স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

স্টাফ করেসপন্ডেস্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, খুলনা
খুলনা জেলার মানচিত্র, ছবি: সংগৃহীত

খুলনা জেলার মানচিত্র, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যার দায়ে খুলনায় অন্তর হোসেন রমজান (৩৮) নামের এক ব্যক্তিতে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। স্ত্রী তৈয়েবা খাতুন (২২) ও ১৪ মাসের সন্তান রহিমকে নদীতে ফেলে হত্যা করায় তাকে এ মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে তাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

বুধবার (২ অক্টোবর) বিকেলে খুলনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মশিউর রহমান চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী এনামুল হক জানান, রমজানের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন। এ মামলায় ১৪ জনের মধ্যে ১১ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৭ জুন সকালে খুলনার খালিশপুর এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে অন্তর হোসেন রমজান বরিশালে আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে তার স্ত্রী তৈয়েবা খাতুন ও ১৪ মাসের ছেলে রহিমকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। বিকেলে রূপসা সেতু এলাকায় ঘুরতে আসে তারা।

একপর্যায়ে পূর্ব ঘটনার সূত্র ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ব্যাপক বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় রমজান হোসেন মায়ের কোল থেকে জোর করে বাচ্চাটিতে কেড়ে নিয়ে রূপসা নদীতে নিক্ষেপ করেন। তখন স্ত্রী তৈয়েবা খাতুন কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং চিৎকার করে সন্তানকে উদ্ধারের জন্য স্বামীর কাছে আকুতি মিনতি করতে থাকেন। একপর্যায়ে রমজান আরও ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রীকে হাত-পা চেপে ধরে নদীতে ফেলে দেয়। তখন মা ও ছেলে দুজনই পানিতে মারা যায়।

এ সময় সেতু এলাকায় ঈদ উপলক্ষে ঘুরতে আসা লোকজন রমজানকে ধরে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পরে এ ঘটনায় নিহত তৈয়েবা খাতুনের মা রশিদা বেগম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। ২ বছর ধরে বিভিন্ন সাক্ষ্যপ্রমাণ উপস্থাপনের পর এ রায় দিল আদালত।

আপনার মতামত লিখুন :