সাকিবের নিষেধাজ্ঞার শেষদিন আজ



স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
ফের মাঠে ফেরার প্রতীক্ষায় সাকিব আল হাসান

ফের মাঠে ফেরার প্রতীক্ষায় সাকিব আল হাসান

  • Font increase
  • Font Decrease

২৯ অক্টোবর ২০২০ এর সকালটা সাকিব আল হাসানের জন্য অন্যরকম হবে। এদিনের সকালটাই তার জন্য নিয়ে আসছে স্বস্তির প্রহর। ক্রিকেট দুনিয়ায় এদিন থেকেই মুক্ত সাকিব। আইসিসি’র এক বছরের ক্রিকেট নিষেধাজ্ঞা সাকিবের শেষ হচ্ছে ২৯ অক্টোবর। এদিন থেকেই সব ধরনের ক্রিকেটে ফিরতে তার আর কোন বাধা নেই।

গেল বছরের ২৮ অক্টোবর আইসিসি বাংলাদেশের সেরা এই অলরাউন্ডারকে সব ধরনের ক্রিকেটে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে। বিতর্কিত এক ভারতীয় ক্রিকেট জুয়াড়ির কাছ থেকে পাওয়া প্রস্তাবের বিষয়টি সাকিব আইসিসি বা নিজ বোর্ডের যথাযথ কর্তৃপক্ষকে না জানানোর বিধি ভঙ্গ করেন। তারই প্রেক্ষিতে আইসিসি’র দুর্নীতি দমন বিভাগ (আকসু) এক তদন্ত করে। সেই তদন্ত কমিটির কাছে সাকিব নিজের ভুল স্বীকার করেন। দীর্ঘ সময় চলা সেই তদন্ত শেষে আইসিসি সাকিবকে এক বছরে জন্য সব ধরনের ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করে। সাকিব সেই শাস্তি মেনে নেন।

তার একবছরের সেই শাস্তির শেষদিন আজ ২৮ অক্টোবর।

ক্রিকেটে ফিক্সিং বিতর্কে জড়িয়ে বাংলাদেশের আরেক সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলও লম্বা সময়ের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। বিপিএলে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে আশরাফুল পাঁচ বছর সব ধরনের ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞা পেয়েছিলেন। তবে পার্থক্য হলো আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞার সেই শাস্তি দিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আর সাকিবকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

বাংলাদেশ দলে ২০০৬ সালের ৬ আগস্ট সাকিব আল হাসানের ক্রিকেট অভিষেক হয়। এখন পর্যন্ত ৫৬ টেস্টে সাকিবের রান ৩৮৬২। সেঞ্চুরি ৫টি। উইকেট শিকার সংখ্যা ২১০। ২০৬টি ওয়ানডে ম্যাচে সাকিবের রান ৬৩২৩। ওয়ানডে সেঞ্চুরি করেছেন ৯টি। বাংলাদেশের হয়ে ৭৬টি আর্ন্তজাতিক টি- টোয়েন্টিতে সাকিবের রান ১৫৬৭। সর্বোচ্চ রান ৮৪। উইকেট সংখ্যা ৯২।

পরিসংখ্যান, পারফরমেন্স, র‌্যাঙ্কিং, প্রতিভা এবং ম্যাচ উইনিং মানসিকতা-সবকিছুর যোগফলে সাকিব আল হাসান বাংলাদেশের সবসময়ের সেরা ক্রিকেটার। লম্বা সময়ের জন্য টেস্ট এবং ওয়ানডেতে বিশ্বের নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডারের র‌্যাঙ্কিংয়ে ছিলেন সাকিব।

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফেরার পর নিজের হারানো সেই কৃতিত্ব ফিরে পাওয়ার লড়াইয়েও নামতে হবে সাকিবকে।