‘দুর্নীতির টাকায় ভোগ বিলাস হয়, মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যায় না’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
যুবলীগের কংগ্রেসে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

যুবলীগের কংগ্রেসে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্নীতির টাকায় ভোগ বিলাস করা যায় তবে দেশে মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

যুব সমাজের উদ্দেশে তিনি বলেন, যুব সমাজকে মনে রাখতে হবে, ভোগে নয়, ত্যাগেই প্রকৃত সুখ। যুবসমাজকে মাদক সন্ত্রাস দুর্নীতি থেকে দূরে থাকতে হবে। কি পেলাম, কি পেলাম না-এসব নিয়ে না ভেবে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণের কথা চিন্তা করে রাজনীতি করতে হবে। যারা মানুষের চিন্তা করে রাজনীতি করে তারাই সফল হয়। দুর্নীতি করে হয়ত টাকা-পয়সা উপার্জন করা যায়, এতে চাকচিক্য বাড়ে, মানুষকে দেখানো যায় কিন্তু সম্মান পাওয়া যায় না। ভোগের ভেতর দিয়ে আত্মতুষ্টি পেতে পারে। কিন্তু দেশের মানুষের মন পাওয়া যায় না।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেসে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল বাংলাদেশ। এটা আমার কথা নয়, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। মনে রাখতে হবে একটি দেশের বড় সম্পদ যুব সমাজ। তার মেধা, জ্ঞান ও প্রজ্ঞা। আর এসবকে  কাজে লাগাতে হবে। রাজনীতিবিদ হতে হলে আদর্শ থাকতে হবে। জাতি পিতার জীবনী পড়তে হবে। তাহলে একজন নেতা কিভাবে দেশকে ভালোবাসেন, মানুষের জন্য আত্মত্যাগ করতে পারেন তা জানা যাবে।

যুবলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সব সময় মনে রাখতে হবে সৎ থেকে রাজনীতি করার বিষয়টি। চাঁদার টাকার হিসেব না করে জনকল্যাণে কাজ করতে হবে। 

স্বাধীনতার সুফল পৌঁছে দিতে কাজ করছে আওয়ামী লীগ জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, বৈরী পরিবেশে রাজনীতি করে এসে ২১ বছর পর ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। এরপর দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ শুরু করল। কোনো সরকার মানুষের জন্য কাজ করতে পারে এটা মানুষ জানল। বেকারত্ব দূর, শিক্ষার হার বৃদ্ধি, দারিদ্রতা দূর এসব নিয়ে কাজ করছিলাম। কিন্তু এরপর ২০০১ সালে আমাদের আসতে দিলো না। এখন টানা ১০ বছর জাতির পিতার দেখানো পথে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল। মানুষের ঘরে ঘরে স্বাধীনতার সুফল পৌঁছে দিতে আওয়ামী লীগ কাজ করে যাচ্ছে।  

এর আগে বেলা ১১টা ৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী সম্মেলন স্থলে এসে পৌঁছানোর পরে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে কংগ্রেসের উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, যুবলীগ সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভাপতি চয়ন ইসলাম, সদস্য সচিব হারুনুর রশীদসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কংগ্রেসের দ্বিতীয় অধিবেশন বসবে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে। সেখানেই যুবলীগের নতুন চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :