রাসেল-নিতিশের জাদুতেও হারল সাকিবের কলকাতা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
আন্দ্রে রাসেল একাই নেন পাঁচ উইকেট

আন্দ্রে রাসেল একাই নেন পাঁচ উইকেট

  • Font increase
  • Font Decrease

আগে বল হাতে ঝড় তুললেন অ্যান্দ্রে রাসেল। বিধ্বংসী বোলিংয়ে একাই তুলে নিলেন ৫ উইকেট। পরে ব্যাট হাতে জ্বললেন নিতিশ রানা। হাঁকালেন দুর্দান্ত এক হাফ-সেঞ্চুরি। কিন্তু দুজনের দুরন্ত বোলিং-ব্যাটিং কোনো কাজেই লাগল না। জয়ের নাগালই পেল না কলকাতা নাইট রাইডার্স। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কাছে হারল মাত্র ১০ রানে।

চেন্নাইয়ের এমএ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে প্রতিপক্ষকে চেপে ধরে পুরো কেকেআর। ধ্বংসাত্মক বোলিংয়ে আন্দ্রে রাসেল একাই শিকার করেন ৫ উইকেট। সঙ্গে রান খরচায় ছিলেন মিতব্যয়ী। ২ ওভারে রান দেন মাত্র ১৫। তাইতো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স গুটিয়ে যায় ১৫২ রানে। সূর্যকুমার যাদব ৫৬ ও রোহিত শর্মা যোগ করেন ৪৩ রান।

প্রতিপক্ষ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে অল্পেতে আটকে রেখে জয়ের স্বপ্নই বুনেছিল কেকেআর। ওপেনার নিতিশ রানা ৫৭ আর শাবমান গিল ৩৩ রান যোগ করে শক্ত ভিত গড়ে দিয়ে ছিলেন। কিন্তু ম্যাচ সেরা রাহুল চাহার লেগ স্পিনে ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে চার উইকেট ফেলে দিলে কেকেআর গুটিয়ে যায় ৭ উইকেটে ১৪২ রানে। উদ্বোধনী জুটি ছাড়া অন্য ব্যাটসম্যানরা দুই অঙ্কও ছুঁতে পারেননি। তাই হাত ছোঁয়া দূরত্বে থাকা জয়ও ধরা দেয়নি।

তার আগে আইপিএল ক্যারিয়ারের পঞ্চাশতম ম্যাচে বল হাতে স্পিন জাদু দেখান সাকিব। উইকেট একটি পেলেও কিপ্টেমি বোলিংয়ে প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের ওপর চাপ সৃষ্টি করেন।

চার ওভার বল করে ২৩ রান দিয়ে এক উইকেট নেন সাকিব। নিজেদের উদ্বোধনী ম্যাচে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট পেয়ে ছিলেন। এ ম্যাচে নিজের শেষ ওভারে নেন সূর্যকুমার যাদবের মূল্যবান উইকেট। তার বলে শাবমান গিলের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন সূর্যকুমার। বিধ্বংসী হয়ে উঠা সূর্যকুমারকে ইনিংসটি আর বড় করতে দেননি সাকিব।

তবে পাঁচে নেমে ব্যাট হাতে হতাশ করেন সাকিব। ৯ বল খেলে ১ বাউন্ডারিতে ৯ রান নিয়ে সাজঘরে ফেরেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার। সূর্যকুমারকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সাকিব। মধুর প্রতিশোধ নিতে সাকিবের ক্যাচটা নেন সেই সূর্যকুমারই।