হিলিতে ৩০ টাকার মরিচ ১০০ টাকা!

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, হিলি (দিনাজপুর)
কাঁচামরিচ/ছবি: বার্তা২৪.কম

কাঁচামরিচ/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

৫ দিনের ব্যবধানে দিনাজপুরের হিলি বন্দরে ৩০ টাকার কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি দরে। প্রকারভেদে ৫ দিন আগে একই মরিচ ৩০ থেকে ৪০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) বাজারে সেই কাঁচামরিচ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা দরে। টানা ৫-৬ দিনের বৃষ্টির কারণে মরিচের দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

হিলি বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী মিঠু আহমেদ বার্তা২৪.কমকে বলেন, হঠাৎ করে কয়েক দিনের মধ্যে মরিচের দাম বাড়ায় বিপাকে পড়তে হচ্ছে। ৩০ টাকার মরিচ ১০০ টাকা দাম চাওয়াতে অনেক ক্রেতাদের সাথে কথা কাটাকাটি হচ্ছে। ৫ দিন আগে ২৫ থেকে ৩০ টাকা দরে পাইকারি কিনে ৪০ টাকা দরে বিক্রি করেছি। এখন ৮০ থেকে ৮৫ টাকা দরে পাইকারি ক্রয় করে ১০০ টাকা কেজি দরে কাঁচামরিচ বিক্রি করছি। বেশি দামে কিনছি তাই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

বাজারে সবজি কিনতে আসা একজন দিনমজুর অভিযোগ করে বার্তা২৪.কমকে বলেন, বাজারে সব সবজির দাম মোটামুটি ঠিক আছে, কিছু সবজির দাম একটু বাড়ছে। কিন্তু কাঁচামরিচের দাম শুনে তো আমি আকাশ থেকে পড়লাম। গত কয়েক দিন কাঁচামরিচ কিনে ছিলাম মাত্র ৩০ টাকা, হাফ কেজি কিনে ছিলাম ১৫ টাকা দিয়ে। আজ সেই মরিচের দাম দেখি ১০০ টাকা কেজি। হঠাৎ এতো দাম হলে বাজারের হিসাব মিলাবো কি করে?

হিলি বাজারের কাঁচামরিচের পাইকারি ব্যবসায়ী রাশেদুল ইসলামেরর নিকট দাম বাড়ার কারণ জানতে চাইলে সে বার্তা২৪.কমকে বলেন, ৫-৬ দিনের টানা বৃষ্টির কারণে মরিচের দাম বেড়েছে। বৃষ্টিতে মরিচ খেতে অনেক মরিচ নষ্ট হয়ে গেছে। ক্ষতিতে পড়েছে মরিচ চাষিরা।

পাঁচবিবি থেকে মরিচ নিয়ে আসা মরিচ চাষি গোলাম রাব্বানী বার্তা২৪.কমকে জানান, প্রতি বছর আমি এক বিঘা জমিতে কাঁচামরিচ চাষ করে থাকি। মরিচের ভাল ফলন হয় এবং মোটামুটি দাম ভাল পায়। ক'দিন আগেও ২৫ টাকা দরে মরিচ পাইকারি দিয়েছে। ক'দিনের টানা বৃষ্টিতে মরিচের খেতে পানি জমা হয়েছে। যার কারণে মরিচ নষ্ট হয়ে গেছে। তাই ক্ষতিতে বেশি দামে বিক্রি করছি।

আপনার মতামত লিখুন :