টাইগারদের পুঁজি ১৬৯



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বাংলাদেশ-আরব আমিরাত

বাংলাদেশ-আরব আমিরাত

  • Font increase
  • Font Decrease

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের ছেলেরা গড়ল ১৬৯ রানের পাহাড়সম পুঁজি। শুরুর ধারাটা ধরে রাখতে পারলে স্কোরটা আরও বড় হতে পারত। 

ওপেনার সাব্বির রহমান (১২) সাজঘরে ফিরলেও অসাধারণ ব্যাটিং দৃঢ়তায় ব্যাটাররা দলকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন বড় সংগ্রহের পথে। ক্রিজের এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যাটিং ঝলক দেখান মেহেদী হাসান মিরাজ। ৩৭ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ৪৬ রানের চমৎকার এক ইনিংস খেলেন তারকা এ অলরাউন্ডার। তাকে সঙ্গ দেয়ার চেষ্টা করেন লিটন দাস। তবে এ স্টার ব্যাটার ইনিংস বড় করতে পারেননি। বিদায় নেন ২০ বলে ৪ বাউন্ডারিতে দলীয় স্কোরে ২৫ রান যোগ করে। আর আফিফ হোসেন এনে দেন ২০ রান।

মিরাজ আউট হলেও ব্যাট হাতে লড়াই করেন মোসাদ্দেক হোসেন। সাহস দেখালেও ব্যাক্তিগত ইনিংসটি বড় করতে পারেননি। মোসাদ্দেকের ব্যাট ছুঁয়ে ২২ বলে ২ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় আসে ২৭ রান। শেষ দিকে ঝড়ো ইনিংস খেলেন ইয়াসির আলী রাব্বী। অপরাজিত থেকে যান ১৩ বলে ২১* রান করে। নুরুল হাসান সোহান যোগ করেন ১৯* রান।

আমিরাতের জার্সি গায়ে ২ উইকেট শিকার করে আয়ান আফজাল খান। তার সঙ্গে একটি করে উইকেট নেন সাবির আলী, কার্তিক মেয়াপ্পন ও আরিয়ান লাকরা।

স্পেন-জাপানের ম্যাচে কি আরেক ‘অঘটন’?

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
স্পেন-জাপানের ম্যাচে কি আরেক ‘অঘটন’?

স্পেন-জাপানের ম্যাচে কি আরেক ‘অঘটন’?

  • Font increase
  • Font Decrease

জাপানের সঙ্গে গ্রুপ পর্যায়ের শেষ রাউন্ডের ম্যাচ খেলার আগেই সংবাদ সম্মেলনে কোয়ার্টার ফাইনালের প্রসঙ্গ এসেছিল স্পেনের কোচ লুইস এনরিকের সামনে। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলোতে জয়ের পর কোয়ার্টার ফাইনালে গেলে মুখোমুখি হতে পারে ব্রাজিল ও স্পেন। এই যখন হিসাব তখন স্পেনের কোচ বলছেন, ব্রাজিলকে কোয়ার্টার ফাইনালে এড়াতে জাপানকে ছাড় দেবে না তার দল।

ব্রাজিল-স্পেনের মুখোমুখি হওয়ার প্রসঙ্গ আসছে তখন যখন পর্যন্ত শেষ ষোলোই নিশ্চিত হয়নি স্পেনের। তবে প্রথম ম্যাচে বড় ব্যবধানে জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে ড্র; এই চার পয়েন্টে ধরা হচ্ছে স্পেনই যাচ্ছে নকআউট পর্বে।

‘ই’ গ্রুপ থেকে নকআউটের দৌড়ে আছে চার দলই। দুই ম্যাচ খেলে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে স্পেন, এরপর ৩ পয়েন্ট নিয়ে পরের দুটি স্থানে আছে জাপান ও কোস্টারিকা, এবং ১ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার তলানিতে জার্মানি।

পয়েন্ট তালিকার হিসাব ও বিশ্বকাপের এবারের পারফরম্যান্সে এগিয়ে স্পেন। সম্ভাবনা আছে জাপান ও জার্মানির। জার্মানিকে হারিয়ে ‘অঘটন’ ঘটাতে পারলে কোস্টারিকা চলে যাবে নকআউট পর্বে। আবার জাপানও স্পেনকে হারিয়ে আরেক ‘অঘটনের’ জন্ম দেবে?

শেষ ষোলোতে উন্নীত হওয়ার দৌড়ে চার দলের মধ্যে যখন নানা হিসাব তখন স্পেনকে ড্র করলেও চলবে। জাপান ড্র করলে এবং জার্মানি জিতলে গোল ব্যবধানের হিসাব চলে আসবে সামনে। তবে সহজ সমীকরণ হলো জাপানের বিপক্ষে স্পেন জিতলে এবং কোস্টারিকার বিপক্ষে জার্মানি প্রত্যাশিত জয় পেলে দুই দলই শেষ ষোলো খেলবে।

প্রথম ম্যাচে কোস্টারিকাকে ৭ গোলে বিধ্বস্ত করে এগিয়ে আছে স্প্যানিশরা। পরের ম্যাচে তারা জার্মানির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে। অন্যদিকে, জাপান তাদের প্রথম ম্যাচে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে ২-১ গোলে পরাজিত করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকার কাছে একমাত্র গোলে হেরে যায়।

ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে স্পেন কোচ লুইস এনরিকে বলেছেন, তারা জাপানের বিপক্ষে ড্র করার জন্য খেলবেন না। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হলে এবং সব ঠিক থাকলে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তাতেও ভীত নন এনরিকে। ব্রাজিলকে কোয়ার্টারে এড়ানোর পরিকল্পনা আছে কিনা এমন প্রশ্নে এনরিকে বলেছেন, ‘আপনারা কী ভাবছেন, ম্যাচে কী ঘটবে তা ধারণা করে নিয়ে গ্রুপে দ্বিতীয় হওয়ার জন্য খেলব!’

বিশ্বফুটবলের সর্বোচ্চ আসরে জাপান-স্পেন এই প্রথম মুখোমুখি হচ্ছে। তার আগে ২০০১ সালে এক প্রীতি ম্যাচে জাপানকে ১-০ গোলে হারায় স্পেন।

১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপে অভিষেক হয় জাপানের। পরের ছয়টি আসরেই বাছাই পর্ব পেরিয়ে বিশ্বকাপ খেলছে তারা। বিশ্বকাপের শেষ ষোলোয় তিনবার খেলেছে এশিয়ার দেশটি। গত বিশ্বকাপেও শেষ ষোলোতে খেলেছিল জাপান।
Write to কবির য়াহমদ

;

কোস্টারিকার সহজ হিসাব, জার্মানির জটিল সমীকরণ

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
কোস্টারিকার সহজ হিসাব, জার্মানির জটিল সমীকরণ

কোস্টারিকার সহজ হিসাব, জার্মানির জটিল সমীকরণ

  • Font increase
  • Font Decrease

রাশিয়া বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্যায় থেকে বাদ পড়েছিল জার্মানি। কাতার বিশ্বকাপেও শঙ্কা এখনও তাদের। গ্রুপের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে তাদের সামনে এখন কোস্টারিকা। এই ম্যাচে কেবল জিতলেই হবে না, তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যদের দিকেও।

বিশ্বকাপের ‘ই’ গ্রুপে জার্মানির জন্যে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি মাঠে গড়াবে বৃহস্পতিবার রাত ১টায়। আল বাইত স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে দুই দল।

ফিফা র‍্যাঙ্কিং বলছে জার্মানির স্থান ১১ নম্বর, অন্যেদিকে কোস্টারিকার অবস্থান ৩১ নম্বরে। তবে র‍্যাঙ্কিংয়ের এই অবস্থান অনুযায়ী এখনও খেলতে পারছে না চারবারের বিশ্বকাপজয়ীরা।

কাতারে নিজেদের প্রথম খেলায় জাপানের বিপক্ষে অঘটনের শিকার হয়েছিল জার্মানি। ২-১ গোলে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে দিয়েছিল এশিয়ার দেশটি। পরের ম্যাচে স্পেনের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে জার্মানি।

অন্যদিকে, কোস্টারিকার এবারের বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে দুঃস্বপ্নে। স্পেনের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে তারা হেরেছে ৭-০ গোলে। পরের ম্যাচে অবশ্য জাপানকে হারিয়েছে তারা একমাত্র গোলে।

বিশ্বকাপের ‘ই’ গ্রুপের পয়েন্ট তালিকায় দুই ম্যাচ থেকে মাত্র ১ পয়েন্ট নিয়ে জার্মানি আছে তলানিতে। স্পেন আছে শীর্ষ স্থানে, তাদের পয়েন্ট ৪, কোস্টারিকা ও জাপানের পয়েন্ট ৩। পয়েন্ট তালিকার এই অবস্থানের কারণে চার দলের জন্যেই শেষ ষোলোর সুযোগ উন্মুক্ত রয়েছে। তবে দলগুলোর মধ্যে গোলপার্থক্যে সবচেয়ে সুবিধাজনক স্থানে রয়েছে স্পেন।

জার্মানি ও কোস্টারিকার মধ্যে খেলায় ভালো অবস্থানে রয়েছে কোস্টারিকাই। জিতলেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত তাদের। আবার ড্র করলেও থাকবে সুযোগ, সেক্ষেত্রে স্পেন-জাপানের খেলায় জিততে হবে স্পেনকে।

আরও হিসাব আছে, কোস্টারিকা যদি ড্র করে এবং স্পেন যদি হারে, তাহলে দুই দলের মধ্যে গ্রুপ রানার্সআপ প্রথমে নির্ধারিত হবে গোল ব্যবধানে; বর্তমানে স্পেনের গোল ব্যবধান (+৭) আর কোস্টারিকার (-৬)।

কোস্টারিকা যখন একটা জয় পেলেই সহজেই যেতে পারছে শেষ ষোলোতে, সেখানে জার্মানির জন্যে রয়েছে অনেক হিসাব। জার্মানিকে প্রথমে জিততেই হবে। এরপর অপেক্ষা করতে হবে স্পেন-জাপানের ম্যাচের ফল। অন্য ম্যাচে জাপান যদি হারে, তবেই নিজেরা জিতে যেতে পারবে পরের ধাপে।

আবার অন্য ম্যাচে জাপান ড্র করলে, নিজেদের ম্যাচে ২ গোলের ব্যবধানে জিতে লক্ষ্য পূরণ হবে জার্মানির। জাপান ড্র করল আর জার্মানি ১ গোলের ব্যবধানে জিতল, সেক্ষেত্রে দুই দলের গোল ব্যবধান হবে সমান (০), তখন বিবেচনায় আসবে কারা বেশি গোল করেছে।

এরপরের হিসাব জার্মানির জন্যে আরও জটিল, স্পেন হারলে এবং জার্মানি জিতলেও সুযোগ তৈরি হতে পারে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের; তবে গোল ব্যবধানে অনেক এগিয়ে স্পানিশরা। স্পেনের গোল ব্যবধানে (+৭), জার্মানির (-১)। এক্ষেত্রে জার্মানি যদি ৮ গোলের ব্যবধানে জিতে কিংবা স্পেন ৮ গোলের ব্যবধানে হারে, তাহলে এ দুই ক্ষেত্রেই গ্রুপ রানার্সআপ হবে জার্মানি।

;

হারলেই বাদ বেলজিয়াম, ড্র করলেও চলবে ক্রোয়েশিয়ার

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের কথা মনে আছে নিশ্চয়? সেই বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়া হয়েছিল রানার্সআপ আর বেলজিয়াম হয়েছিল তৃতীয়। গত বিশ্বকাপের দুই সেমিফাইনালিস্ট এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্যায়েই মুখোমুখি হচ্ছে, এবং এটা দল দুটির জন্যে শেষ ষোলোতে উঠার লড়াইয়ের।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ‘এফ’ গ্রুপের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

গ্রুপে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ক্রোয়েশিয়া। মরক্কো আছে দ্বিতীয় স্থানে, তাদের পয়েন্টও ৪। ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে বেলজিয়াম। চারে থাকা কানাডার পয়েন্ট শূন্য।

থিবো কোর্তোয়াদের জন্যে ম্যাচটা যতটা কঠিন, ঠিক ততটা নয় লুকা মদ্রিচদের জন্যে। আজ জিতলে তো বটেই, ড্র করলেও শেষ ষোলোর টিকিট পেয়ে যাবে ক্রোয়েশিয়া। কিন্তু হেরে গেলে বিদায়ঘণ্টা বেজে যেতে পারে ক্রোয়াটদেরও, যদি গ্রুপের অপর ম্যাচে কানাডার কাছ থেকে অন্তত ১ পয়েন্ট তুলে নিতে পারে মরক্কো।

হারলে বিদায় নিশ্চিত বেলজিয়ামের। তবে ড্র করলেও সম্ভাবনা একেবারে শেষ হয়ে যাবে না। সে ক্ষেত্রে কানাডার কাছে অন্তত ৩ গোলের ব্যবধানে হারতে হবে মরক্কোকে। কিন্তু দুই ম্যাচ থেকে কোন পয়েন্ট না পাওয়া কানাডার জন্যে এটা সহজ নয় নিশ্চিতভাবেই।

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বেলজিয়াম ও দ্বাদশ স্থানে থাকা ক্রোয়েশিয়া বিশ্বকাপে মুখোমুখি না হলেও এ পর্যন্ত ৮ বার পরস্পরের বিপক্ষে খেলেছে। এরমধ্যে সমান তিনটি করে জয় দু'দলের, অপর দুটি ম্যাচ ড্র।

এবারের বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে কানাডাকে ১-০ গোলে হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে বেলজিয়াম মরক্কোর কাছে ২-০ গোলে হেরে যায়। অন্যদিকে, মরক্কোর সঙ্গে প্রথম ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করা ক্রোয়েশিয়া দ্বিতীয় ম্যাচে কানাডাকে ৪-১ গোলে হারায়।

১৯৩০ সালে বিশ্বকাপের প্রথম আসরে খেলা বেলজিয়ামের বিশ্ব সেরার মঞ্চে এটি ১৪তম অংশগ্রহণ। রাশিয়া বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থানই দলটির সেরা অর্জন। অন্যদিকে, ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়ার অভিষেক হয় ১৯৯৮ সালে। সেবার তারা সেমিফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছেছিল, এবং গত বিশ্বকাপে খেলেছিল ফাইনাল।

;

সুযোগ নাই কানাডার, মরক্কোর সামনে শেষ ষোলো

  ‘মরুর বুকে বিশ্ব কাঁপে’



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায়ের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে মরক্কো ও কানাডা। প্রথম দুই ম্যাচ হারা কানাডার জন্যে ম্যাচটি নিয়মরক্ষার ম্যাচ হলেও মরক্কো জন্যে অন্য হিসাবের, শেষ ষোলোতে উন্নীত হওয়ার সম্ভাবনার।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ‘এফ’ গ্রুপের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

গ্রুপে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ক্রোয়েশিয়া। মরক্কো আছে দ্বিতীয় স্থানে, তাদের পয়েন্টও ৪। ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে বেলজিয়াম। চারে থাকা কানাডার পয়েন্ট শূন্য।

কানাডার বিপক্ষে মরক্কো জিতে গেলে কোন হিসাবেরই দরকার পড়বে না। আবার হার এড়ালেও শেষ ষোলোয় উঠবে তারা।

আবার হারলেও সম্ভাবনা থাকবে মরক্কোর; তবে অবশ্যই অন্য ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার জিততে হবে। মরক্কো ২ বা তার কম গোলের ব্যবধানে হারলে এবং অন্য ম্যাচ ড্র হলেও পরের ধাপে উঠবে আফ্রিকার দলটি।

এবারের বিশ্বকাপে মরক্কো ক্রোয়েশিয়ার সঙ্গে গোলশূন্য ড্রয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী বেলজিয়ামকে ২-০ গোলে হারিয়ে দেয়। অন্যদিকে, কানাডা প্রথম ম্যাচে বেলজিয়ামের কাছে ১-০ গোলে পরাজিত হওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৪-১ গোলে হেরে যায়।

মরক্কো বিশ্বকাপের এবারের আসর নিয়ে ছয়বার অংশ নিয়েছে। আগের পাঁচবারের অংশগ্রহণে একবারই মাত্র তারা নকআউট পর্বে ওঠেছিল। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে মরক্কো প্রথম কোন আফ্রিকান দেশ হিসেবে গ্রুপ পর্ব পেরিয়েছিল।

বিশ্বকাপে মরক্কো ও কানাডা পরস্পরের মুখোমুখি হয়নি। তবে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে দল দুটি তিনবার মুখোমুখি হয়েছিল, যার মধ্যে ২টি ম্যাচ জিতেছিল মরক্কো, অন্যটি ড্র।

;