সিলেটে মঙ্গলবার থেকে করোনা পরীক্ষা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, সিলেট
এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল/ছবি: সংগৃহীত

এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল/ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিলেটে মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) থেকে শুরু হচ্ছে করোনা পরীক্ষা। এ লক্ষে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনাভাইরাস পরীক্ষার পলিমার চেইন রি-অ্যাকশন (পিসিআর) মেশিন স্থাপন করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, গত ৩০ মার্চ করোনাভাইরাস পরীক্ষার পিসিআর মেশিন ও সরঞ্জাম সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসে পৌঁছে। সেদিনই তা অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগে (মাইক্রোবায়োলজি ও ভাইরোলজি) স্থাপন করার কাজ শুরু হয়। সোমবার দুপুর ১২টায় স্থাপন শেষ হয়। করোনা পরীক্ষার জন্য প্রায় ৫শ কিটও এসেছে হাসপাতালে। এছাড়া এরই মধ্যে নার্স, চিকিৎসক ও টেকনিশিয়ানদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

এদিকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে করোনাভাইরাস শনাক্তে ৩১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ময়নুল হককে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেটের বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান বার্তা২৪.কমকে জানান, সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জের লোকদের পরীক্ষা করা হবে ওসমানী মেডিকেল কলেজে। তবে কেউ সরাসরি ওসমানী মেডিকেল কলেজে এসে পরীক্ষা করতে পারবেন না। যাদের করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দিবে তাদের রক্ত বা ঘামের স্যাম্পল সিভিল সার্জন কার্যলয় সংগ্রহ করে ওসমানী মেডিকেলে পাঠাবে।

ওসমানী মেডিকেল কলেজের হাসপাতালের পরিচালক মো. ইউনুছুর রহমান বার্তা২৪.কমকে বলেন, মঙ্গলবার থেকে হাসপাতালে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা শুরু হবে। তবে আমরা পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করবো না। আইইডিসিআর পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করবে।

তিনি জানান, একসঙ্গে সর্বোচ্চ ৯৬ জনের করোনা পরীক্ষা করা যাবে। পরীক্ষার ৪ ঘণ্টার মধ্যে ফলাফল পাওয়া যাবে।

শাহ আমানত বিমানবন্দরে সোয়া কোটি টাকার সিগারেট জব্দ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
শাহ আমানত বিমানবন্দরে সোয়া কোটি টাকার সিগারেট জব্দ

শাহ আমানত বিমানবন্দরে সোয়া কোটি টাকার সিগারেট জব্দ

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ১৪ লাখ ৫২ হাজার ৪০০ শলাকা সিগারেট জব্দ করেছে কাস্টম হাউজের কর্মকর্তারা। যার বাজার মূল্য ১ কোটি ১০ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বিজি-১৪৮ ফ্লাইটে করে এসব সিগারেট আসলে তা জব্দ করা হয়। যদিও বুধবার (০৬ জুলাই) সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন কাস্টম কর্তৃপক্ষ।

কাস্টমসের ডেপুটি কমিশনার নেয়ামুল হাসান জানান, গোপনে সংবাদে জানতে পারি ওই ফ্লাইটে আমদানি শর্তযুক্ত পণ্য আসতে পারে। তাই কাস্টমস কর্মকর্তারা বিমানবন্দরের কার্গো ওয়ারহাউসে চিরুনি অভিযান শুরু করে।

এ সময় বিভিন্ন কার্টুনে প্রাথমিকভাবে সন্দেহজনক পণ্যের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। পরে এসব কার্টুন কেটে বিভিন্ন (Super Slim ESSE Special Gold, Super Slim ESSE Special Light, Monde Strawberry Flavour & Benson Light) ব্র‍্যান্ডের সর্বমোট ৭ হাজার ২৬২ মিনি কার্টুনে ১৪,৫২,৪০০ শলাকা সিগারেট পাওয়া যায়। যার আনুমানিক বাজার মূল্য ১ কোটি ১০ লাখ টাকা।

তিনি আরও জানান, পণ্যচালানটিতে শর্তসাপেক্ষে আমদানিযোগ্য ও উচ্চ শুল্ক-কর আরোপযোগ্য পণ্য অর্থাৎ সিগারেট নিয়ে আসার মাধ্যমে বিপুল রাজস্ব ফাঁকির অপচেষ্টা করা হচ্ছিল। কিন্তু কাস্টমস কর্মকর্তরা নিষ্ঠা ও আন্তরিকতায় তা রুখে দেয়।

এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান এই কর্তকর্তা।

;

মাদক সেবন ও সংরক্ষণের দায়ে তিন ব্যক্তির কারাদণ্ড



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ)
মাদক সেবন ও সংরক্ষণের দায়ে তিন ব্যক্তির কারাদণ্ড

মাদক সেবন ও সংরক্ষণের দায়ে তিন ব্যক্তির কারাদণ্ড

  • Font increase
  • Font Decrease

মাদক সেবন ও সংরক্ষণের দায়ে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে তিন ব্যক্তিকে কারাদণ্ড ও জরিমানা প্রদান করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (০৬ জুলাই) সকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মারুফ।

এর আগে, ময়মনসিংহ বিভাগীয় গোয়েন্দা কার্যালয়ের পরিদর্শক খন্দকার নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি টিম গৌরীপুর অভিযান চালায়। অভিযানে ২৫০ গ্রাম গাঁজা ও ০.৫ গ্রাম হেরোইনসহ তিন ব্যক্তিকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ড দেওয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- ডৌহাখলা ইউনিয়নের তাঁতকুড়া গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে জুয়েল মিয়াকে (৩৫) ১৮ মাস কারাদণ্ড ও ৩ হাজার টাকা জরিমানা, চুড়ালি গ্রামের মোচন মিয়ার ছেলে মো. সোহাগকে (৪০) ৩ মাস কারাদণ্ড ও ১ হাজার টাকা জরিমানা এবং নন্দীগ্রামের হারুন অর রশীদের ছেলে মো. সুমনকে (২৫) ৩ মাস কারাদণ্ড ও ১ হাজার টাকা জরিমানা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মারুফ বলেন, দণ্ডপ্রাপ্তদের কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদক নির্মূলে এই ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

;

প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, গ্রেফতার ১



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, গ্রেফতার ১

প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, গ্রেফতার ১

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালী সদর উপজেলায় এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীকে (২৬) ধর্ষণ ও তার নগ্ন ভিডিও চিত্র ধারণের অভিযোগে মো.কালাম ওরফে কালা মিয়া (৩০) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১। এ সময় অভিযুক্ত যুবকের কাছ থেকে ভিকটিমের আপত্তিকর ভিডিও সম্বলিত ১টি মোবাইল, ২টি সিম, ১টি মেমোরি কার্ড, ভিকটিমের আপত্তিকর ছবির স্ক্রিনশট উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার (০৫ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার সোনাপুর জিরো পয়েন্ট সংলগ্ন আল আকসা রেঁস্তোরার সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

গ্রেফতারকৃত মো.কালাম উপজেলার নোয়াখালী পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যম করিমপুর গ্রামের আবিদ মিয়ার বাড়ির মৃত নুরুল আমিনের ছেলে।

বুধবার (৬ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাব-১১, সিপিসি-৩ নোয়াখালী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার মো.শামীম হোসেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সানজিদা আক্তার (ছদ্মনাম) (২৬) একজন সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী। ভিকটিমের স্বামী সৌদি প্রবাসী হওয়ায় পিতার বাড়িতে ঘর নির্মাণ করে ছোট ২ ছেলে নিয়ে একা বসবাস করে আসছেন। আসামি কালাম ভিকটিমকে বিয়ের আগে থেকে প্রেমের প্রস্তাবসহ কু-প্রস্তাব দিত। বিবাহের পর ভিকটিমের স্বামী প্রবাসে চলে গেলে আসামি বাড়ির আঙিনা ও রাস্তা-ঘাটে ভিকটিমকে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে কু-প্রস্তাব দিত। গত ২৬ জুন রাত ১০টার দিকে ভিকটিম রাতের খাবার শেষ করে ছোট ছেলেকে ঘুম পাড়িয়ে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার জন্য ঘরের বাহিরে টয়লেটে যায়। ওই সুযোগে কালাম অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য ভিকটিমের অগোচরে বসত ঘরে প্রবেশ করে খাটের নীচে লুকিয়ে থাকে। এরপর রাত সাড়ে ১২টার দিকে ভিকটিম তার শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে মানুষের হাতের স্পর্শ অনুভব করায় ঘুম ভেঙে যায়। ঘরের মধ্যে বৈদ্যুতিক বাতির আলোতে ভিকটিম আসামি দেখতে পায়।

আরও বলা হয়, সানজিদা আক্তার ঘুমের ঘোরে থাকা অবস্থায় আসামি তার অজান্তে অশ্লীল আপত্তিকর ভিডিও ও স্থিরচিত্র ধারণ করে। পরবর্তীতে আসামি তার হাতে থাকা ১টি ছোরা ভিকটিমের ছোট ছেলের গলায় ধরে ভয়ভীতি প্রদর্শন করত ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর =পূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর থেকে আসামি ভিকটিম ও তার সৌদি প্রবাসী স্বামীকে মোবাইল করে ১০ লাখ টাকা দাবি করে এবং দাবিকৃত টাকা প্রদান না করলে ভিকটিমের অশ্লীল আপত্তিকর ভিডিও ও স্থিরচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহবধূ সুধারাম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেন।

;

এমপিওভুক্ত হলো ২ হাজার ৭১৬ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের ২ হাজার ৭১৬ বেসরকারি নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে।

বুধবার (৬ জুলাই) শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অনুমোদন শেষে ২ হাজার ৭১৬টি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এবিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী দুপুর ১টায় সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানাবেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে, ২ হাজার ৫১টি নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল এবং উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রি কলেজ এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। আর কারিগরি ও মাদরাসা পর্যায়ে এমপিওভুক্ত হয়েছে ৬৬৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

এর আগে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তির জন্য প্রাথমিক তালিকা করে এমপিও যাচাই-বাছাই কমিটি। এ তালিকা শিক্ষামন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়। মন্ত্রীর অনুমোদনের পর এটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন শেষে এটি চূড়ান্ত হয়।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (স্কুল ও কলেজ) এমপিওভুক্ত করতে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বিজ্ঞপ্তিতে ১০ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করতে বলা হয়।

;