‘দেশে যাতে টিকা না আসে সেজন্য লবিস্ট নিয়োগ করেছে তারেক’



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ যাতে আর কোন দেশ থেকে ভ্যাকসিন আনতে না পারে সেজন্য বিএনপি-জামায়াত ও লন্ডনে বসে তারেক রহমান আন্তর্জাতিক লবিস্ট নিয়োগ করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) বিকালে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (​কেআইবি) মিলনায়তনে কৃষক লীগ আয়োজিত ‘বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি-২০২১’ উপলক্ষে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ অভিযোগ করেন।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, আজ সমগ্র দেশ এক বছরের অধিক সময় ধরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। এই কোভিড ভ্যাকসিন যখন পৃথিবীর অনেক উন্নয়নশীল দেশ দিতে পারে নাই তখন আমাদের নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ভ্যাকসিন এনে প্রমাণ করে দিয়েছেন তিনিই রাষ্ট্রনায়ক, তিনিই সারা বিশ্বের একজন সর্বশ্রেষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু দুর্ভাগ্য হলো, ওই বিএনপি নামক দলটি। ওই কুলাঙ্গাররা ভ্যাকসিন প্রত্যাখ্যান করেছিল। এই ভ্যাকসিন না নেওয়ার জন্য তারা বলেছিলেন। কিন্তু ভ্যাকসিন এসেছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। শেখ হাসিনার নির্দেশে ভ্যাকসিন নিয়েছে দেশের মানুষ।

তিনি আরও বলেন, দুঃখজনক হলো, আজকে যখন বাংলাদেশে আবার ভ্যাকসিনের প্রয়োজন তখন ওই কুলাঙ্গাররা, ওই বিএনপি-জামায়াত আর লন্ডনে বসে কুলাঙ্গার তারেক রহমান আন্তর্জাতিক লবিস্ট নিয়োগ করেছে, যাতে বাংলাদেশ আর কোন দেশ থেকে ভ্যাকসিন আনতে না পারে। ধিক তোমাদের রাজনীতিকে।

প্রসঙ্গত, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্মদিন সম্পর্কে সরকারের কাছে থাকা সব নথিপত্র ৬০ দিনের মধ্যে দাখিল করতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ভিন্ন ভিন্ন জন্মদিনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে শনিবার (১২ জুন) হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মামুন অর রশিদ।

এ বিষয়ে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, উচ্চ আদালতে মামলা হয়েছে বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন ১৫ আগস্ট পালন নিয়ে। বেগম খালেদা জিয়া বাংলার মানুষের হৃদয়ে আঘাত করেছিলেন যখন ১৫ আগস্ট তার জন্মদিন পালন করেছেন। সত্যের বাতি তিল তিল করে জ্বলে। সত্যকে কোনদিন ধামাচাপা দেওয়া যায় না।

খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্যে করে তিনি আরও বলেন, আপনার স্বামী জিয়াউর রহমান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছে ওই দিনটিতে আর আপনি পাকিস্তানি আইএসআইকে খুশি করার জন্য ১৫ আগস্ট মিথ্যা জন্মদিন পালন করে কেক কেটে আমাদের সঙ্গে বাংলার মানুষের সঙ্গে উপহাস করেছিলেন। যখন শয্যাশায়ী হয়ে গেলেন তখন জন্মদিনের তারিখটি মনের ভুলে লিখে ফেলেছিলেন ওই হাসপাতালের বেডে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আদালতে মামলা হয়েছে জন্ম তারিখের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দেবে আদালত? কি অপরাধ করেছে বেগম জিয়া, কি অপরাধ করেছেন আপনারা? সেটি আদালত রায় দেবে তার জন্য অপেক্ষা করেন? আদালত স্বাধীন রয়েছে। তাই মির্জা ফখরুলের আতে ঘা লেগেছে। সে কারণে আজকে বলেছে এই দেশে আদালত নিরপেক্ষ নয়? কি কারণে নিরপেক্ষ নয়? বেগম খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখের ব্যাপারে নির্দেশনা দেবে সেই কারণে? এমন প্রশ্ন তোলেন নানক।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে নানক বলেন, আপনাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে সাহসী নেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের জাতিকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তার নেতৃত্বে যেমনি বিএনপির সকল ষড়যন্ত্রকে ব্যর্থ করে দেওয়া হয়েছিল, যেভাবে বিএনপি-জামায়াত-হেফাজতের সকল ষড়যন্ত্রকে
ব্যর্থ করে দেওয়া হয়েছিল, তেমনি আজকেও আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ থাকার মধ্য দিয়ে সাংগঠনিক শক্তি অর্জনের মধ্য দিয়ে, জনগণের সঙ্গে আত্মার আত্মীয়তা গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে তাদের সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দিতে হবে।

কৃষকলীগের নেতৃত্বে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিসহ তাদের সাংগঠনিক কার্যক্রমের গতিশীলতার বিষয়েও প্রশংসা করেন আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনসহ অন্যান্যরা। সভায় সভাপতিত্ব করেন কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ এবং সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি।