা নাম্বার ওয়ান। সারাদেশ একটি মেডিকেল কলেজ, ৫টি নার্সিং ইনস্টিটিউটসহ ১৯টি হাসপাতাল আছে। জাতির প্রয়োজনে সব সেক্টরে সহযোগিতা করবে ইসলামী ব্যাংক। আজকে তারই ধারাবাহিতায় রেলওয়ের যাত্রীদের জন্য ট্রলি উপহার দিচ্ছি।

এসময় রেলওয়ের মহাপরিচালক (ডিজি) ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার, ইসলামী ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ম্যানেজার মিজানুর রহমান ভূঁইয়াসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊধ্র্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

;

ফের ভার্চুয়ালি শুরু হচ্ছে মন্ত্রিসভা বৈঠক



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ফের ভার্চুয়ালি শুরু হচ্ছে মন্ত্রিসভা বৈঠক

ফের ভার্চুয়ালি শুরু হচ্ছে মন্ত্রিসভা বৈঠক

  • Font increase
  • Font Decrease

ফের শুরু হচ্ছে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে হবে মন্ত্রিসভা বৈঠক। করোনা মহামারির মধ্যে দেশে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে হয়েছিল মন্ত্রিসভার বৈঠক। দীর্ঘদিন পর চলতি বছরের ২৮ মার্চ থেকে আবার সশরীরে এ বৈঠক হয়। বর্তমানে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় তিন মাস পর আবারও ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে হতে যাচ্ছে মন্ত্রিসভা বৈঠক।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সম্প্রতি সংশ্লিষ্টদের পাঠানো এক চিঠিতে জানানো হয়, রোববার (৩ জুলাই) ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে মন্ত্রিসভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এতে বলা হয়, আগামী ৩ জুলাই রোববার সকাল ১০টায় মন্ত্রিসভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, মন্ত্রিসভা বৈঠক ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে।

চিঠিতে আরও বলা হয়, এ সভায় অংশগ্রহণকালে প্রধানমন্ত্রী গণভবন এবং মন্ত্রিসভার সদস্য ও সচিবরা বাংলাদেশ সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ১ নম্বর ভবনের চতুর্থ তলায় অবস্থিত মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে (কক্ষ নম্বর-৩০৪) অবস্থান করবেন।

;

২৪ কোটি টাকা দিয়ে আইনজীবী ও শ্রমিক নেতাদের হাত করলেন ইউনূস!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
২৪ কোটি টাকা দিয়ে আইনজীবী ও শ্রমিক নেতাদের হাত করলেন ইউনূস!২৪ কোটি টাকা দিয়ে আইনজীবী ও শ্রমিক নেতাদের হাত করলেন ইউনূস!

২৪ কোটি টাকা দিয়ে আইনজীবী ও শ্রমিক নেতাদের হাত করলেন ইউনূস!২৪ কোটি টাকা দিয়ে আইনজীবী ও শ্রমিক নেতাদের হাত করলেন ইউনূস!

  • Font increase
  • Font Decrease

শ্রমিকদের মামলা প্রত্যাহারে রাজি করাতে দুই আইনজীবী ও তিন শ্রমিক ইউনিয়ন নেতাকে ২৪ কোটি টাকা দিয়েছে ড. মুহাম্মদ ইউনূসের মালিকানাধীন ‘গ্রামীণ টেলিকম’। গত ২৫ মে বিচারপতি খুরশীদ আলমের আদালতে গ্রামীণ টেলিকমের বিরুদ্ধে দায়ের করা কোম্পানী অবসায়ন মামলাটি (মামলা নং ২৭১/ ২০২১) প্রত্যাহারের আবেদন করে শ্রমিক ইউনিয়নের আইনজীবী মোঃ ইউসুফ আলী এবং গ্রামীণ টেলিকমের আইনজীবী এডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান।

আদালতে জানানো হয় গ্রামীণ টেলিকম প্রতিষ্ঠানটির সর্বমোট ১৭৬ জন কর্মচারীকে বকেয়া লভ্যাংশ হিসেবে ৪৩৭ কোটি টাকা প্রদান করবে এবং বিনিময়ে শ্রমিকরা ডঃ ইউনূসের বিরুদ্ধে সকল মামলা প্রত্যাহার করে নিবে। উক্ত সমুদয় অর্থ শ্রমিক কর্মচারীদের প্রাপ্য হলে সেটেলমেন্ট একাউন্টটির তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়  উক্ত একাউন্ট হতে তিনটি চেকের মাধ্যমে ২৬ কোটি ২২ লক্ষ টাকা গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের একাউন্টে প্রদান করা হয়েছে। পরবর্তীতে সেই একাউন্ট হতে ১৫ কোটি টাকা দেয়া হয় দুই আইনজীবী মোঃ ইউসুফ আলী ও জাফরুল হাসান চৌধুরী এবং  তিন কোটি টাকা করে দেয়া  তিন শ্রমিক নেতা মোঃ কামরুজামান, ফিরোজ মাহমুদ হাসান ও মাইনুল ইসলামকে। 

অবশ্য আদালত ও সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের প্রভাবিত করে বিবাদমান মামলাসমূহের রায় নিজেদের পক্ষে আনার জন্য ২০২১ সালেও প্রায় ১৪ কোটি টাকা দিয়ে ‘ঢাকা লজিস্টিকস সার্ভিসেস এন্ড সল্যুশন’ নামক লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ দিয়েছিলো গ্রামীণ টেলিকম। ১৪ জুন, ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত গ্রামীণ টেলিকমের ১০৪ তম বোর্ড সভায় ডঃ মুহাম্মদ ইউনুসকে লবিষ্ট নিয়োগের ক্ষমতা প্রদান করা হয়, যার প্রেক্ষিতে কার্যাদেশ এবং প্রাথমিক বিল পায় প্রতিষ্ঠানটি। লবিষ্ট ফার্মটির প্রস্তাবনায় মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সচিবসহ সংশ্লিষ্ট উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে গ্রামীণ টেলিকমের মামলা সমূহের রায় ডঃ ইউনূসের নিজেদের পক্ষে আনার জন্য পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করা হয়। এজন্য খরচ দেখানো হয় ১৩ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা। তখন সফল হতে না পারলেও এবার আইনজীবী ও শ্রমিক নেতাদের ২৪ কোটি টাকা ঘুষ প্রদান করে শ্রমিকদের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করে নিতে সক্ষম হয় গ্রামীণ টেলিকম।

বিষয়টি প্রকাশিত হওয়ার পর গত ৩০ জুন বিচারপতি খুরশীদ আলম পুনরায় মামলাটি রিকল করেন এবং দুই পক্ষের আইনজীবীকে ২রা আগস্টের মধ্যে উক্ত লভ্যাংশ প্রদান সংক্রান্ত সকল ধরনের দালিলিক প্রমাণাদির এফিডেভিট কপি আদালতে জমা প্রদানের নির্দেশনা দিয়েছেন।

;