চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে প্রথমবারের মতো দুদকের গণশুনানি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির চিত্র নিয়ে গণশুনানি করতে যাচ্ছে। গণশুনানির জন্য সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে নিয়েছে দুদক কমিশন। আগামী ১৪ অক্টোবর শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দুদক। সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিতও করা হয়েছে।

দুদক জানিয়েছে, গণশুনানিতে জনগণ তাদের সকল ধরণের অভিযোগ দুদকে সরাসরি বা লিখিত আকারে জানাতে পারবে। চট্টগ্রামের বিভিন্ন সেবা সংস্থা নিয়ে এতদিন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) একাধিক গণশুনানির আয়োজন করলেও এই প্রথম সিটি করপোরেশনকে নিয়ে আলাদাভাবে আয়োজন করা হচ্ছে।

এছাড়া সিটি করপোরেশনের এই গণশুনানি সম্পন্ন করতে ব্যাপকভাবে প্রচার-প্রচারণার প্রস্তুতি নিয়েছে দুদক কমিশন। এ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালকের কার্যালয় থেকে একটি কমিটিও গঠন করেছে।

দুদক জানায়, কমিটিতে সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ ও ২ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাখা হয়েছে। দুদকের প্রধান কার্যালয়ের বিশেষ সভায় সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে নিয়ে প্রথম গণশুনানির দিন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে দুদকের কমিশনার (তদন্ত) এ এফ এম আমিনুল ইসলাম।

সূত্র জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন থেকেই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির বিষয়ে দুদকে একাধিক অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে দুদকের হটলাইন নম্বর ১০৬ এ অভিযোগের সংখ্যা ছিল বেশি। অতীতে সিটি করপোরেশনের কয়েকটি বিভাগে এমন অভিযোগ পাওয়ায় অভিযানও পরিচালনা করেছে দুদক কমিশন। যাতে অভিযোগের সত্যতাও পেয়েছে দুদক।

তাছাড়া করপোরেশনের একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিষয়েও দুর্নীতির অনুসন্ধান কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বিভাগটি। সব মিলিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানান দুদক সূত্র।

এদিকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনেকে নিয়ে হঠাৎ এমন গণশুনানির আয়োজনকে ভিন্ন দৃষ্টিতে দেখছেন দুদক কর্মকর্তারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুদকের কয়েকজন কর্মকর্তা বলেন, ‘সরকারি অন্যান্য অফিস বা দপ্তরগুলোতে দুদক নিয়মিত গণশুনানি করলেও সিটি করপোরেশন নিয়ে এখন পর্যন্ত গণশুনানির আয়োজন করা হয়নি। যার কারণে সিটি করপোরেশনের কর্মচারী থেকে কর্মকর্তাদের অনিয়ম-দুর্নীতির মাত্রা অনেক বেড়ে গেছে। এই বিষয়টি মাথায় রেখে এমন শুনানির আয়োজন করা হচ্ছে।’

গণশুনানিতে সঠিক তথ্য উপাত্ত নিয়ে যে কেউ তাদের অভিযোগ জানাতে পারবেন। তাছাড়া নগরীর একাধিক স্থানে দুদকের পক্ষ থেকে অভিযোগ জানানো বুথ ও ক্যাম্পেইন করার কথা রয়েছে।

এছাড়াও শুনানির তিনদিন আগ থেকে নগরীতে মাইকিং, পোস্টার, লিফলেট বিতরণ করা হবে এবং কেউ চাইলে দুদকের কার্যালয়ে এসে সরাসরি অভিযোগ জানাতে পারবেন বলেও জানিয়েছেন দুদক কমিশন।

আপনার মতামত লিখুন :