অধরা জয়ের খোঁজে টাইগাররা



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ-পাকিস্তান ক্রিকেট লড়াই

বাংলাদেশ-পাকিস্তান ক্রিকেট লড়াই

  • Font increase
  • Font Decrease

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দুঃস্বপ্নটা ভুলতে চেয়ে ছিল টাইগাররা। কিন্তু পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে সেটা সম্ভব হয়নি। উল্টো তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে স্বাগতিকরা ডুবেছে হোয়াইটওয়াশের লজ্জায়।

টি-টোয়েন্টিতে জয় ধরা না দিলেও টেস্টে আশায় বুক বেঁধেছিল টাইগাররা। অধরা জয় অন্তত ধরা দিবে। কিন্তু সেটা হয়নি। চট্টগ্রাম টেস্টে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা পাকিস্তানের কাছে হার মানে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

জয়ের ধারায় ফেরার আরও একটি সুযোগ টাইগারদের সামনে। অতিথি পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট খেলতে আজ মাঠে নামছে মুমিনুল হকরা। দুদলের লাল বলের লড়াই শুরু সকাল ১০টায়। ভেন্যু মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

এ ম্যাচে হারলে টি-টোয়েন্টিতের মতো লাল বলের লড়াইয়ে হোয়াইটওয়াশ হবে দেশের ক্রিকেটাররা। সেই লজ্জা এড়ানোর লড়াই শুরু আজ টাইগারদের। 

দলে ফিরেছেন প্রাণভোমরা সাকিব আল হাসান। তার সঙ্গে দলে আছেন তারকা পেসার তাসকিন আহমেদ। এ কারণে ভালো পারফরম্যান্স উপহার দিতে উজ্জীবিত হয়ে আছে স্বাগতিকরা। হোয়াইটওয়াশ এড়িয়ে অধরা জয় ছিনিয়ে নিতে যারপরনাই নাই মরিয়া বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। 

বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহায়তার আশ্বাস আইসিসি’র



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহায়তার আশ্বাস আইসিসি’র

বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহায়তার আশ্বাস আইসিসি’র

  • Font increase
  • Font Decrease

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) চেয়ারম্যান গ্রেগ বারক্লে বাংলাদেশকে ক্রিকেটের আরও উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সোমবার সকালে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে বারক্লে বলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আইসিসি সব ধরনের সহায়তা দেবে।’

জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আইসিসি’র সর্বাত্মক সহযোগিতা পেলে বাংলাদেশ ক্রিকেট আরও এগিয়ে যাবে।’

প্রধানমন্ত্রী আইসিসি চেয়ারম্যানকে বলেন, তাঁর পুরো পরিবারই ক্রীড়াপ্রেমী। কারণ, তাঁর দাদা, বাবা ও ভাইয়েরা খেলোয়াড় এবং ক্রীড়া সংগঠক ছিলেন।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এম এম ইমরুল কায়েস সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

আইসিসি চেয়ারম্যান বাংলাদেশ পুরুষ ও নারী উভয় ক্রিকেট দলের গত সাত বছরে অসাধারণ পারফরম্যান্সের  ভূয়সী প্রশংসা করেন ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের গত সাত বছরের পারফরম্যান্স তাকে বাংলাদেশ সফরে অনুপ্রাণিত করেছে যাতে তিনি সরাসরি বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নয়ন প্রত্যক্ষ করতে পারেন।

প্রথমবারের মতো আইসিসি নারী বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল পাকিস্তানকে ৯ রানে পরাজিত করে বাংলাদেশের বিশ্বকাপে জয়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আইসিসি নারী ক্রিকেটের উন্নয়নেও প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহায়তা দিবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা বাংলাদেশকে কোচিং, আম্পায়ারিং এবং উইকেট বা পিচের উন্নয়নে সহায়তা করবো।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব মো. তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আইসিসি চেয়ারম্যান ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের সাবেক এক পরিচালক দুই দিনের সফরে রোববার ঢাকায় পৌঁছেছেন ।

বারক্লে, ২০২০ সালের ২৪ নভেম্বর আইসিসি’র চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। রাজধানীতে পৌঁছার পর তিনি পূর্বাচলে শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন ।

;

মুশফিক-লিটনের রেকর্ড জুটিতে টাইগারদের স্বপ্নীল দিন



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস

  • Font increase
  • Font Decrease

অসাধারণ ব্যাটিং দৃঢ়তায় দিন শেষে অপরাজিত রইলেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। লঙ্কানদের বিপক্ষে দুজনে মিলে গড়লেন দারুণ এক রেকর্ড। টেস্টে ষষ্ঠ উইকেটে বাংলাদেশের হয়ে এই প্রথম দুইশ রানের পার্টনারশিপ গড়লেন তারা। ২০০৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পি সারা ওভারে মোহাম্মদ আশরাফুলের সঙ্গে ১৯১ রানের রেকর্ড জুটির অংশীদার ছিলেন মুশফিক। মিরপুরের এ ম্যাচে লিটনকে সঙ্গী করে সেই রেকর্ডটা ভাঙলেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’। তাতে করে বাংলাদেশও এগিয়ে যাচ্ছে রান পাহাড়ের দিকে।

প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরির আভাস দিয়েছিলেন লিটন দাস। কিন্তু দুর্ভাগ্য জাদুকরী তিন অঙ্ক ছোঁয়া হয়নি তার চট্টগ্রামে। তবে মিরপুরে আর সে ভুল হয়নি। এবার ঠিকই শতক ছিনিয়ে নিয়েছেন এ তারকা ব্যাটসম্যান। তার সঙ্গে সেঞ্চুরি পেয়েছেন মুশফিকুর রহিমও। ২২১ বলে ১৬ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ১৩৫* রান নিয়ে ব্যাটিং করে যাচ্ছেন লিটন। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি এবং ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস। ২৫২ বলে ১৩ বাউন্ডারিতে ১১৫* রানে তাকে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন মুশফিক। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি।

শুরুতেই ভয়ংকর বোলিং আক্রমণ করে বসেছিল শ্রীলঙ্কা। পেস তোপটা দাগান কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো। তাতেই মহাবিপর্যয়ের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে গিয়েছিল টাইগাররা। দলীয় মাত্র ২৪ রানেই হারিয়ে ফেলেছিল ৫ উইকেট। মিরপুর টেস্টের খেলা হয়েছে তখন মাত্র ৬.৫ ওভার।

শুরুতেই ভয়ংকর বোলিং আক্রমণ করে বসেছিল শ্রীলঙ্কা। পেস তোপটা দাগান কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো। তাতেই মহাবিপর্যয়ের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে গিয়েছিল টাইগাররা। দলীয় মাত্র ২৪ রানেই হারিয়ে ফেলেছিল ৫ উইকেট। মিরপুর টেস্টের খেলা হয়েছে তখন মাত্র ৬.৫ ওভার। 

উদ্বোধনী জুটি কোনো রানই যোগ করতে পারেনি দলীয় স্কোরে। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল হাসান জয় দুজনেই ফিরেছেন শূন্য রানে। ক্যাপ্টেন মুমিনুল হক এবারও ব্যাট হাতে ব্যর্থ। তার কল্যাণে দল পেয়েছে মাত্র ৯ রান। ওয়ানডাউনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত করেন ৮ রান। সাকিব আল হাসান বিদায় নেন শূন্য হাতে।

চরম বিপদের দলের ব্যাটিং লাইনআপের হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। প্রথম টেস্টের মতো দুজনে মিলে লঙ্কান বোলারদের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে গড়ে তুলেছেন তীব্র প্রতিরোধ। 

মুশফিক ও লিটন মিলে ব্যাটিং লড়াইটা বেশ ভালোই চালিয়ে যাচ্ছেন। এগিয়ে নিচ্ছেন সামনের দিকে তথা বড় ইনিংসের পথে। ষষ্ঠ উইকেটে এরমধ্যে ৪৬৯ বলে রেকর্ড ২৫৩* রানের পার্টনারশিপ গড়ে ফেলেছেন। 

প্রথম দিন শেষে শ্রীলঙ্কা বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করেছে ২৭৭ রান। শ্রীলঙ্কার হয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেছেন কাসুন রাজিথা। দুটি উইকেট পেয়েছেন আসিথা ফার্নান্দো।

;

লিটনের পর মুশফিকের সেঞ্চুরি



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরির আভাস দিয়েছিলেন লিটন দাস। কিন্তু দুর্ভাগ্য জাদুকরী তিন অঙ্ক ছোঁয়া হয়নি তার চট্টগ্রামে। তবে মিরপুরে আর সে ভুল হয়নি। এবার ঠিকই শতক ছিনিয়ে নিয়েছেন এ তারকা ব্যাটসম্যান। তার সঙ্গে সেঞ্চুরি পেলেন মুশফিকুর রহিমও। ১২৭* রান নিয়ে ব্যাটিং করে যাচ্ছেন লিটন। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি এবং ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস। ১০১* রানে তাকে সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছেন মুশফিক। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি।

শুরুতেই ভয়ংকর বোলিং আক্রমণ করে বসেছিল শ্রীলঙ্কা। পেস তোপটা দাগান কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো। তাতেই মহাবিপর্যয়ের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে গিয়েছিল টাইগাররা। দলীয় মাত্র ২৪ রানেই হারিয়ে ফেলেছিল ৫ উইকেট। মিরপুর টেস্টের খেলা হয়েছে তখন মাত্র ৬.৫ ওভার। 

উদ্বোধনী জুটি কোনো রানই যোগ করতে পারেনি দলীয় স্কোরে। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল হাসান জয় দুজনেই ফিরেছেন শূন্য রানে। ক্যাপ্টেন মুমিনুল হক এবারও ব্যাট হাতে ব্যর্থ। তার কল্যাণে দল পেয়েছে মাত্র ৯ রান। ওয়ানডাউনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত করেন ৮ রান। সাকিব আল হাসান বিদায় নেন শূন্য হাতে।

চরম বিপদের দলের ব্যাটিং লাইনআপের হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। প্রথম টেস্টের মতো দুজনে মিলে লঙ্কান বোলারদের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে গড়ে তুলেছেন তীব্র প্রতিরোধ। 

মুশফিক ও লিটন মিলে ব্যাটিং লড়াইটা বেশ ভালোই চালিয়ে যাচ্ছেন। এগিয়ে নিচ্ছেন সামনের দিকে তথা বড় ইনিংসের পথে। ষষ্ঠ উইকেটে এরমধ্যে ২২৫* রানের পার্টনারশিপ গড়ে ফেলেছেন। 

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করেছে ২৪৯ রান। শ্রীলঙ্কার হয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেছেন কাসুন রাজিথা। দুটি উইকেট পেয়েছেন আসিথা ফার্নান্দো।

;

মুশফিক-লিটনের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
মুশফিক-লিটনের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ

মুশফিক-লিটনের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের লড়াকু ব্যাটিংয়ে শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে উঠছে বাংলাদেশ। দিনের দ্বিতীয় সেশন শেষ করে বিরতিতে যাওয়ার আগে অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন এই দুই ব্যাটার।

চা বিরতিতে যাওয়ার আগে অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন লিটন ও মুশফিক।

মিরপুরে সফরকারী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। তবে অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি ব্যাটাররা। মাত্র ২৪ রানের মধ্যেই ৫ উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে টাইগাররা। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলছেন দুই অভিজ্ঞ ব্যাটার মুশফিক ও লিটন।

চট্রগ্রাম টেস্টে মুশফিক ও লিটনের ১৬৫ রানের দুর্দান্ত পার্টনারশিপের পর ঢাকা টেস্টেও তারা সেই ধারা অব্যাহত রেখেছেন তারা। চা পানের বিরতির আগে এই জুটি থেকে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে যুক্ত হয়েছে ১২৯ রান। অর্ধশতকের মাইলফলক স্পর্শ দুইজনই। লিটন দাস তুলে নিয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৩তম ফিফটি। আর মুশফিক পেয়েছেন ২৬তম ফিফটির দেখা।

দ্বিতীয় সেশনের বিরতির আগ পর্যন্ত ৫৩ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৪ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। ১২৫ বল থেকে ১০টি বাউন্ডারিতে লিটন অপরাজিত আছেন ৭২ রানে। আরেক অপরাজিত ব্যাটার মুশফিকের ব্যাট থেকে সমান ১০টি বাউন্ডারিতে ১৫৬ বলে ৬২ রান এসেছে।

এদিকে দিনের শুরুতে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল জয় ফেরেন শূন্য হাতে। অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও রানের খাতা খুলতে পারেননি। অধিনায়ক মুমিনুল কিংবা শান্ত কেউই দলের হাল পারেননি। এরপরই বাংলাদেশের জন্য ত্রাতা হয়ে আসেন মুশফিক ও লিটন। লঙ্কানদের হয়ে এখন পর্যন্ত কাসুন রাজিথা তিনটি ও আসিথা ফার্নান্দো দুইটি করে উইকেট শিকার করেছেন।

;