করোনার ঝুঁকি উপেক্ষা করে খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে নেতাকর্মীরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে নেতাকর্মীরা, ছবি: বার্তা২৪.কম

খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে নেতাকর্মীরা, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

শর্ত সাপেক্ষে বিএনপি’র চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ৬ মাসের জন্য সাজা স্থগিত রেখে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) বিকেলে গুলশান অফিসে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রচারের পরপরই করোনাভাইরাসের ভয় উপেক্ষা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভিড় করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

তবে বিএনপির পক্ষ থেকে নেতাকর্মীদের বিএসএমএমইউ (পিজি) হাসপাতালের সামনে ও গেটের ভেতরে জমায়েত না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে জমায়েতের কারণে চলমান করোনাভাইরাস মহামারির ভয়াবহ বিপর্যয়ের সময়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ হাসপাতাল সংশ্লিষ্টরা এবং জমায়েত হওয়া দলীয় নেতাকর্মীরা উচ্চ ঝুঁকিতে পড়তে পারেন। তাই সকল নেতাকর্মীকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আরোগ্য কামনা এবং করোনাভাইরাসের মরণ ছোবল থেকে দেশবাসীসহ বিশ্ববাসীকে রক্ষার করতে মহান রাব্বুল আলামীন এর নিকট দোয়া করার জন্য অনুরোধ জানানো হলো।

রাত আটটা পর্যন্ত সরজমিনে দেখা যায় গেটের ভিতরে ও বাইরে নেতাকর্মীরা ভিড় করে আছেন।

নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা হলে তারা বার্তা২৪.কমকে জানান, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির হবে শুনে আমরা এসেছি। আমাদের নেত্রীর এক নজন দেখার জন্য বিকাল থেকে এখানে দাঁড়িয়ে আছি। কখন মুক্তি হবে বা আজ হবে নাকি কাল হবে তা জানি না।

রবিউল নামের একজন বার্তা২৪.কমকে জানান, ম্যাডামের মুক্তি হবে শুনে বিকাল ৫টা থেকে এখানে আছি। আমাদের ভিতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।

করোনাভাইরাসের কারণে জামায়াতে না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে, তারপরও কেনো আপনারা এসেছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, দল থেকে তো অনেক কথায় বলা হয়, সব কথা শুনলে তো হবে না। পুলিশের ভয়ে তারা (নেতারা) ঘর থেকেই বের হয়না। অন্যদিকে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আমরা দিনের পর দিন রাস্তায় মার খেয়েছি।

আপনার মতামত লিখুন :