খাতুনগঞ্জে মূল্য তালিকা ও ক্রয় রশিদ না থাকায় ৬ আড়তদারকে জরিমানা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে তৃতীয় দিনের মত চট্টগ্রামের বৃহত্তর পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন। এসময় মূল্য তালিকা না থাকা, ক্রয় বিক্রয় রশিদ না রাখায় ৬ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ৫১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সোমবার (৪ মার্চ) দুপুরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্তের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে মূল্য তালিকা না থাকা, ক্রয় বিক্রয় রশিদ না রাখায় মদিনা ট্রেডার্সকে ১০ হাজার, আজমির ভান্ডারকে ৩ হাজার, ফারুক ট্রেডার্সকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এরপর সরাসরি ডিও/এসও বিক্রির দায়ে ভাই ভাই এন্টারপ্রাইজকে ১০ হাজার, দ্বীন এন্ড কোম্পানিকে ৫ হাজার এবং এলাচের বৃহত্তম আমদানীকারক মেসার্স আবু মোহাম্মদ এন্ড কোম্পানিকে আমদানী মূল্যের তুলনায় অতিরিক্ত মূল্যে এলাচ বিক্রির দায়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব প্রতীক দত্ত বলেন, 'বিভিন্ন আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান এর এলসি পর্যালোচনা করে দেখা যায় শুল্কসহ এলাচের দাম কেজি প্রতি সর্বোচ্চ ১৫০০ টাকা হতে পারে, সেখানে পাইকারি বাজারে বিক্রয় হচ্ছে ২৩০০ থেকে ৩০০০ টাকায়। এছাড়াও বেশ কিছু মসলার দাম বেশী আছে বাজারে। আমরা চেস্টা করছি দাম বাড়ার কারণটি খুজে বের করার জন্য। বারবার হাতবদল বা ডিও/এসও বিক্রিও একটি কারণ হতে পারে। আজ সামান্য জরিমানা করা হয়েছে, এরপর আরো কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। পবিত্র রমজান মাসে চট্টগ্রামের বাজারকে কোন ভাবেই অস্থিতিশীল হতে দেয়া হবে না। জেলা প্রশাসন এর এ ধরনের অভিযান সামনে আরো বাড়বে।'

অভিযানে সার্বিক সহযোগিতা করেন সহকারী কৃষি বিপণন কর্মকর্তা আবু বক্কর এবং কোতোয়ালি থানা পুলিশের একটি দল।

এর আগে, শনিবার নগরীর রিয়াজুদ্দিন বাজার থেকে জেলা প্রশাসনের এই বাজার মনিটরিং কার্যক্রম শুরু হয়। এবং রোববার নিউমার্কেট ফলমন্ডিতেও অভিযান চালানে হয়।

   

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: রাঙামাটিতে ৩৭ জনের মনোনয়নপত্র জমা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম, রাঙামাটি
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথম ধাপের ভোটে তিন পদে পার্বত্য জেলা রাঙামাটির সদর উপজেলাসহ মোট চার উপজেলায় মোট ৩৭ জন প্রার্থী প্রথমবারের মতো অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় শেষ হওয়ার পর এ তথ্য জানান নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, রাঙামাটি জেলার সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৬ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, জুড়াছড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন, কাউখালী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ২ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন ও বরকল উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ২ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

তফসিল অনুযায়ী, প্রথম ধাপের মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ১৭ এপ্রিল। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করা যাবে ১৮ থেকে ২০ এপ্রিল। আপিল নিষ্পত্তি হবে ২১ এপ্রিল, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২২ এপ্রিল। পরদিন প্রতীক বরাদ্দের পর প্রচারণা শুরু হবে।

প্রথম ধাপে রাঙামাটির চার উপজেলাসহ সর্বমোট ১৫০টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ হবে চলতি বছরের আগামী ৮ মে।

এ ধাপের নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে এবং সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দায়ের করা আপিল আবেদন নিষ্পত্তি করবেন জেলা প্রশাসক।

;

মেয়ের অস্ত্রোপচারের টাকা পুড়ে ছাই, সুগন্ধার চোখে অন্ধকার



তাসনীম হাসান, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম ব্যুরো
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দুই মাস ধরে গুরুতর অসুস্থ নবম শ্রেণির ছাত্রী অর্পিতা দাশ। জ্বর কমছিলই না। কারণ খুঁজতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানা গেল অর্পিতার পেটে বসতি গেড়েছে টিউমার। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন দ্রুতই করতে হবে অস্ত্রোপচার। সেজন্য এখান থেকে ওখান থেকে নিয়ে টাকা জমাতে শুরু করেন চট্টগ্রাম বন্দর হাসপাতালে কর্মরত মা সুগন্ধা দাশ। ৫০ হাজার টাকা জমিয়ে বড় যত্নে রেখেছিলেন বাসায়। অস্ত্রোপচারের অপেক্ষায় থাকা মেয়েকে কিছুদিন ধরে ভর্তি করিয়েছেন হাসপাতালেও।

কিন্তু তার আগেই আগুন এসে কেড়ে নিয়েছে সুগন্ধার সব, মেয়ের অস্ত্রোপচারের টাকা। সেসব ভেবে কান্না থামছেই না এই মধ্যবয়সী নারীর। পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়া ঘরের সামনে বসে এই নারী বিলাপ করছিলেন, ‘আমি এখন কোথায় যাব, মেয়েকে কীভাবে অস্ত্রোপচার করাব।’

২০১৭ সালে স্বামী পরিমল দাশকে হারান সুগন্ধা। এরপর থেকে ছেলে ও মেয়ের কথা ভেবে আর বিয়েমুখী হননি। বড় ছেলের বয়স মাত্র ২০। তিনি অবশ্য এখনো তেমন কিছু করেন না। আর ১৬ বছরের মেয়ে অর্পিতা নবম শ্রেণিতে পড়ছে পাথরঘাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। বন্দর হাসপাতালে দৈনন্দিন ভিত্তিতে কাজ করা মায়ের আয়েই চলছিল অর্পিতাদের সংসার। এর মধ্যে অর্পিতা অসুস্থ হয়ে পড়ায় আরও বিপাকে পড়েন মা।

দুই সপ্তাহ আগে অর্পিতাকে ভর্তি করানো হয় মায়ের কর্মস্থল বন্দর হাসপাতালে। আরও কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে অর্পিতার অস্ত্রোপচার করার কথা ছিল। সোমবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে হাসপাতালে একদিকে নিজের কাজ, অন্যদিকে মেয়েকে দেখভাল করা-দুটোই করছিলেন সুগন্দা। এমন সময় খবর পান তার বাসাসহ আশপাশের সব বাসা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে। মেয়েকে হাসপাতালের বিছানায় রেখে দ্রুত আসলেও কিছুই রক্ষা করতে পারেননি সুগন্ধা। তার আগেই পুড়ে গেছে বাসার সবকিছুই, মেয়ের অস্ত্রোপচারের জন্য রাখা ৫০ হাজার টাকাও।

সোমবার বিকেলে চট্টগ্রামের ফিরিঙ্গিবাজার এলাকার এয়াকুবনগর লইট্টাগাড়া এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পুড়ে যাওয়া বাসায় বসে কেঁদেই চলেছেন সুগন্ধা দাশ। বোন এসে সান্ত্বনা দেওয়ার সব চেষ্টাই করছিলেন। কিন্তু কিছুতেই যেন থামছিল না সুগন্ধার কান্না। অস্ফুট স্বরে বলতে থাকেন, ‘ও মারে, ও বাপরে, আমার তো কিছুই রইল না।’

সোমবার দুপুরে হঠাৎ লাগা আগুনে এই এলাকার ৮৭টি কক্ষ পুড়ে গেছে। পুড়ে যাওয়া সেই কক্ষের একটিতে ছেলে আর মেয়েকে নিয়ে থাকতেন সুগন্ধা।

সুগন্ধা দাশ বলেন, ঘটনার সময় আমি বন্দর হাসপাতালে ছিলাম। একদিকে সেখানে ভর্তি থাকা মেয়েকে দেখতে হচ্ছিল, অন্যদিকে নিজের কাজও সারতে হচ্ছিল। আগুনের খবর পেয়ে মেয়েকে হাসপাতালে রেখে বাসায় এসে দেখি তিলে তিলে গড়ে তোলা আমার সবকিছুই ছাই।’

মেয়েকে এখন কীভাবে অস্ত্রোপচার করাবেন, সেই ভাবনায় চোখে অন্ধকার দেখছেন সুগন্ধা। বললেন, ‘কত কষ্ট করে মেয়ের অস্ত্রোপচারের জন্য ৫০ হাজার টাকা জমিয়েছিলাম। আগুনে টাকাগুলো পুড়ে গেছে। এখন কোথায় টাকা পাব জানি না।’

এক আগুন শুধু সুগন্ধাদের সব কেড়ে নেয়নি। অর্পিতার জীবনটাকেও ফেলে দিয়েছে বড়সড় ঝুঁকির মুখে!

;

গাজীপুরে বাইক রেস করতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই বন্ধুর



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, গাজীপুর
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় শফিউদ্দিন ও রায়হান নামের দুই বন্ধু নিহত হয়েছেন। এঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে আরও একজন।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে উপজেলার শেওড়াতলী এলাকায় মোটরসাইকেল রেস করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, সাভারের আশুলিয়া থানার গোহাইলবাড়ী এলাকার নুর ইসলামের ছেলে শফিউদ্দিন (১৮) ও একই এলাকার নুরুল আমীনের ছেলে রায়হান (২০)।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সোমবার বিকেলে ধামরাই মাওনা আঞ্চলিক সড়কে কালিয়াকৈর উপজেলার শেওড়াতলী এলাকায় ঘুরতে এসে দুটি মোটরসাইকেল প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে সড়ক থেকে ছিটকে পড়ে তারা। পরে স্থানীয়রা ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। আরও একজনকে গুরুতর আহতাবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এফ এম নাসিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, রোববার (১৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১০টার দিকে একই সড়কের কালিয়াকৈর বাইপাস এলাকায় দ্রুতগামী একটি বাস মোটরসাইকেলকে চাপা দিলে এক দম্পতির মৃত্যু হয়।

;

শিবগঞ্জে তেলের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বগুড়া
শিবগঞ্জে তেলের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

শিবগঞ্জে তেলের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ার শিবগঞ্জে তেলের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে মোকামতলা ইউনিয়নের মাটির ঘর এলাকাস্থ উত্তরা ট্রেডার্সে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিটের দুই ঘণ্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

দোকানটির ব্যবস্থাপক এনামুল হক জানান, বিকালে মেঘনা গ্রুপের একটি ট্যাংক লরি থেকে তেল নামানোর সময় বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের আগুন লাগে। এতে ট্যাংক লরিটি ভস্মীভূত হয়। এরপর দোকানে থাকা অসংখ্য গ্যাস সিলিন্ডার একের পর এক বিস্ফোরিত হতে থাকে। এসময় আগুন ছড়িয়ে পড়ে বসত বাড়িতে। এতে বসত বাড়ির কয়েকটি ঘর, ৫টি গরু, কয়েকশ ব্যারেল তেল আগুনে পুড়ে গেছে। বিস্ফোরিত হয় অসংখ্য গ্যাস সিলিন্ডার।

এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট লিডার শামছুল আলম জানান, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে শিবগঞ্জ, সোনাতলা, গোবিন্দগঞ্জ ও বগুড়া সদর ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট কাজ করেছে। দীর্ঘ ২ ঘণ্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এঘটনায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণে কাজ করা হচ্ছে।

;