চট্টগ্রামের নগর বিন্যাসে স্বাধীনতার শিল্পিত প্রকাশ

ড.মাহফুজ পারভেজ, অ্যাসোসিয়েট এডিটর, বার্তা২৪.কম
চট্টগ্রামে স্বাধীনতার শিল্পিত প্রকাশ, ছবি: বার্তা২৪.কম

চট্টগ্রামে স্বাধীনতার শিল্পিত প্রকাশ, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বের শ্রেষ্ঠতম নগরগুলোর স্থাপত্য ও আরবান কাঠামোয় নান্দনিকতা, ইতিহাস, পরিবেশ ও প্রযুক্তি হাত ধরাধরি করে চলে। নগর বিন্যাসে নান্দনিকতার মুগ্ধ আয়োজন একটি মহত্তম নগরের পূর্বশর্ত। বাংলাদেশের দ্বিতীয় প্রধান শহর, বন্দরনগরী চট্টগ্রামেও সংযোজিত হয়েছে তেমনই অগ্রসরতা।

চট্টগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট নাসিরাবাদ-ষোলশহর এলাকায় জ্বলজ্বল করছে স্বাধীনতার অম্লান বিজয়গাঁথা। শৈল্পিক বিন্যাসে চিত্রিত হয়েছে বাঙালির জাতীয়ধ্বনি 'জয় বাংলা'। নান্দনিক আবহে উপস্থাপিত হয়েছে বাঙালির মুক্তির সনদ 'ছয় দফা'।

পুষ্প শোভিত উদ্যানটি যেন ইতিহাসের কণ্ঠে কথা বলছে সংগ্রাম ও বিজয়ের। প্রতিদিন শত শত মানুষ দেখছেন ইতিহাসময় স্থাপনা। বিনোদন, বিশ্রাম, ইতিহাসের পাঠগ্রহণ চলছে একই সাথে। আধুনিক জীবনের ঘেরাটোপে অনিন্দ্য সুষমায় ভরিয়ে দিচ্ছে এই আধুনিক ও রাজনৈতিক ইতিহাস্পর্শী স্থাপনা।

রাতের আলোকমালায় এখানে উদ্ভাসিত হয় বীর চট্টলার ঐতিহাসিক বিভা। বৃক্ষ ও পল্লবের ফাঁকে ফাঁকে দেখা যায় উচ্চশিরে উদ্ভাসিত স্বাধীনতা, বিপ্লব ও বিজয়ের দ্যোতনা।

চট্টগ্রাম নগর বিন্যাসে ইতিহাস ও নান্দনিকতার শিল্পিত মেলবন্ধনকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক লেখক-গবেষক নাজমুল ইসলাম চৌধুরী চিহ্নিত করেছেন পাঠাগার নামে, যেখানে বীর চট্টলার সংগ্রামশীলতার অন্তঃস্রোত প্রবাহিত হচ্ছে। তিনি বলেন, 'স্বাধীনতা একটি জাতির জন্য অপরিহার্য। চট্টগ্রাম হলো স্বাধীনতা ও সংগ্রামের সূতিকাগার।'

বীর চট্টগ্রাম নামে পরিচিত এই মহানগর ও মহাজনপদের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের পরতে পরতে মিশে আছে স্বাধীনতার দুর্নিবার আলেখ্যসমূহ। সূর্যসেন, প্রীতিলতা, কাজেম আলি মাস্টার হয়ে চট্টগ্রাম বহন করেছে স্বাধীনতার অনির্বাণ চেতনা।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রথম প্রহরেই চট্টগ্রাম থেকে ঘোষিত হয় স্বাধীনতার ধ্বনি। বাঙালির সংগ্রামে ও প্রতিরোধ যুদ্ধের ইতিহাসেও চট্টগ্রাম সামনে কাতারে থেকে প্রজ্জ্বলিত করেছে স্বাধীনতার অম্লান শিখা।

চট্টগ্রামের নাগরিক স্থাপত্যে ও নগর কাঠামোর ক্রম-সম্প্রসারণশীল বিন্যাসে স্বাধীনতার উপস্থিতি অপরিহার্য, যা শৈল্পিকভাবে প্রকাশিত হয়েছে নাসিরাবাদ-ষোলশহর পয়েন্টে। নগরের আইকম রূপে প্রকৃতি ও আধুনিকতার মেলবন্ধনে উপস্থাপিত স্বাধীনতার শিল্প-স্থাপনা চট্টগ্রামের ঐতিহ্য ও ইতিহাসকে দিয়েছে যথার্থতা।

প্রতিটি ঐতিহ্যবাহী শহরের একটি ব্র্যান্ডিং অগোচরেই গড়ে উঠে কোনও কোনও তাৎপর্যপূর্ণ প্রতীক বা স্থাপনার মাধ্যমে। সাম্য, মৈত্রী, স্বাধীনতার শহর প্যারিসে রয়েছে আইফেল টাওয়ার। ব্যক্তি স্বাধীনতার প্রতীক হয়ে নিউইয়র্কে আছে স্ট্যাচু অব লিবার্টি। গণতন্ত্রের আঁতুড়ঘর ইংল্যান্ডের রাজধানী লন্ডনে আছে পার্লামেন্ট ভবন। ভারতের রাজধানী দিল্লিতে রয়েছে ইন্ডিয়া গেট।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় বাঙালির রাজনৈতিক সংগ্রামের পূর্বসূরি ভাষা ও সাংস্কৃতিক সংগ্রামের লেলিহান আইকন রূপে আছে শহীদ মিনার। সংগ্রামের পীঠস্থান চট্টগ্রামও আইকন হিসেবে পেয়েছে স্বাধীনতার শিল্পিত উদ্ভাসন।

আপনার মতামত লিখুন :