কোচ ডমিঙ্গোকে যোগাযোগ দক্ষতা বাড়াতে হবে: সুজন



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন ও কোচ রাসেল ডমিঙ্গো

বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন ও কোচ রাসেল ডমিঙ্গো

  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্ভাগ্যটা সঙ্গী হয়ে ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম টেস্ট সিরিজ থেকেই। দুঃস্বপ্নটা পিছু নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড সফরেও। পারফরম্যান্সটা যে ভালোই হলো না। হলো না জয়ের সঙ্গে দেখা। 

র্বশেষ শ্রীলঙ্কা সফরেও জয় সোনার হরিণ হয়েই রইল। ড্রয়ের পর বাজে হারে সিরিজটাই হলো হাতছাড়া। দলের এই ব্যর্থতার দায় সবাই যেন চাপিয়ে যাচ্ছিল প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর কাঁধে। 

কিন্তু বিসিবি'র পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন প্রোটিয়া কোচ ডমিঙ্গোকে বলির পাঠান বানাতে নারাজ। তার কাজ সন্তোষজনক হলেও ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগটা বাড়ানো উচিত কোচের। মাঠের লড়াইয়ের পরিকল্পনাটা খেলোয়াড়দের বুঝিয়ে দিতে হবে পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে। এটা কোচের দায়িত্ব। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে সেই কৌশলটা তাকে রপ্ত করতে হবে। এমনটি মনে করেন শ্রীলঙ্কা সফরের এ টাইগার টিম লিডার। কিন্তু তাই বলে ডমিঙ্গোর চাকরি হারানোর কোনো কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না সুজন। 

জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েব পোর্টাল ক্রিকবাজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কোচ ডমিঙ্গোর হয়েই কথা বলেন সুজন, ‘রাসেলকে বলির পাঠা বানানো ঠিক হবে না। ভালো কৃতিত্ব বা খারাপের দায় সবটাই কোচের নয়। সে বড় দলেও কোচিং করিয়েছে। তার প্রচেষ্টায় কোনো খামতি ছিল না।’

সুজনের মতে, দলের সঙ্গে ভাগ্যটা সহায় ছিল না কোচ ডমিঙ্গোর, ‘ডমিঙ্গোর দুর্ভাগ্য। অনেক বারই এমনটা হয়েছে। এখন এ নিয়ে বললে তাড়াহুড়ো হয়ে যাবে বিষয়টা। তার সঙ্গে একটা সিরিজে কাজ করেছি। এই অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, সে চেষ্টা করছে।’ 

যোগাযোগ দক্ষতা আরও উন্নত করতে হবে কোচকে। সুজনের চোখে কোচ ডমিঙ্গোর কাজের ঘাটতি এটাই, ‘আমাদের পরিকল্পনাটা ছেলেদের বুঝিয়ে দিতে হবে। কোচকে এই কাজটা চালিয়ে যেতে হবে। ডমিঙ্গোর এ বিষয়ে বুঝে-শুনে কাজ করতে হবে। এখানে কাজের ধরন ভিন্ন। তার বোঝা উচিত, সে দক্ষিণ আফ্রিকায় কাজ করছে না।'

ডমিঙ্গোকে কোচের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার গুঞ্জন ডানা মেলে ছিল ক্রিকেটাঙ্গনের আকাশে। সেটা তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন সুজন। বলেন, ‘এ নিয়ে কোনো আলোচনাই হয়নি। চাইলেই একজন কোচকে দায়িত্ব দেওয়া যাওয়া না। অনেক বিষয়ে ভাবতে হয় এ নিয়ে।’