ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তার দিক থেকে বাংলাদেশ সেরা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
বক্তব্য দিচ্ছেন প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বক্তব্য দিচ্ছেন প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম বলেছেন, বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ সারা বিশ্বের মধ্যে সেরা। বাংলাদেশে যদি বেশি করে উদ্যোক্তা তৈরি হয়, তাহলে কর্মসংস্থানের কোনো অভাব এ দেশে হবে না।

বুধবার (২০ নভেম্বর) রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত ‘বাংলাদেশে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উন্নয়ন: জার্মানির অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা’-শীর্ষক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের কোনো বিকল্প নেই। যথাযথ উদ্যোগ ও দিক নিদের্শনা পেলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে ঘিরেই দেশের সমৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হবে। দেশে ২৫ লাখ তরুণ রয়েছে। এ তরুণরা উদ্যোক্তা হলে কর্মসংস্থান সমস্যার অনেকটাই সমাধান হয়ে যাবে।

একেকটি অঞ্চল, একেকটি দেশ এক একটি বিষয়ে সমৃদ্ধি অর্জন করে। বাংলাদেশে ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পের ইতিহাস অনেক সমৃদ্ধ। এদেশের মানুষ অত্যন্ত পরিশ্রমী; উপযুক্ত নেতৃত্ব ও সহযোগিতা পেলে তারা অসাধ্য সাধন করতে পারে। ভারী শিল্প স্থাপনে দেশ সক্ষম, তবে কাঁচামালের অপ্রতুলতাসহ এক্ষেত্রে কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। আমদানি নির্ভর কাঁচামাল দিয়ে ভারী শিল্পে সমৃদ্ধি অর্জন সম্ভব নয়। দেশকে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প দিয়েই এগিয়ে যেতে হবে, যোগ করেন শাহরিয়ার আলম।

এ সভায় আরো বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিকুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে আলোচকরা বলেন, শিল্পে জার্মানি উন্নত দেশ। এ দেশে অনেক বড় শিল্পের মাঝে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শিল্প রয়েছে। তারা প্রযুক্তি ও বাজারজাত করতেও দক্ষ। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প গড়তে জার্মানির অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে পারে বাংলাদেশ।

আপনার মতামত লিখুন :

এ সম্পর্কিত আরও খবর