‘মাথার মধ্যে একে-৪৭ তাক করা ছিল, ট্রিগার চাপলেই মারা যেতাম’



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফেনী
‘মাথার মধ্যে একে-৪৭ তাক করা ছিল, ট্রিগার চাপলেই মারা যেতাম’

‘মাথার মধ্যে একে-৪৭ তাক করা ছিল, ট্রিগার চাপলেই মারা যেতাম’

  • Font increase
  • Font Decrease

‘যখন আমাদের মুক্তি দিবে, পাশে দিয়ে ইউরোপীয়ান জাহাজ ও উপর দিয়ে বিমান যাচ্ছিল, তখন আমাদের মাথায় একে-৪৭ তাক করা ছিল। তারা বলছিল, জাহাজ থেকে যদি কিছু করার চেষ্টা করে, সবাইকে একসাথে মেরে ফেলবে। তাদের হাত ট্রিগারে দেয়া ছিল, ভুলেও যদি গুলি বের হতো, সাথে সাথে মারা যেতাম। এটি একটি দুঃস্বপ্ন, ভুলে যেতে চাই।’

এভাবেই জলদস্যুর হাতে জিম্মি থাকাকালীন সময়ের ঘটনা বর্ণনা করছিলেন জাহাজটির ইলেকট্রেশিয়ান পদে কর্মরত থাকা ফেনীর ইব্রাহিম খলিল উল্ল্যাহ বিপ্লব।

মঙ্গলবার (১৪ মে) সোমালিয়ার জলদস্যুর কবল থেকে মুক্ত হওয়া জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ দেশে পৌঁছেছেন। জাহাজটিতে থাকা ২৩ নাবিকের মধ্যে ছিলেন ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার ইব্রাহিম খলিল উল্ল্যাহ বিপ্লব। দীর্ঘ দুই মাস আটকে থাকার পর বিপ্লব ফেনীতে পরিবারের সদস্যদের কাছে এসেছেন। এসে জাহাজে জিম্মি থাকাকালীন সময়ের স্মৃতি তুলে ধরেন বিপ্লব।

বিপ্লব বলেন, দেশের মানুষের দোয়া, সরকারের সহযোগিতা ও আমার বাবা-মায়ের দোয়ায় আমি ফেরত এসেছি মৃত্যুর হাত থেকে৷ সরকার ও আমাদের কোম্পানি এস আর শিপিং এর কর্মকর্তারা আমাদের জন্য অনেক করেছেন। অর্থনৈতিকভাবে সাপোর্ট দিয়ে জীবিত ফেরত এনেছেন। ফেরত আসার অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করার মত না। ওই ২ মাস ছিল আমার জীবনের দুঃস্বপ্ন, সেটি শেষ হয়েছে এটিই জীবনের বড় পাওয়া।

জিম্মি থেকে মুক্ত হওয়ার ঘটনা বর্ণনা দিয়ে বিপ্লব বলেন, যখন আমাদের কোম্পানি মুক্তিপণ দিচ্ছিল, তখনকার একটি বিভীষিকাময় অভিজ্ঞতা হয়েছে।
তারা ৬৫ জন ছিল, সবার হাতে একে-৪৭ অস্ত্র ছিল। তারা আমাদের মাথার মধ্যে অস্ত্র ধরে রেখেছিল, ট্রিগারে তাদের হাত ছিল। একপাশ থেকে ইউরোপীয়ান যুদ্ধ জাহাজ যাচ্ছিল, উপর দিয়ে বিমান যাচ্ছিল। তখন তারা আমাদের বলেছিল, ওই সময় যদি কোনো কিছু করার চেষ্টা করে তারা আমাদের সেখানেই মেরে ফেলবে। মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত হতে বলেছিল। আমার কাছে মনে হয়েছিল, জীবন ওখানেই শেষ। এত ভয় জীবনে আর কোনোদিন পাইনি। আল্লাহ আমাদের বাঁচিয়েছেন।

জিম্মি হওয়ার প্রথমদিনের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, প্রথম যেদিন আমাদের আটক করে সেদিন সোমালিয়ার হাই রিস্ক জোন থেকে আমরা ৪৭০ নটিকেল মাইল দূরে ছিলাম। তারা একটি ইরানি ফিশিং জাহাজকে ১ মাস জিম্মি করে রেখেছিল। যখন আমাদের জিম্মি করছিল তখন আমি আমার ডিউটি রুমে যাচ্ছিলাম, তাৎক্ষণিক ইমারজেন্সি অ্যালার্ম বাজানো হয়েছে। ক্যাপ্টেন জানিয়েছে, জলদস্যু আমাদের জাহাজে আক্রমণ করছে। উপরে গিয়ে দেখি আমাদের চারপাশ ঘিরে ফেলেছে।

বিপ্লব বলেন, তখন থেকেই মনের মধ্যে ভয় শুরু হয়েছিল। ক্যাপ্টেন অনেক চেষ্টা করেছিল, যাতে তাদেরকে উঠতে না দেয়া যায়, কিন্তু তারা সশস্ত্র ছিল, ফলে উঠে যেতে সক্ষম হয়। উঠে তারা গুলি করে নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা করে। তখন ক্যাপ্টেন আমাদের বলছিল, গোপন কক্ষে যাওয়ার জন্য। আমরা যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম, ঠিক তখন আমাদের সেকেন্ড অফিসারের বুকে গুলি তাক করে, তখন সবাই তাদের সামনে বসে যাই। তারা আমাদের হাত উপর করতে বলে এবং জানায় তারা আমাদের জিম্মি করেছে।

তিনি বলেন, জিম্মি করার ২ দিন পর তাদের অন্য সদস্যরাও সশস্ত্র অবস্থায় জাহাজে আসে। সোমালিয়া কোস্টের পাশে নিয়ে যাওয়া হয় আমাদের। আমাদেরকে যত রকমের ভয় দেখানো যায় তারা দেখিয়েছে। প্রতিদিন আমাদেরকে ব্রিজে রাখত, সপ্তাহে একদিন পানি দিত গোসল করার জন্য। আমাদের খাদ্য সংরক্ষিত ছিল সেগুলো আমরা খেয়েছি। তবে তারা অধিকাংশ নষ্ট করেছে। সম্পূর্ণ জাহাজকে তারা নষ্ট করে ফেলেছে। এটি জীবনের ভয়াবহ একটি স্মৃতি। ঘুমালে মনে হতো, মাথা উঠালেই একে-৪৭ গুলি আমার মাথায় তাক করা আছে। এভাবে দিন কেটেছে।

সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বিপ্লব বলেন, দেশের মানুষ আমাদের চিনতো না, জানতো না। এরপরও তারা আমাদের জন্য দোয়া করেছে, দেশের মানুষের প্রতি আমৃত্যু কৃতজ্ঞতা। জলদস্যুরা আমাদের তখন বলতেছিল তোমাদের দেশের মিডিয়া অনেক ভালো, তোমাদের নিয়ে সর্বাত্মক খবর প্রচার করছে। তারা সবসময় বাংলাদেশের সকল নিউজ দেখছিল এবং আমাদের বলছিল। সাংবাদিকদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

উল্লেখ্য, মার্চ মাসের ১২ তারিখ কার্গো নিয়ে আফ্রিকার মোজাম্বিকের মাপুতো বন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাত যাওয়ার পথে দুপুরে এমভি আবদুল্লাহকে জিম্মি করে সোমালিয়ান দস্যুরা। পরে গত ১৩ এপ্রিল বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ৩টা ৮ মিনিটের দিকে এমভি আবদুল্লাহ থেকে দস্যুরা নেমে যায়। একই দিন বিকেলে দস্যুরা তাদের দাবি অনুযায়ী মুক্তিপণ বুঝে নেয়। একটি বিশেষ উড়োজাহাজে মুক্তিপণ বাবদ ৩ ব্যাগ ডলার এমভি আবদুল্লাহর পাশে সাগরে ছুড়ে ফেলা হয়। স্পিড বোট দিয়ে দস্যুরা ব্যাগ ৩টি কুড়িয়ে নেয়। দস্যুমুক্ত হয়ে ১৩ এপ্রিল দিবাগত রাতে সোমালিয়ার উপকূল থেকে আরব আমিরাতের পথে রওনা দেয় এমভি আবদুল্লাহ। ২১ এপ্রিল এমভি আবদুল্লাহ সংযুক্ত আরব আমিরাতের আল হামরিয়াহ পৌঁছে। সেখানে কার্গো খালাস করে জাহাজটি একই দেশের মিনা সাকার থেকে কার্গো লোড করে ১৪ মে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে দেশে ফেরত আসে।

   

নরসিংদীতে প্রতিপক্ষের হামলায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নরসিংদী
নরসিংদীতে প্রতিপক্ষের হামলায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহত

নরসিংদীতে প্রতিপক্ষের হামলায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিহত

  • Font increase
  • Font Decrease

নরসিংদীর রায়পুরায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচারণায় যাওয়ার সময় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. সুমন মিয়াকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ প্রার্থী রুবেল ও তার সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২২ মে) বিকেলে উপজেলার পাড়াতলী ইউনিয়নের মিরেরকান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের বেশ কয়কজন আহত হয়েছে।

সন্ধ্যায় আহত অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সুমনকে রায়পুরা তুলাতলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

মো. সুমন মিয়া চরসুবুদ্ধি ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন নাসুর ছেলে ও রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তালা প্রতীকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন।

নরসিংদীর সহকারী পুলিশ সুপার (রায়পুরা সার্কেল) আফসান আল-আলম ঘটনার সততা নিশ্চিত করে বলেন, ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. সুমন মিয়া উপজেলার পাড়াতলী ইউনিয়নে গণসংযোগ করতে যান। এসময় তার প্রতিপক্ষ প্রার্থী রুবেল ও তার সমর্থকরা হামলা করে। পরে স্থানীরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার পর উপজেলাজুড়ে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন সংস্থা কাজ করছে বলে জানান তিনি।

;

দুধ দিয়ে গোসল করলেন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জয় লাভের পর মো. এহসানুল হাকিম সাধনকে দুধ দিয়ে গোসল করালেন তার প্রতিবেশীরা।

বুধবার (২২ মে) নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যানের বাড়িতে তার সমর্থক ও এলাকাবাসী তাকে দুধ দিয়ে গোসল করান।

দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে মো. এহছানুল হাকিম সাধন বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মোটরসাইকেল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে তিনি ১ হাজার ভোট বেশি পেয়ে তিনি নির্বাচিত হন।

সমর্থক মো. জাকির হোসেন বলেন, ‘বিজয়োল্লাসের বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে চেয়ারম্যানকে দুধ দিয়ে গোসল করিয়ে বরণ করেছি।’

মো: এহসানুল হাকিম বলেন, আমার সমর্থক ও এলাকাবাসীর আবদার রক্ষার্থে দুধ দিয়ে গোসল করেছি।

তিনি আরও বলেন, দীর্ঘ ১৫ বছর আমার প্রতিদ্বন্দ্বী এই উপজেলায় রাজতন্ত্র কায়েম করেছিলেন। আমি বিজয়ী হওয়ার পরে জনমনে যে সন্তোষ দেখা দিয়েছে, তাতে মনে হচ্ছে তারা এতো দিন জেলখানায় ছিল। এখন মনে হচ্ছে- তারা মুক্ত আকাশে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তার প্রমাণ সকাল থেকে আমার বাড়িতে হাজার হাজার মানুষ আসছে। জনগণ আমাকে অনেক ভালোবাসে আর তাদের ভালোবাসা ভোট দিয়ে প্রমাণ করে দিয়েছে।

;

মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে ডিপোতে কাজে ফিরলেন সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম ব্যুরো
মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে ডিপোতে কাজে ফিরলেন সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা

মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে ডিপোতে কাজে ফিরলেন সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা

  • Font increase
  • Font Decrease

সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে তিন ডিপোতে ডাকা অনির্দিষ্ট কর্মবিরতির কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়েছে। মামলা প্রত্যাহার করার দাবি মেনে নেওয়ার পর কাজে যোগ দিয়েছেন কর্মচারীরা

অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেডের (এসএপিএল) ডিপোতে সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার (২১ মে) এসএপিএল, ইস্পাহানি ও ওসিএল ডিপোতে কর্মবিরতি শুরু করেন কর্মচারীরা।

এর প্রেক্ষিতে বুধবার (২২ মে) সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের কমিশনারের সভাপতিত্বে ত্রিপক্ষীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হয়। এরপর কাজে যোগ দেন সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম কাস্টমস এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহমুদ ইমাম বিলু। তিনি বলেন, ‘সিঅ্যান্ডেএফ কর্মচারীদের ওপর হামলার প্রতিবাদ ও বিচার দাবিতে ইউনিয়ন তিন ডিপোতে কর্মবিরতি পালন করছিল। কিন্তু ডিপোর রপ্তানি, বৈদেশিক মুদ্রা আহরণ, শিপমেন্ট ইত্যাদি বিষয় তাই আলোচনার মাধ্যমে দ্রুত সমস্যা সমাধান করার বিষয়ে আমাদের বার্তা ছিল। কাস্টম হাউসের কমিশনারের সভাপতিত্বে বিজিএমইএ, বিকডার প্রতিনিধির উপস্থিতিতে সভা হয়। এতে তিন দিনের মধ্যে সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ডিপো কর্তৃপক্ষের করা মামলা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এরপর সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা কাজে যোগদানের সিদ্ধান্ত নেন।

সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি কাজী মো. খায়রুল বাশার মিল্টনও একই কথা বলেন। তিনি বলেন, মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হওয়ায় আমরা কাজে যোগ দিয়েছি।

;

বরগুনায় বজ্রপাতে এক শিশুর মৃত্যু



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বরগুনা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বরগুনায় মায়ের সাথে ক্ষেতের ধান দেখতে গিয়ে বজ্রপাতে রিফাত (১২) নামের এক শিশুর মৃত্যুর হয়েছে।

বুধবার (২২ মে) বিকেল তিনটার দিকে বরগুনা পৌর শহরের সোনাখালী শীপেরখাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রিফাতের স্বজন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার সময় রিফাত তার মা সীমা বেগমের সাথে বাড়ির পাশে নিজেদের জমিতে হারবেস্টার মেশিনে ধান কাটা দেখতে যায়। তখন আকাশে হালকা মেঘের সাথে বজ্রপাত হচ্ছিল। হঠাৎ করে মা সীমা বেগমের সামনেই বজ্রপাত রিফাতের শরীরে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই ছেলে রিফাত ও মা সীমা বেগম দু’জনেই অজ্ঞান হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

এসময় আশেপাশে থাকা লোকজন ছুটে এসে রিফাত ও মাকে দ্রুত বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা জন্য নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক রিফাতকে মৃত্যু ঘোষণা করে এবং মা সীমা বেগম চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ কে এম মিজানুর রহমান বলেন, পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের সোনাখালী শীপেরখাল এলাকায় রিফাত নামের এক শিশুর বজ্রপাতে মৃত্যুর বিষয়টি আমাদের জানানো হয়েছে।

;