আবারও পানির দাম বাড়াচ্ছে চট্টগ্রাম ওয়াসা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম ওয়াসার কার্যালয়

চট্টগ্রাম ওয়াসার কার্যালয়

  • Font increase
  • Font Decrease

বন্দর নগরী চট্টগ্রামে চাহিদা অনুযায়ী পানি পাচ্ছেন না নগরবাসী। পর্যাপ্ত পানি সরবরাহ করতে না পারলেও ফের পানির দাম বাড়াচ্ছে চট্টগ্রাম ওয়াসা। ৫ মাসের ব্যবধানে পানির দাম প্রতি হাজার লিটারে ৬১ শতাংশ বৃদ্ধির প্রস্তাব করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

উন্নয়ন কার্যক্রমের খরচ সমন্বয় করতে দাম বৃদ্ধির এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় চট্টগ্রামে সিস্টেম লস কম বলেও দাবি করেন তিনি।

ওয়াসার তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রাম মহানগরীতে পানির চাহিদা প্রায় ৫০ কোটি গ্যালন। চাহিদার বিপরীতে বর্তমানে উৎপাদন হচ্ছে ৩৬ কোটি গ্যালন। গত মার্চে ওয়াসা আবাসিক খাতে প্রতি হাজার লিটার পানির দাম ৫ শতাংশ বাড়িয়ে ৯ টাকা ৯২ পয়সা করে। বাণিজ্যিক খাতে বাড়ায় ২৭ টাকা ৫৬ পয়সা। মাত্র ৫ মাসের ব্যবধানে পানির দাম আবারও বাড়িয়ে আবাসিক খাতে প্রতি হাজার লিটার ১৬ টাকা এবং বাণিজ্যিক খাতে ৪০ টাকা নির্ধারণ করে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে চট্টগ্রাম ওয়াসা।

সিটি কর্পোরেশনের তথ্যমতে চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকায় সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান মিলে হোল্ডিং সংখ্যা ১ লাখ ৮৫ হাজার ৫৩২টি। বর্তমানে ওয়াসার গ্রাহক ৭১ হাজার ১৩০।

পানির দাম বাড়ানো নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষের এই গণবিরোধী পানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সম্প্রতি গণজমায়েত কর্মসূচি পালন করেছে চট্টগ্রাম গণঅধিকার ফোরাম নামের একটি সংগঠন। রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। গণজমায়েত শেষে মিছিল নিয়ে ভারপ্রাপ্ত চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার শংকর রঞ্জন সাহার মাধ্যমে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার লক্ষ্যে স্মারকলিপিও দিয়েছে সংগঠনটি।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, চট্টগ্রাম শহরে ৬০ লাখ মানুষের বসবাস। অধিকাংশ নগরবাসী দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করছে। চট্টগ্রাম ওয়াসা গত সাত বছরে ৭ বার পানির দাম বৃদ্ধি করেছে। মাত্র ৫ মাস আগেও অযৌক্তিকভাবে ওয়াসা পানির দাম বাড়িয়েছে। ওয়াসা আইন অনুযায়ী ওয়াসা বছরে একবার মাত্র ৫ শতাংশ হারে পানির দাম বাড়াতে পারে। আর মুদ্রাস্ফীতিজনিত কারণে বা প্রয়োজনে ওয়াসা পানির দাম বাড়াতে পারে। এই সুযোগ নিয়ে ওয়াসা পানির দাম ৬২ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে দিয়েছে, যা চট্টগ্রাম শহরের ৬০ লাখ নগরবাসীকে চরম ভোগান্তিতে ফেলবে এবং বর্তমান সরকারকে জনপ্রিয়তার দিক থেকে বিপাকে ফেলবে।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, ওয়াসার সেবার মান অত্যন্ত নিম্ন। অনেক এলাকায় দুর্গন্ধ ও ময়লাযুক্ত পানি সরবরাহ করা হয়। ফলে নগরবাসী বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। শুধু তাই নয়, উন্নয়নের নামে শহরের অধিকাংশ এলাকায় খোঁড়াখুঁড়ির পর মাটি রাস্তায় ফেলে চট্টগ্রাম নগরীকে ধুলাবালির শহরে পরিণত করেছে, যা চট্টগ্রামবাসীকে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ফেলছে। সেবার মান উন্নত না করে, জনস্বার্থে যাচাই-বাছাই ছাড়াই ক্ষমতার অপব্যবহার করে পানির এই দাম বৃদ্ধি যেমন অগ্রহণযোগ্য তেমনি বেআইনি। এছাড়া নাগরিক সেবা দিতে চট্টগ্রাম ওয়াসা সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ। এর মধ্যে পানির দাম বৃদ্ধি করা কোনভাবে যুক্তিসঙ্গত নয়।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন ফোরামের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, মহাসচিব এমএ হাশেম রাজু, ভাইস চেয়ারম্যান আবু মোহাম্মদ হোসেন চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল হাকিম লোকমান, মোহাম্মদ মাঈনুদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ জাকির হোসেন, মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন, মোহাম্মদ সোলায়মান বাদশা, সহকারী মহাসচিব জানে আলম, মোহাম্মদ ইউসুফ, কালু চৌধুরী প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :