এখনো টাইগারদের জয়ের সুযোগ দেখছেন কোচ ডমিঙ্গো



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
টাইগার ক্রিকেটাররা

টাইগার ক্রিকেটাররা

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রাম টেস্টের লাগাম টেনে ধরেছে পাকিস্তান। জয়ের জন্য পঞ্চম ও শেষদিনে অতিথিদের দরকার মাত্র ৯৩ রান। হাতে রয়ে গেছে পুরো ১০ উইকেট। উদ্বোধনী জুটিতে ১০৯ রানের পার্টনারশিপ গড়ে ক্রিজে টিকে আছেন দুই ওপেনার আবিদ আলি (৫৬* ব্যাটিং) ও আব্দুল্লাহ শফিক (৫৩* ব্যাটিং)। কিন্তু তারপরও টাইগারদের জয়ের সম্ভাবনা দেখছেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

চতুর্থ দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো শোনালেন সেই আশার বাণী, ‘প্রথম সেশনে উইকেট পড়ছে। যেভাবে ছেলেরা লড়াই করছে তাতে আমি গর্বিত। পাকিস্তান ম্যাচে এগিয়ে আছে। তাদের ৯৩ রান প্রয়োজন, আমাদের জিততে হলে বিশেষ কিছু করতে হবে। টেস্ট ক্রিকেটে যেকোনো কিছুই সম্ভব। আমাদের জয়ের সুযোগ আছে এটা বিশ্বাস করেই কাল মাঠে নামতে হবে। প্রথম আধা ঘণ্টায় এক-দুটি উইকেট তুলে নিতে পারলে যেকোনো কিছুই সম্ভব।’

চতুর্থ দিন ৩৩ ওভার বল করেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। কিন্তু প্রতিপক্ষ পাকিস্তানের কোনো উইকেট শিকার করতে পারেনি তাইজুল ইসলামরা। স্বাভাবিকভাবে চাপে রয়েছে বাংলাদেশ। সেই হতাশাই ঝরল প্রোটিয়া কোচ ডমিঙ্গোর কণ্ঠে, ‘প্রথম দুই দিন আমরা সত্যিই ভালো খেলেছি। তৃতীয় দিনের বেশিরভাগ অংশও ভালো ছিল। কিন্তু শেষ সেশনে ভালো করতে পারিনি। এটা আমাদের অনেক চাপে ফেলে দিয়েছে। এমন পারফরম্যান্স হতাশাজনক ছিল। এর আগপর্যন্ত আমরা ভালো ক্রিকেটই খেলেছি। প্রথম ইনিংসে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ স্কোর দাঁড় করেছি। স্পিনার ও সিমাররা ভালো করে লিড এনে দিয়েছিল। তৃতীয় দিনের শেষ সেশনই আমাদের চাপে ফেলে দিয়েছে।’

টেস্টে দেশের ক্রিকেটাররা ভালো না করার জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটের কাঠামোকেই দায়ী করেছেন কোচ ডমিঙ্গো, ‘শুধু এই টেস্টের কথা চিন্তা করলে আমি হতাশ নই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি টেস্টই আমাদের জেতা উচিৎ ছিল। আমরা জয়ের খুব কাছাকাছি যাচ্ছি। আমি দলের প্রচুর উন্নতি দেখতে পাচ্ছি। তবে সেটা লম্বা সময় ধরে রাখতে পারছে না। হয়তো এমন প্রতিযোগিতার চাপ ঘরোয়া ক্রিকেটে নেই। এসব চাপ সামলানোর ক্ষেত্রে আমাদের ঘাটতি আছে।’

লিটন দাসের প্রশংসায় পঞ্চমুখ কোচ, ‘গত ১৮ মাসে লিটনের গড় ৬০ এর মতো। আমাদের হয়ে দারুণ কিছু ইনিংস সে খেলেছে। ৬ বা ৭ নম্বরে তার জন্য ভালো একটি জায়গা আমরা খুঁজে পেয়েছি। লোয়ার অর্ডারে আত্মবিশ্বাসের সাথে সে ব্যাট করছে। আমরা জানি সে দারুণ একজন খেলোয়াড়। ছন্দ খুঁজে পেতে একটু সময় লেগেছে। গত বছরগুলোতে টেস্টে সে আমাদের বড় ইতিবাচক দিক। হয়তো আগামী বছরগুলোতে সে বাংলাদেশের হয়ে ৪ বা ৫ নম্বরে খেলতে পারে।’

দুই ওপেনার সাদমান ও সাইফ হাসানের ফারফরম্যান্সে হতাশ প্রোটিয়া ক্রিকেট গুরু ডমিঙ্গো বলেন, ‘এটা হতাশাজনক। এই উইকেটে তারা যেভাবে আউট হয়েছে তা দেখে আমরা খুশি নই। সাদমান তার সর্বশেষ টেস্টে শতক হাঁকিয়েছে, কিন্তু তা খেলেছে ৫-৬ মাস আগে। নতুন বলে আমরা চাপে পড়ে যাচ্ছি। আমরা একটি মানসম্পন্ন বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে খেলছি।’

মাশরাফির ফেরার ম্যাচে সিলেটের কাছে হারল ঢাকা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সিলেট সানরাইজার্স

সিলেট সানরাইজার্স

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রথম দুই ম্যাচ টানা হারের পর তৃতীয় ম্যাচে এসে জয়ের দেখা পেয়েছিল মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। প্রথম জয়ের আনন্দ ফুরিয়ে না যেতেই ফের হারের স্বাদ পেল ক্যাপ্টেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। মাশরাফি বিন মর্তুজার ফেরার ম্যাচে সিলেট সানরাইজার্সের কাছে হারল ৭ উইকেটে। অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেনের দল দাপুটে এ জয় পেয়েছে ১৮ বল হাতে রেখেই।

মিরপুরে টস হেরে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে বিপদে পড়ে যায় ঢাকা। ১৭ রানেই তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। তবে মোহাম্মদ নাঈমকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয় কাটিয়ে উঠার আভাস দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে তাদের জুটি টিকে ছিল দলীয় ৫৭ রান পর্যন্ত।

দলীয় স্কোরে ১৫ রান যোগ করে ওয়ানডাউনে নামা নাঈম ফিরতেই ফের ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার মিছিল শুরু হয়ে যায়। ক্রিজের এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যাট হাতে লড়াই করে যান কেবল ক্যাপ্টেন মাহমুদউল্লাহ। অন্য প্রান্তে নিয়মিত পড়তে থাকে উইকেট। রিয়াদও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি ৩৩ রান নিয়ে ফেরেন তিনি।

শেষ দিকে শুভাগম হোমও শেষ চেষ্টা চালিয়ে যান। ইনিংসটা বড় করতে চেষ্টার কোনো ত্রুটি ছিল তার মধ্যে। তবে তিনি থামেন ব্যক্তিগত ২১ রানে। তার সঙ্গে রুবেল হোসেন যোগ করেন ১২ রান। ঢাকার ব্যাটিং অভিযাত্রা ১৮. ৪ ওভারে থামে দলীয় ১০০ রানে।

সিলেটের হয়ে তাসকিন আহমেদ শিকার করেন তিন উইকেট। দুটি উইকেট যায় সোহাগ গাজীর পকেটে।

জবাবে এনামুল হকের ব্যাটিং দৃঢ়তায় তিন উইকেটের বিনিময়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সিলেট। ১৭ ওভারেই ছুঁয়ে ফেলে তারা ১০১ রানের সহজ লক্ষ্যটা। ৪৫ বলে ৪ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৪৫ রানের দুরন্ত এক ইনিংস খেলেন এনামুল। ২১* রানে অপরাজিত থেকে যান কলিন ইনগ্রাম।

তার সঙ্গে তিনে ব্যাট হাতে নামা মোহাম্মদ মিঠুন ১৭ ও ওপেনার লেন্ডল সিমন্স ১৬ রান এনে দেন। ঢাকার হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলেই দুটি উইকেট শিকার করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বাকি উইকেটি নেন হাসান মুরাদ।

;

রোমাঞ্চকর ম্যারাথন লড়াই জিতে সেমিতে নাদাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
রাফায়েল নাদাল

রাফায়েল নাদাল

  • Font increase
  • Font Decrease

ম্যারাথন ম্যাচে দুরন্ত পারফরম্যান্সে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমি-ফাইনালে পৌঁছে গেছেন রাফায়েল নাদাল। তবে শেষ চারে টিকিট ছিনিয়ে নিতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে স্প্যানিশ এ সুপারস্টারকে। 

কোয়ার্টার ফাইনালে ডেনিস শাপোভালভের বিপক্ষে নাদাল জেতেন পাঁচ সেটের রোমাঞ্চকর লড়াই শেষে। এজন্য তাকে লড়তে হয়েছে ৪ ঘণ্টারও বেশি সময়।

প্রথম দুই সেটে হেসে খেলেই জিতে যান নাদাল। কানাডিয়ান প্রতিপক্ষকে হারিয়ে দেন ৬-৩ ও ৬-৪ গেমে। কিন্তু দুই সেটে পিছিয়ে পড়ে ঘুরে দাঁড়ান শাপোভালভ। 

পরের দুই সেট ৬-৪ ও ৬-৩ গেমে জিতে সমতায় ফেরেন। তবে শেষ সেটে ফের দোর্দন্ড প্রতাপ দেখিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন নাদাল।

শেষটা ৬-৩ গেমে রাঙিয়ে ম্যাচের সঙ্গে শেষ চারের টিকিটও নিজের করে নেন ২০ গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক নাদাল। 

;

মাঠের লড়াইয়ে ফিরলেন মাশরাফি, ব্যাটিংয়ে ঢাকা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মাশরাফি বিন মর্তুজা

মাশরাফি বিন মর্তুজা

  • Font increase
  • Font Decrease

মাশরাফি বিন মর্তুজাকে মাঠের লড়াইয়ে দেখতে মুখিয়ে ছিলেন ভক্ত- সমর্থকরা। ক্রিকেট খেলতে যেন তর সই ছিল না সাবেক এ ক্রিকেট ক্যাপ্টেনেরও।

অবশেষে অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে। বিপিএলে মাঠে নামছেন মাশরাফি। সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ৪০২ দিন পর বল হাতে ২২ গজের লড়াইয়ে নামছেন এ ক্রিকেট সুপারস্টার।

নড়াইল এক্সপ্রেসকে একাদশে রেখে টস হেরে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমেছে মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। কেননা টস জিতে বোলিং বেছে নিয়েছে সিলেট সানরাইজার্স।

সিলেট সানরাইজার্স একাদশ: মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মোহাম্মদ মিঠুন, এনামুল হক বিজয়, নাজমুল ইসলাম অপু, সোহাগ গাজী, মুক্তার আলী, তাসকিন আহমেদ, সানজামুল ইসলাম, লেন্ডল সিমন্স, রবি বোপারা ও কলিন ইনগ্রাম।

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা একাদশ: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তামিম ইকবাল, নাঈম শেখ, জহুরুল ইসলাম, শুভাগত হোম চৌধুরী, রুবেল হোসেন, হাসান মুরাদ, মাশরাফি বিন মর্তুজা, মোহাম্মদ শাহজাদ, ইসুরু উদানা ও আন্দ্রে রাসেল।

;

টিভির পর্দায় বিপিএলের লড়াই



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বিপিএল

বিপিএল

  • Font increase
  • Font Decrease

ক্রিকেট

বিপিএল ২০২২ 

মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা-সিলেট সানরাইজার্স 

সরাসরি, দুপুর সাড়ে ১২টা

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স-ফরচুন বরিশাল

সরাসরি, বিকেল সাড়ে ৫টা

গাজী টিভি ও টি স্পোর্টস

 

টেনিস

অস্ট্রেলিয়ান ওপেন

সরাসরি, সকাল সাড়ে ৭টা

সনি টেন ২, সনি সিক্স 

;