গাইবান্ধাবাসীর জন্য ডেপুটি স্পিকারের নির্দেশনা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় নিজ নির্বাচিত এলাকা গাইবান্ধাবাসীর জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া।

তিনি বলেন, প্রিয় গাইবান্ধাবাসী আশাকরি আপনারা সবাই ভালো আছেন। আমি আপনাদেরই নির্বাচিত প্রতিনিধি ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া বলছি।

আপনারা বর্তমানে একটি মহামারি সংক্রামক ভাইরাস করোনার তাণ্ডব সম্পর্কে ইতিমধ্যে অবগত হয়েছেন।সাড়া বিশ্বকে আজ এক মহা সংকটের মোকাবেলা করতে হচ্ছে। বাংলাদেশেও এর প্রাদুর্ভাব ইতিমধ্যে পরিলক্ষিত হয়েছে। তবে আপনাদের আতংকিত হবার কিছু নেই বাংলাদেশ সরকার এ ভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে সদা সচেষ্ট। এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

করোনা ভাইরাস এমন একটি ভাইরাস যেটি অতি দ্রুত সংক্রমিত হয়। এর কোনও প্রতিষেধক যেহেতু এখনও আবিষ্কার হয়নি সেহেতু প্রতিরোধমূলক কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করলে এ ভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করা যায়।

আপনাদের কাছে আমার বিনীত অনুরোধ, আপনারা এ কয়েকটা দিন সকল প্রকার গণ সমাবেশ ও অহেতুক ঘোরাফেরা এড়িয়ে চলুন। নিজ গৃহে অবস্থান করুন। অতীব প্রয়োজন ব্যতীত বাহির হবেন না। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন। সাবান বা হ্যান্ড সেনিটাইজার দিয়ে বারবার হাত ধুয়ে ফেলুন।মাস্ক ব্যবহার করুন। সরকার ঘোষিত যে কোন নির্দেশনা মেনে চলুন। টেলিভিশনে নিয়মিত বুলেটিন দেখুন এবং করোনা প্রতিরোধে নির্দেশনা দেখুন , নিজে বুঝুন অন্যকেও বোঝান।

মনে রাখবেন আপনার পরিবার ও প্রতিবেশীর প্রতি আপনার দায়বদ্ধতা রয়েছে। সচেতন হউন, অন্যকে সচেতন করুন, নিজে বাঁচুন অন্যকেও বাঁচতে সাহায্য করুন। বিপদেই মনুষ্যত্বের আসল পরিচয়। তাই অবিবেচকের মত নিজের এবং অন্যের জীবনকে হুমকির মুখে ঠেলে দিবেন না। এ দেশ আপনার আমার সকলের।

আপনাদের কারো মধ্যে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ দেখা দিলে সাথে সাথে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ফোন করুন। যেকোনো দুর্যোগে এই জন-বান্ধব সরকার সবসময় আপনাদের পাশে ছিল এখনও আছে ভবিষ্যতেও থাকবে।

আমি আবারও আপনাদের অনুরোধ জানাচ্ছি সরকারের গৃহীত সিদ্ধান্ত ও নির্দেশনা মেনে প্রত্যেকে নিজ গৃহে অবস্থান করুণ। কোন প্রবাসীর সাথে সাক্ষাত হলে বা তার অবস্থানের খবর জানলে তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাতে বাধ্য করুন প্রয়োজনে স্থানীয় প্রশাসনের সাহায্য নিন। সকলের থেকে কমপক্ষে তিন ফুট নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। গুজবে আতংকিত হয়ে অযথা অতিরিক্ত পণ্য ক্রয় করে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি থেকে বিরত থাকুন।

পরম করুণাময় আল্লাহর রহমতে আপনারা যদি আতংকিত না হয়ে সতর্কতা ও সচেতনতার সাথে অবস্থান করেন তাহলে আল্লাহর রহমতে অতি অল্প সময়ে এ সংকট মোকাবেলায় আমরা সফল হব। আপনারা সবাই ভালো থাকবেন নিরাপদে থাকবেন।

আপনার মতামত লিখুন :