বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা ট্রলার ডুবি, নিখোঁজ ১১ জেলে



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা ট্রলার ডুবি, নিখোঁজ ১১ জেলে

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা ট্রলার ডুবি, নিখোঁজ ১১ জেলে

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালী হাতিয়ার বঙ্গোপসাগরে মাছধরা ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে চার জেলে জীবিত উদ্ধার হলেও নিখোঁজ রয়েছে ১১ জন। মঙ্গলবার দুপুরে জীবিত উদ্ধার হওয়া জেলেরা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দূর্ঘটনার কবলে পড়া ট্রলারের মালিক হাতিয়ার জাহাজমারা আমতলি গ্রামের বাসিন্দা লুৎফুল্লাহিল মজিব নিশান জানান, মঙ্গলবার ভোরে ট্রলারটি ঝড়ের কবলে পড়ে পটুয়াখালীর জেলার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরে ডুবে যায়। পরে পাশে থাকা একটি ট্রলার চার জেলেকে উদ্ধার করে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর নিয়ে আসে। উদ্ধার হওয়া জেলেরা মঙ্গলবার বিকালে মোবাইলে এই সংবাদ জানান তাকে।

দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সাগর উত্তাল থাকায় ট্রলার ও নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে চেষ্টা করা যাচ্ছে না বলে জানান তিনি।

নিখোঁজ জেলে  মো: সোহেলের (২২) ভাই মোটরসাইকেল চালক মো: রাসেল জানান, তার ভাইসহ ১৫ জন জেলেকে নিয়ে  ট্রলারটি ঝড়ের কবলে পড়ে উল্টে যায়।  চারজনকে অন্য একটি ট্রলার উদ্ধার করে। তার ভাইসহ ১১ জন জেলে এখনও নিখোঁজ রয়েছে।

হাতিয়ার জাহাজমারা ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম বিল্লাহ জানান, দূর্ঘটনার কবলে পড়া ট্রলারটি জাহাজমারা আমতলী ঘাটের। নিখোঁজ ১৩ জেলের মধ্যে ৫ জনের বাড়ী জাহাজমারা আমতলী গ্রামে। অন্য ৮ জনের বাড়ী একই উপজেলার হরনী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে। সবার বাড়ীতে শোকের মাতাম চলেছে।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, হাতিয়া উপকূল থেকে ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরে একটি ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চারজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ১১ জন জেলে নিখোঁজ রয়েছেন।

দুর্গাপূজায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইজিপির নির্দেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপনের লক্ষ্যে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীতে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের হল অব প্রাইডে আসন্ন দুর্গোৎসব উপলক্ষে আয়োজিত নিরাপত্তা সংক্রান্ত এক সভায় এ নির্দেশ দেন।

আইজিপি বলেন, দুর্গাপূজা নিরাপদে উদযাপনের লক্ষ্যে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রাক-পূজা, পূজা চলাকালীন, ও পূজা পরবর্তী তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এ দেশের মানুষের অস্তিত্বের সঙ্গে মিশে আছে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এবারও শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গাপূজা উদযাপিত হবে।

আইজিপি বলেন, কমিউনিটি পুলিশের সদস্য এবং বিট পুলিশ কর্মকর্তাকে সংশ্লিষ্ট পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে সমন্বয় করে সকল পূজামণ্ডপের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

সভায় উপস্থিত হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করায় সন্তোষ প্রকাশ করেন। তারা আইজিপি’র প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন এবং বাংলাদেশ পুলিশকে ধন্যবাদ জানান।

সভায় সকল পূজামণ্ডপে সিসি ক্যামেরা স্থাপন এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে হ্যান্ডহেল্ড মেটাল ডিটেকটর ও আর্চওয়ে গেট স্থাপন, মণ্ডপে সার্বক্ষণিক স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ, নারী ও পুরুষের জন্য পৃথক প্রবেশ ও প্রস্থান পথের ব্যবস্থা করা, পর্যাপ্ত আলো, স্ট্যান্ডবাই জেনারেটর, চার্জার লাইটের ব্যবস্থা করা, আজান ও নামাজের সময় উচ্চশব্দে মাইক ব্যবহার না করার জন্য পূজা উদযাপন কমিটির প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে। যে কোন জরুরি প্রয়োজনে জাতীয় জরুরি পুলিশ সেবা-৯৯৯-এ কল করার জন্যও অনুরোধ করা হয়েছে।

সভায় অতিরিক্ত আইজি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) এম খুরশীদ হোসেন, স্পেশাল ব্রাঞ্চের প্রধান (অতিরিক্ত আইজি) মো. মনিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জে. এল. ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার, মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি মনীন্দ্র কুমার নাথ ও সাধারণ সম্পাদক রমেন মন্ডল, রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের স্বামী কল্পেশানন্দ প্রমুখ এবং ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সকল মেট্রোপলিটন কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি ও পুলিশ সুপারগণ ভার্চুয়ালি সভায় যুক্ত ছিলেন।

উল্লেখ, এ বছর সারাদেশে ৩২ হাজার ১৬৮টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা উদযাপিত হবে।

;

স্বর্ণের দাম কমেছে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
স্বর্ণের দাম কমেছে

স্বর্ণের দাম কমেছে

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের বাজারে ভালোমানের সোনা (২২ ক্যারেট) প্রতি ভরিতে ১ হাজার ৫০ টাকা কমিয়ে ৮১ হাজার ২৯৮ টাকা দাম নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)।

মঙ্গলবার থেকে এ দাম কার্যকর হবে।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বাজুসের মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণ স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান এম এ হান্নান আজাদ স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

;

আয়াকে ধর্ষণের অভিযোগে ক্লিনিক ম্যানেজার গ্রেফতার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বগুড়া
আয়াকে ধর্ষণের অভিযোগে ক্লিনিক ম্যানেজার গ্রেফতার

আয়াকে ধর্ষণের অভিযোগে ক্লিনিক ম্যানেজার গ্রেফতার

  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ার শেরপুরে বিয়ের প্রলোভনে ক্লিনিকের আয়াকে (৩৫) ধর্ষণের অভিযোগে ক্লিনিক ম্যানেজার আব্দুল আলিমকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শেরপুর থানা পুলিশ আব্দুল আলিমকে গ্রেফতার করে।

আব্দুল আলিম গাড়িদহ ইউনিয়নের কালশিমাটি গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে ও ভিশন ল্যাব অ্যান্ড ক্লিনিকের  ম্যানেজার।

জানা যায়, শেরপুর পৌর শহরের ভিশন ল্যাব অ্যান্ড ক্লিনিকে এক নারী আয়া পদে চাকরির সুবাদে ম্যানেজার আব্দুল আলিমের সঙ্গে পরিচয়। একপর্যায়ে তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত ১ সেম্পেম্বর আব্দুল আলিম তার স্ত্রী অসুস্থের কথা বলে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর বিয়ের কথা বললে  আব্দুল আলিম তালবাহানা করে। পরে ও নারী সোমবার শেরপুর থানায় মামলা করলে পুলিশ আব্দুল আলিমকে গ্রেফতার করে।

শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রতমান খন্দকার বলেন, ভুক্তভোগী নারীর মামলায় আব্দুল আলিমকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

;

বাগেরহাটে বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা পেলেন ৩ সহস্রাধিক রোগী



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মোংলা (বাগেরহাট)
ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা

ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা

  • Font increase
  • Font Decrease

বাগেরহাটের রামপালে দক্ষিণাঞ্চলের সর্ববৃহৎ ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা কেন্দ্রে সেবা দেয়া হয়েছে প্রায় তিন সহস্রাধিক নারী-পুরুষকে। ঢাকা মেগা সিটি লায়ন্স ক্লাবের উদ্যোগে ও লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলামের সহযোগিতায় রামপালে সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ চক্ষু সেবা কার্যক্রম চলে।

রামপাল উপজেলার বাঁশতলী ইউনিয়নের বড়দিয়া গ্রামের বড়দিয়া হাজী আরিফ (রঃ) মাদ্রাসা মাঠে সোমবার দিনভর প্রায় ৩ সহস্রাধিক চক্ষু রোগী বিনামূল্যে এ চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন। তারমধ্য থেকে প্রায় ৫ শতাধিক চোখে ছানি পড়া ও নেত্রনালী রোগীদের অপারেশনের জন্য বাছাই করা হয়েছে। এসব বাছাইকৃত রোগীদের ঢাকা মেগা সিটি লায়ন্স চক্ষু হাসপাতালে নিয়ে অপারেশন ও লেন্স সংযোজন করা হবে। আর ৩ সহস্রাধিক রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান, বিনামূল্যে ওষুধ ও বয়স্ক রোগীদের চশমা প্রদান করা হয়েছে। আর এ সকল রোগীদের সেবা দেন ঢাকা ও খুলনার ৬ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।


২০০৯ সাল থেকে শুরু করে সোমবার ছাড়া এর আগ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৪ হাজার চোখে ছানি পড়া ও নেত্রনালীসহ নানান সমস্যার রোগীদেরকে ঢাকায় নিয়ে অপারেশনসহ লেন্স সংযোজন করা হয়। এছাড়া এ পর্যন্ত প্রায় ৫৫ হাজার রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা, চশমা, অপারেশন, লেন্স সংযোজন ও ওষুধ প্রদাণ করা হয়েছে।

ঢাকা মেগা সিটি লায়ন্স ক্লাবের সভাপতি লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলাম সোমবার সকালে শান্তির প্রতীক পায়তারা উড়িয়ে এ ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা সেবার উদ্বোধন করেন বলেন, ২০০৯ সাল থেকে শুরু করে বাগেরহাট জেলার প্রায় সকল উপজেলায় পর্যায়ক্রমে এ চক্ষু চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম চালিয়ে আসা হচ্ছিল। কিন্ত বর্তমান প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক জটিলতার কারণে এবার রামপালে আমার নিজ এলাকায়ই এ প্রোগ্রাম করতে হয়েছে। এখানে বাগেরহাট জেলার সকল উপজেলাসহ চট্টগ্রাম, বরিশাল ও খুলনা থেকেও রোগীরা এসেছেন। কারণ এখানে এ সেবা সম্পূর্ণ ফ্রি। কোন কিছুর বিনিময়ে একটি টাকাও রোগীদের কাছ থেকে নেয়া হয়না। থাকা, খাওয়া, যাতায়াত, অপারেশন ও লেন্স স্থাপন সবকিছুই ফ্রি। এছাড়াও রোগীদের পরিপূর্ণ চিকিৎসা শেষে ভালভাবে নিজ বাড়িতে ফিরতেও টাকা দিয়ে সহায়তা দিয়ে আসছি, যাতে বাড়ি যেতে কষ্ট না হয়। আমাদের এ উদ্যোগে মানুষের ব্যাপক সাড়া দিয়েছে। তাই আমরাও মানবতার কল্যাণে আগামীতেও এ কাজ করে যাবো।


তিনি আরো বলেন, চোখের সমস্যার কারণে বিশেষ করে বয়স্করা কষ্ট পান এবং পরিবারের কাছে বোঝা হয়ে পড়েন। তাই আমাদের এ উদ্যোগ ও সহযোগিতায় তাদের চোখের আলো ফিরে পেয়ে স্বাভাবিক সুন্দর কর্মময় জীবনযাপন করতে পারছেন। আর এটা করতে পারাই আমাদের সফলতা, এখানেই আমাদের আত্মতৃপ্তি ও আনন্দ।

;