রংপুর জেলা আ’লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন, এক নম্বর সদস্য জয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে, ছবি: সংগৃহীত

রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে এক নম্বর সদস্য করে রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৯ জনকে কমিটির বিভিন্ন সম্পাদকীয় পদে রাখা হয়েছে।

গঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির সদস্যদের নাম বুধবার (২৭ নভেম্বর) রাতে সাংবাদিকদের কাছে প্রকাশ করা হয়। নতুন এই কমিটির সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাজু। আগামী তিন বছর (২০১৯-২০২২ সাল) নতুন এই কমিটি দায়িত্ব পালন করবে।

কমিটির অন্যরা হলেন- সহ-সভাপতি হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, একেএম ছায়াদত হোসেন বকুল, জয়নাল আবেদীন, হাকিবুর রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু, মাজেদ আলী, হাকিম সর্দার, উৎপল সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোজী রহমান, আনোয়ারুল ইসলাম, মোতাহার হোসেন মওলা, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান চৌধুরী তুহিন, তৌহিদুর রহমান টুটুল, ওয়াজেদুল ইসলাম।

এছাড়া দফতর সম্পাদক আমিন সরকার, উপদফতর সম্পাদক এরশাদুল হক রঞ্জু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক লতিফা শওকত, আইন বিষয়ক সম্পাদক জিয়াউল হাসান জিয়া, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মিজানুর রহমান তুহিন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আবু তালহা মো. বিপ্লব, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নাছিমা জামান ববি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মনি, শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক জাসেম বিন জুম্মন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আতিক-উল-আলম কল্লোল, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ফখরুল হাসান লিউ।

নতুন কমিটিতে সজীব ওয়াজেদ জয় ও রংপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক সদস্য পদে রয়েছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিলররা সভাপতি পদে ৬ জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৭ জনের নাম প্রস্তাব করে। কিন্তু প্রার্থীদের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তে কমিটি চূড়ান্ত হয়।

এতে রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাজুকে মনোনীত করা হয়। পরে নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে আগামী তিন বছরের জন্য পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :