বাংলাদেশি ব্র্যান্ডের ক্রিকেটেই অধিনায়ক তামিমের নজর



স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
ব্যাট হাতে ক্যাপ্টেন তামিম ইকবাল

ব্যাট হাতে ক্যাপ্টেন তামিম ইকবাল

  • Font increase
  • Font Decrease

নিজস্বতায় বিশ্বাসী তামিম ইকবাল। অন্ধের মতো কাউকে অনুসরণ করতে মোটেও রাজি নন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। পেছনের বেশকিছু সময় ধরে বাংলাদেশ নিজস্ব ব্র্যান্ডের ক্রিকেটই খেলে আসছে। নিজেদের এই স্টাইলের ক্রিকেটকে প্রতিষ্ঠিত করতে চান তামিম ইকবাল। 

প্রশ্ন হলো সেই স্টাইলটা কেমন? 

ঠিক সবসময়ের জন্য মারকাটারি নয়। সময় এবং সুযোগ বুঝে সেই উপযোগি ক্রিকেট খেলা। পরের ব্যাটসম্যানের জন্য খেলাটা সহজ করা। দলীয় সংহতির ওপর বিশ্বাস রেখে সামনে চলা। আস্থা রাখা এই দলটা কোন এককের কৃতিত্বে নয়, একজোটের শক্তিতে জিতে। দলের এগার জনের যে কেউ যে কোনদিন দলকে জেতানোর ক্ষমতা রাখে। এই বিশ্বাসটাই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ব্র্যান্ড।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজেও তামিম ইকবাল বাংলাদেশের এই পরিচিত ব্র্যান্ড এর ক্রিকেটই খেলতে চান। সিরিজ শুরুর আগে ১৯ জানুয়ারি, মঙ্গলবার তামিম ইকবাল ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনেও সেই প্রতিশ্রুতিই দিলেন-‘আমি সবসময় প্রায়েরোটি দিই যে আমাদের বাংলাদেশি ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট ডেভেলপ করতে হবে। প্রত্যেকটা দেশের নিজের নিজের স্টাইল আছে। সুতরাং আমার মনে হয়না আমাদের অন্য কাউকে ফলো করা উচিত। আমরা হয়তো ওয়েস্ট ইন্ডিজের মত স্ট্রং না, বা অস্ট্রেলিয়ার মত বিল্ড আপ না। তবে আমাদের এমন অনেক অ্যাডভান্টেজ আছে যা অন্যদের টিমে নাই। আমি যেটা তৈরি করতে চাই সেটা হল বাংলাদেশি ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট, যেটা আমরা খেলি। আমরা অন্যদের ফলো না করে ওটাতেই ফোকাস করতে চাই। আমাদের যেখানে স্ট্রেংথ, যেগুলো দিয়ে আমরা ভাল খেলতে পারি সেটাই আমাদের ব্র্যান্ড। সেখানেই আমরা ফোকাস করছি।' 

এই সিরিজে সবার নজর তামিম ইকবালের অধিনায়কত্বের ওপরও। এর আগেও তিনি দলের অধিনায়কত্ব করেছেন। তবে সেটা ছিল স্টপগ্যাপ ক্যাপ্টেন্সি। এই প্রথম পূর্নাঙ্গ কোন সিরিজে আনুষ্ঠানিকভাবে অধিনায়ক তামিম। বিসিবিও তাকে লম্বা সময়ের জন্য অধিনায়ক হিসেবে চাইছে। সেই বিবেচনায় এই সিরিজ হতে যাচ্ছে অধিনায়ক তামিম ইকবালের জন্য প্রথম বড় পরীক্ষা। 

তামিম নিজেও জানেন বাড়তি এই পরীক্ষার বিষয়ে। বলছিলেন-‘এটা একটা ভাল দিক বলতে পারেন যে, আর্ন্তজাতিক ক্রিকেটে ক্যাপ্টেন্সি শুরু করার আগে আমি ঘরোয়া দুটো টুর্নামেন্টে ক্যাপ্টেন্সি করতে পেরেছি। করোনা মহামারীর কারণে দুর্ভাগ্যবশত আমরা বেশ কিছু সিরিজ মিস করেছি। ঘরের মাঠে দুটো টুর্নামেন্টই আমার জন্য কঠিন ছিল। কঠিন ছিল বলে অনেক কিছু শিখতে পেরেছি। যদি ভাল করে থাকি তাহলে সেটা সামনে এগিয়ে নিব। আর স্টাইল অব ক্যাপ্টেন্সি সময়ের সাথে সাথে তৈরি হবে। এখন যদি আমি একটা কথা বলি আর সিচুয়েশন মাঝখানে ভিন্ন হয় এটার কোন মূল্য নেই। আমার কাছে মনে হয় সময়ের সাথে সাথে মানুষ বুঝতে পারবে, আর আমিও বুঝতে পারব আমি কোন দিকে যাচ্ছি। কোন সিচুয়েশনে খেলছেন সেটাও আপনাকে বিবেচনা করতে হবে। কিছু সময় আপনাকে ভিন্ন ভাবে চিন্তা করতে হয়।' 

আর চাপের প্রসঙ্গে পুরানো কথাতেই ফিরে গেলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক-‘যখনই আপনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেন না কেনো, চাপ সবসময়ই থাকে। গুরুত্বপূর্ণ হলো সেটাতে আপনি কিভাবে মানিয়ে নিচ্ছেন।’ 

তামিমের সেই চাপ এবং মানিয়ে নেয়ার পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২০ জানুয়ারি থেকে। এদিনই সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। মিরপুরে ম্যাচটি শুরু হবে সকাল সাড়ে এগারটায়।