মোংলা বন্দরে সার বোঝাই কার্গো জাহাজ ডুবি



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মোংলা (বাগেরহাট)
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়ীয়া এলাকায় সার বোঝাই একটি কার্গো ডুবে গেছে।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে অপর একটি বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজের সাথে ধাক্কা লেগে কার্গোটি ডুবে যায়। জাহাজটিতে থাকা ৮জন স্টাফকে উদ্ধার করেছেন আশপাশের নৌযানের স্টাফ ও কোস্ট গার্ড সদস্যরা। কার্গোটি মূল চ্যানেলে ডুবলেও এ চ্যানেল দিয়ে নৌ চলাচল স্বাভাবিক ও ঝুঁকিমুক্ত রয়েছে বলে জানিয়েছে বন্দরের হারবার বিভাগ।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার ক্যাপ্টেন শাহীন মজিদ জানান, গত রাত ১১টার দিকে বন্দর চ্যানেলের হাড়বাড়ীয়ার ৯ নম্বর এ্যাংকোরেজে থাকা বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজ এম,ভি ভিটা অলিম্পিক থেকে প্রায় ৫শ মেট্টিক টন সার (এমওপি) বোঝাই করে কার্গো জাহাজ এম,ভি শাহজালাল এক্সপ্রেস খুলনার শিরোমনির উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। পথিমধ্যে অন্ধকার ও ঘন কুয়াশার কারণে ৮ নম্বর এ্যাংকোরেজে থাকা বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজ এম, ভি সুপ্রীম ভেলর'র পিছনে ধাক্কা লাগে। এতে কার্গোটি সেখানে ডুবে যায়। ডুবে যাওয়া কার্গো জাহাজে থাকা ৮ স্টাফকে রাতেই উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। খবর পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করেন কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোন সদস্যরা ও অপর নৌযানের স্টাফেরা।

বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার ক্যাপ্টেন শাহীন মজিদ বলেন, ৫শ মেট্টিক টন সার নিয়ে কার্গো জাহাজ এম,ভি শাহজালাল এক্সপ্রেস মুল চ্যানেলে ডুবে গেলেও বর্তমানে ওই চ্যানেল দিয়ে অন্যান্য নৌযান চলাচল সম্পূর্ণ স্বাভাবিক ও ঝুঁকিমুক্ত রয়েছে। বুধবার সকালে দুর্ঘটনাকবলিত স্থানে রেড মার্কিং করার জন্য হারবার বিভাগের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। ডুবে যাওয়া কার্গোটির ফিটনেস সার্টিফিকেট রয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিদেশি জাহাজ এম, ভি ভিটা অলিম্পিক জাহাজের স্থানীয় শিপিং এজেন্ট পার্ক শিপিংয়ের খুলনার ম্যানেজার মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, ভিটা অলিম্পিক জাহাজ থেকে প্রায় ৪শ মেঃ টন সার নিয়ে খুলনায় যাওয়ার পথে কার্গো জাহাজ এম, ভি শাহজালাল এক্সপ্রেস অপর একটি বিদেশি জাহাজের সাথে ধাক্কা লেগে ডুবে যায়। তবে জাহাজের মালিক কে তা জানাতে পারেননি তিনি। তবে ডুবে যাওয়া জাহাজের ৭জন স্টাফ ও ১জন নিরাপত্তা কর্মী পাশে থাকা এম.ভি নয়ন শয়ন ও মাহমুদ রায়হান নামক কার্গো জাহাজে রয়েছেন।

এদিকে দুর্ঘটনাকবলিত স্থানে গত রাত থেকেই স্টাফ উদ্ধার তৎপরতার জন্য ৫ সদস্যের দুইটি টিম অবস্থান করছেন।

সার বোঝাই কার্গো জাহাজ ডুবির ঘটনায় সেভ দ্যা সুন্দরবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলাম বলেন, পশুর চ্যানেলের সুন্দরবনের অভ্যন্তরে সার বোঝাই নৌযান ডুবিতে প্রথমত ক্ষতির আশংকা হলো সার জলজপ্রাণীর কোন খাবার নয়, সেহেতু জলজপ্রাণীর ক্ষতি হতে পারে। অপরদিকে বিভিন্ন সময়ে ডুবন্ত নৌযান উত্তোলনে বিলম্ব হওয়ায় চ্যানেলে পলি পড়ে নাব্যতা সংকটের ঝুঁকি বাড়ছে। তিনি আরো বলেন, এছাড়াও ফিটনেসবিহীন নৌযান চলচলা বন্ধে সংশ্লিষ্টদের কঠোর ও সর্তকীকরণ ব্যবস্থা গ্রহণে আন্তরিক হতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

স্বাধীনতার ইতিহাস আর বিকৃত করার সুযোগ নেই, সংসদে প্রধানমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • Font increase
  • Font Decrease

সত্যকে যারাই মিথ্যা দিয়ে ঢাকতে চেয়েছে তারা ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে চলে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেন, স্বাধীনতার ইতিহাস আর বিকৃত করার সুযোগ নেই। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা ঠিক থাকবে।

বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তরে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য এ কে এম রহমতুল্লাহর লিখিত প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

সংসদ নেতা বলেন, ‘ইতিহাস বিকৃতকারীর বিচার করতে গেলে কাকে রেখে কাকে করব। ছিয়ানব্বইয়ের আগে অনেকে সঠিক ইতিহাস জানার পরও বিকৃত করেছে। তবে স্বাধীনতার ইতিহাস আর কেউ বিকৃত করতে পারবে না, সম্ভবও না। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা যেন ঠিক থাকে সেই চেষ্টা করা হবে।’

১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতির ইতিহাসে একটি অবিস্মরণীয় অধ্যায় মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, মূলত পাকিস্তান সৃষ্টির পর থেকেই পশ্চিম পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠী পূর্ব পাকিস্তানের জনগণকে সুপরিকল্পিতভাবে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করে। মহান মুক্তিযুদ্ধে সংগঠিত গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির জন্য মার্কিন কংগ্রেসম্যানদের উত্থাপিত প্রস্তাব প্রতিনিধি পরিষদের পররাষ্ট্র-বিষয়ক কমিটিতে রয়েছে। প্রস্তাবটি যাতে বিবেচিত হয়, সে জন্য বাংলাদেশ কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক এ বঞ্চনার বিরুদ্ধে ১৯৪৮ সাল থেকে বঙ্গবন্ধু সোচ্চার ছিলেন। ভাষা আন্দোলনসহ বাঙালির সব অধিকার আদায়ে তার ভূমিকা ছিল অগ্রগণ্য। বঞ্চনায় পিষ্ট এ দেশের আপামর জনসাধারণ ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ও ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতার ঘোষণায় অনুপ্রাণিত হয়। তারা দেশ মাতৃকার স্বাধীনতার জন্য জীবন বাজি রেখে যার যা আছে, তা নিয়েই সর্বাত্মক যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

‘পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর অত্যাচার দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের নাৎসি নৃশংসতাসহ ইতিহাসের সব কালো অধ্যায়কে হার মানিয়েছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরবর্তী সময়ে এতো বেশি সংখ্যক মানুষকে হত্যা, নির্যাতন ও ধর্ষণের চিত্র ইতিহাসে আর একটিও পাওয়া যাবে না’—যোগ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী কর্তৃক বাংলাদেশে চালানো হত্যাযজ্ঞকে গণহত্যা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য গত বছরের ১৪ অক্টোবর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে (হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস) একটি প্রস্তাব আনা হয়েছে। প্রস্তাবটি উত্থাপন করেছেন, ওহিও অঙ্গরাজ্যের কংগ্রেসম্যান স্টিভ চ্যাট এবং ক্যালিফোর্নিয়ার কংগ্রেসম্যান রো খান্না। পরে কো-স্পন্সর হিসেবে যোগ দিয়েছেন, ক্যালিফোর্নিয়ার ক্যাটি পোর্টার এবং নিউজার্সির ট ম্যালিনোস্কি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কংগ্রেসম্যানদের উত্থাপিত প্রস্তাবটি বিবেচনার জন্য প্রতিনিধি পরিষদ পররাষ্ট্র -বিষয়ক কমিটির কাছে পাঠিয়েছে। প্রস্তাবটি যাতে বিবেচিত হয়, সে লক্ষ্যে বাংলাদেশ ঐকান্তিক কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

;

পদোন্নতি পেলেন ৪ অতিরিক্ত ডিআইজি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পুলিশে অতিরিক্ত ডিআইজি থেকে পদোন্নতি পেয়ে চার কর্মকর্তা অতিরিক্ত আইজি হয়েছেন।

বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ শাখা-১ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

পদোন্নতিপ্রাপ্তরা হলেন- পুলিশ সদরদপ্তরে কর্মরত জামিল আহমদ, ঢাকার পুলিশ স্টাফ কলেজে কর্মরত মো. হুমায়ুন কবির, পুলিশ সদরদপ্তরে কর্মরত ওয়াই এম বেলালুর রহমান এবং ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মীর রেজাউল আলম।

প্রজ্ঞাপন বলা হয়, পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে যোগদানপত্র প্রেরণ করবেন এবং পরবর্তী পদায়ন না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান দায়িত্ব পালন করে যাবেন।

পুলিশের শীর্ষ পদ পুলিশ মহাপরিদর্শকের (আইজিপি) পর অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক ছিলেন ১৮ জন। নতুন চারজনকে নিয়ে এই সংখ্যা এখন ২২ হলো।

;

মিরপুর চিড়িয়াখানায় দুদকের অভিযান



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
মিরপুর চিড়িয়াখানায় দুদকের অভিযান

মিরপুর চিড়িয়াখানায় দুদকের অভিযান

  • Font increase
  • Font Decrease

মিরপুর জাতীয় চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে একই টিকিট দুইজনের নিকট বিক্রির অভিযোগ ও রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার (২৫ জানুয়ারি ) এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুর্নীতি দমন কমিশন, প্রধান কার্যালয়, ঢাকা হতে একটি এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযান পরিচালনাকালে টিম ছদ্মবেশে টিকেট ক্রয় করে। এক্ষেত্রে টিমের কাছে একই টিকেট দুইজনের নিকট বিক্রির অভিযোগের সত্যতা প্রতীয়মান হয় নি। চিড়িয়াখানার পরিচালক এর সাথে কথা বলে জানা যায় একই টিকেট দুই জনের কাছে বিক্রির ব্যাপারটি তাদের দৃষ্টিগোচর হলে উনারা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেন।

কর্তৃপক্ষের নিকট হতে বিগত বছরগুলোর টিকিট বিক্রি সংক্রান্ত টেন্ডারের বিজ্ঞপ্তি, মূল্যায়ন পত্র ও তৎসংশ্লিষ্ট অন্যান্য রেকর্ডপত্র সংগ্রহ করে দুদকের এনফোর্সমেন্টের সদস্যরা।

;

মেয়ের প্রেমের বলি বাবা!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,বার্তা২৪.কম, রংপুর
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

 

রংপুরে মেয়ের প্রেমের বলি হলেন বাবা নওশাদ আলী (৫৫)। প্রেম মেনে না নেওয়ায় তাকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার(২৫ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে রংপুর-সুন্দরগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে পীরগাছা উপজেলার কৈকুড়ি ইউনিয়নের ইছলারহাটের চেংটুর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নওশাদ আলী রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের কাচারিবাজার এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নওশাদ আলীর মেয়ের সঙ্গে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামধন এলাকার ওসমান গণির ছেলে আব্দুল করিমের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একপর্যায়ে মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে যায় আব্দুল করিম। এ ঘটনায় করিমকে আসামি করে মিঠাপুকুর থানায় মামলা করেন নওশাদ আলী। মামলা দায়েরর পরে পুলিশ মেয়েকে উদ্ধার করে বাবার জিম্মায় দেয়াসহ আব্দুল করিমকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। ওই মামলায় প্রায় তিন মাস হাজতবাসের পর সম্প্রতি জামিনে বের হন আব্দুল করিম।

খবর পেয়ে আবারো তার বাড়িতে গিয়ে অবস্থান নেন নওশাদ আলীর মেয়ে।

বুধবার সকালে আব্দুল করিমের বাড়িতে গিয়ে মেয়েকে জোর করে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন নওশাদ আলী। পথিমধ্যে ইছলারহাটের চেংটুর ব্রিজে পৌঁছালে তার পথ রোধ করে বেধরক পিটুনি দেন আব্দুল করিম। সেখানে নওশাদ আলী গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে স্থানীয় ইছলার হাটে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ সময় তার অবস্থার অবনিত হওয়ায় রমেক হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পীরগাছা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মালেক বলেন, প্রেম ঘটিত কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। নওশাদ আলীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বর্তমানে রমেক হাসপাতালের মর্গে আছে।

;