কোথায় কখন লোডশেডিং আজ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জ্বালানি সংকটের কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ঘাটতির জন্য দেশজুড়ে এলাকাভিত্তিক আজও লোডশেডিং শুরু হচ্ছে। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী বুধবারের (১০ আগস্ট) তালিকা প্রকাশ করেছে বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলো।

ঢাকা বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানি (ডিপিডিসি), ঢাকা ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো), নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি (নেসকো), ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউসন কোম্পানি (ওজোপাডিকো), বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) এবং বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) এর ওয়েবাসাইটের নির্দিষ্ট লিংককে গিয়ে এই তালিকা দেখতে পারবেন গ্রাহকরা।

আজকে কোন এলাকায় কখন লোডশেডিং হবে, এর সূচি দেওয়া হয়েছে। দেখে নেওয়া যাক।

https://www.desco.org.bd/bangla/loadshed_b.php

http://www.wzpdcl.org.bd/

https://nesco.portal.gov.bd/site/page/13ccd456-1e1d-4b24-828d-5811a856f107

http://reb.portal.gov.bd/site/page/c65ac273-d051-416f-9a93-5cd300079047

https://bpdb.portal.gov.bd/site/page/cafea028-95e6-4fca-8fea-e4415aef9a60

https://www.desco.org.bd/bangla/loadshed_b.php

জ্বালানি সাশ্রয়ে উচ্চ ব্যয়ের ডিজেলচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ রাখার সরকারি সিদ্ধান্তের পর সরবরাহ সংকটে দেশজুড়ে প্রতিদিন সূচি ধরে কোথাও এক ঘণ্টা আবার কোথাও ২ ঘণ্টা করে লোডশেডিং করা শুরু হয় মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) থেকে।

এর আগে ১৮ জুলাই লোডশেডিংয়ের সিদ্ধান্ত সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বিদ্যুৎ ও জ্বালানিবিষয়ক সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

প্রয়োজন মনে করলে সরকার র‍্যাবের সংস্কার করবে: নতুন ডিজি খুরশীদ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, গোপালগঞ্জ
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব)-এর নতুন মহাপরিচালক (ডিজি) এম খুরশীদ হোসেন বলেছেন, র‌্যাবের সংস্কারের বিষয়টি তাদের দেখার বিষয় নয়। র‌্যাবে কী সংস্কার হবে, কী হবে না-সেটা সরকারের বিষয়। প্রয়োজন মনে করলে সরকার র‌্যাবের সংস্কার করবে। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে ]র‌্যাবের সংস্কারের কোনো প্রয়োজন দেখি না।

রোববার (২ অক্টোবর) বিকেলে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

নতুন ডিজি খুরশীদ বলেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি সরকার মোকাবিলা করছে। তারা আমাদের কাছে যেসব প্রশ্ন করেছে, যেসব বিষয় তারা জানতে চেয়েছে, আমরা যথাযথভাবে তার জবাব দিয়েছি। আমরা জবাব দেওয়ার পর তারা আর কোনো প্রশ্ন করতে পারেনি। সেক্ষেত্রে র‌্যাবে কী সংস্কার করবে, কী করবে না, সেটা সরকারের বিষয়।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। প্রয়োজন মনে করলে সংস্কার করবে কিন্তু আমি ব্যক্তিগতভাবে র‌্যাবের সংস্কার করা প্রয়োজন বলে মনে করি না।

এম খুরশীদ হোসেন বলেন, র‌্যাব আইন-কানুন মেনে সরকারের নির্দেশ পালন করে। আমরা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য, দেশের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য, প্রধানমন্ত্রী যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছেন, সেটা বেগবান রাখতে কাজ করে যাচ্ছি।

এর আগে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক। এ সময় বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এ সময় র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

;

প্রবাসী আয়ে বড় ধাক্কা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সদ্য সমাপ্ত সেপ্টেম্বরে প্রবাসী আয়ে বড় ধাক্কা লেগেছে। ২০২২-২৩ অর্থবছরের তৃতীয় মাস সেপ্টেম্বরে ১৫৪ কোটি ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এই অঙ্ক গত ৭ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন।

রোববার (২ অক্টোবর) বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে জানানো হয়, সদ্য সমাপ্ত সেপ্টেম্বর মাসে ব্যাংকিং চ্যানেলে প্রবাসী বাংলাদেশিরা দেশে ১৫৩ কোটি ৯৫ লাখ (প্রায় ১.৫৪ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার পাঠিয়েছেন। প্রবাসী আয়ের এ অঙ্ক গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ১৮ কোটি ৭২ লাখ ডলার বা ১০ দশমিক ৮৪ শতাংশ কম।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে রেমিট্যান্স এসেছিল ১৭২ কোটি ৬৭ লাখ ডলার। শুধু তাই নয়, সেপ্টেম্বরের প্রবাসী আয়ের এই অঙ্ক গত ৭ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে দেশে ১৪৯ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স এসেছিল। সেপ্টেম্বরের চেয়ে কেবল ওই মাসে কম এসেছে। মার্চ থেকে আগস্ট পর্যন্ত অন্য সব মাসে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে।

চলতি অর্থবছরের টানা দুই মাস ২ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স বৈধ পথে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। আগস্ট মাসে ২০৩ কো‌টি ৭৮ লাখ (২ দশমিক ০৩ বিলিয়ন) ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। তার আগের মাস জুলাইয়ে এসেছিল ২০৯ কোটি ৬৩ লাখ ডলার। জুলাই মাসে পবিত্র ঈদুল আজহার কারণে বেশি পরিমাণ প্রবাসী আয় এসেছিল। তবে আগস্টে বড় উৎসব ছিল না, তারপরও প্রবাসী আয় ২০০ কোটি ডলার ছাড়ায়।

সেপ্টেম্বরে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন পাঁচ বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ২৪ কোটি ৬২ লাখ মার্কিন ডলার। বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১২৬ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার। বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৬১ লাখ মার্কিন ডলার। আর বিশেষায়িত একটি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২ কোটি ৪১ মার্কিন ডলার।

আলোচিত সময়ে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে বরাবরের মতো বেসরকারি ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যাংকটির মাধ্যমে প্রবাসীরা ৩৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন। এরপর সিটি ব্যাংকে এসেছে ১১ কোটি ২৮ লাখ ডলার, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকে ১০ কোটি ৭২ লাখ ডলার, অগ্রণী ব্যাংকে ৯ কোটি ৫৬ লাখ ডলার এবং ডাচ-বাংলা ব্যাংকে এসেছে ৭ কোটি ৯২ লাখ ডলার প্রবাসী আয়।

;

মহামারির প্রকোপেও বিকশিত লিডার্স স্কুল



কনক জ্যোতি, কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ। বার্তা২৪.কম

লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ। বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনা মহামারির কিছুদিন আগে ২০১৮ সালে ছোট্ট পরিসরে চট্টগ্রামের ক্যান্টনমেন্ট সংলগ্ন বালুছড়া এলাকায় শুরু হয় লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ। মহামারির প্রকোপে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলেও লিডার্সের বিকাশ হয়েছে অভাবনীয় গতিতে। করোনা সঙ্কটের মধ্যের বছরগুলোতে প্রায় আট শত শিক্ষার্থীর পদচারণায় মুখরিত হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তাদের নিয়ে কাজ করছেন শতাধিক শিক্ষক ও সহায়ক স্টাফ।

লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের উল্লেখযোগ্য বিকাশ সাধিত হয়েছে কোভিদ প্রটোকল, সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মান্য করে। শিক্ষার্থীদেরও আনা হয়েছে টীকাকরণ কর্মসূচির আওতায়। অভিভাবকরা বলছেন, "এসব ছাড়াও শিক্ষার মানগত ও পরিবেশগত দিকগুলো এখানে আকর্ষণীয়। ফলে চট্রগ্রাম মহানগরের আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কাতারে স্থান লাভ করেছে লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ।"

লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের স্বপ্নদ্রষ্টা কর্নেল (অব.) আবু নাসের মো. তোহা, যিনি চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের প্রিন্সিপাল ছিলেন। অবসর গ্রহণের পর তিনি নিজের দীর্ঘ অভিজ্ঞতার আলোকে গড়ে তুলেছেন লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

বার্তা২৪.কম'কে কর্নেল (অব.) আবু নাসের মো. তোহা বলেন, "ভালো ছাত্র হওয়ার আগে একজন শিক্ষার্থীকে ভালো মানুষ করতে হবে। ভালো মানুষ হলে সে ভালো ছাত্র হবেই।"

"এজন্য আমরা অ্যাকাডেমিক পড়াশোনার সমান্তরালে নৈতিকতার শিক্ষা প্রদান করি। প্রতিটি শিক্ষার্থীকে সালাম চর্চা, ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা এবং ভুল করলে কালবিলম্ব না করেই সরি বলার অভ্যাস করানো হয়। পাঠ্যক্রমের পাশাপাশি প্রতিদিন একটি ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা জাগানো হয় তাদের মধ্যে", বলেন তিনি।

স্কুলের পরিবেশও বেশ সুন্দর আর পরিপাটি। লতা, গুল্ম, ক্যাকটাস দিয়ে আচ্ছাদিত পুরো প্রাঙ্গণ। রয়েছে একটি মিনি চিড়িয়াখানা, যেখানে নানা জাতের পাখি ও উদ্ভিদ শিক্ষার্থীরা সরাসরি দেখে চিনতে পারে। প্রতিদিন সকালে স্কুলের শুরু হয় আনন্দঘন আবহে। প্রতিটি শিক্ষক উপস্থিত থেকে অভিভাবকদের কাছ থেকে শিক্ষার্থীদের গ্রহণ করেন। পড়াশোনা, খেলাধুলা, স্বাস্থ্যবিধি এবং ভালো ও মন্দ সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হয় প্রতিটি শিক্ষার্থীকে। মোবাইল, টিভি আসক্তি এ কারণে লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীদের কাছে ঘেঁষতে পারে না। মেধা বিকাশের সৃজনশীল প্রয়াসের সঙ্গে সঙ্গে মিথ্যা, প্রবঞ্চনা, সন্ত্রাস ইত্যাদির বিরুদ্ধেও নৈতিক প্রতিরোধ তৈরি করা হয় তাদের মননে।

কর্নেল (অব.) আবু নাসের মো. তোহা বলেন, "ভালো শিক্ষার জন্য প্রয়োজন ভালো প্রতিষ্ঠান ও ভালো পারিবারিক পরিবেশ। আমরা তা নিশ্চিত করতে অভিভাবকদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত মতবিনিময় করি। প্রতিটি ছাত্রের সমস্যা ও সম্ভবনার দিকগুলো চিহ্নিত করে কাজ করছি আমরা। ফলে শিক্ষার্থীরা একই সঙ্গে ভালো মানুষ ও ভালো ছাত্র হিসাবে গড়ে উঠছে।"

তিনি বলেন, "অবসর গ্রহণের পর একটি দৃষ্টান্তমূলক আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ার স্বপ্নময় চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ শুরু করি। মহান আল্লাহর রহমতে আমরা সামাজিক নেতৃত্ব, অভিভাবক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অভূতপূর্ব সমর্থন ও সহযোগিতা পাচ্ছি। আমরা আশা করি, শুধু চট্টগ্রামের নয়, বাংলাদেশের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় অচিরেই লিডার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ স্থান লাভ করবে।"

;

করোনায় আরও একজনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়েছে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
করোনায় আরও একজনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়েছে

করোনায় আরও একজনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়েছে

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৩৫ জন।

রোববার (২ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে, শনিবার (১ অক্টোবর) করোনা আক্রান্ত হয়ে পাঁচজনের মৃত্যু এবং আক্রান্ত হয় ৪৮০ জন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৭৪৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ।

এ সময়ে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৪৭৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬৬ হাজার ১০৭ জন।

দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২০ লাখ ২৬ হাজার ২১২ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৩৬৯ জনের।

দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত (কোভিড-১৯) প্রথম রোগী শনাক্ত হয় ২০১৯ সালের ৮ মার্চ। তার ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

;